ভূল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যু
২২ আগস্ট ২০১৮, বুধবার ০৬:০৬:১৫ এএম
সর্বশেষ:

২৪ এপ্রিল ২০১৮ ০৩:০৬:১০ এএম মঙ্গলবার     Print this E-mail this

ভূল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যু

নড়াইল প্রতিনিধি
বাংলার চোখ
 ভূল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যু

নড়াইলে ডাক্তারের অপচিকিৎসায় মাফিজুর শেখ (৩৫) নামে এক রোগির মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। নিহত মাফিজুর নড়াইলের কালিয়া উপজেলার আরাজী বাসগ্রামের ইসরাফিল শেখ’র ছেলে।গত ২২ এপ্রিল রাত ৯টার দিকে স্থানীয় অর্থোপেডিক্স ডাঃ আব্দুল কাদের জসিমের চেম্বারে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনার পরে স্তম্ভিত পরিবারের আহাজারিতে শত শত লোক ঘটনাস্থলে জড়ো হয়। পরে স্থানীয়  প্রভাবশালী লোকদের হস্তক্ষেপে পরিবারের লোকেদের ভয় দেখিয়ে দ্রুত অ্যাম্বুলেন্স ডেকে মরদেহ পাঠিয়ে দেয়া হয়। ঘটনাটি স্থানীয় কয়েকটি দৈনিকে প্রকাশ এবং ফেসবুকে আসায় ব্যাপক আলোড়ন তৈরী করেছে।

নিহতের পরিবার  সূত্রে জানা গেছে, মাফিজুর শেখ শেখ  কিছুদিন যাবত হাত-পায়ে ঠিকমত বল পাচ্ছিল না। একটু খুড়িয়ে হাটছিলেন। এই অবস্থায়  তাকে গত সোমবার(২২ এপ্রিল) রাতে নড়াইল সদর হাসপাতালের চিকিৎসক ডাঃ আব্দুল কাদের জসিম এর নিজস্ব চেম্বার শহরের রূপগঞ্জ তুলাপট্টি’র “অর্থপেডিক্স ট্রমা সেন্টারে” নিয়ে আসেন তার স্ত্রী লাকছি বেগম ও পুত্র রজিবুল।


নিহত ইসরাফিল শেখ এর ছেলে রজিবুল অভিযোগ করে জানান, ডাঃ আব্দুল কাদের জসিমের চেম্বারে নেয়া মাত্রই আব্বুকে দেখে ৩ হাজার টাকার একটি ইঞ্জেকশন ও ৮ হাজার একটি পরীক্ষা করাতে বলেন। টাকা নাই বলে মা ও ছেলে  মাফিজুর শেখকে  অন্যত্র নিয়ে যেতে চান। কিন্তু ডাঃ জসিম তাদের বলেন, দ্রুতই পরীক্ষা করাতে হবে এবং ইঞ্জেকশন দিতে হবে। না হলে রোগির খুব বিপদ হবে,হাত-পা চির দিনের জন্য নষ্ট হয়ে যাবে। ডাক্তারের জোরাজুরিতে  তার মা লাকছী বেগম স্থানীয় এক আতিœয়ের কাছ থেকে ৩ হাজার টাকা টাকা ধার করে ডাক্তারকে দিলে তিনি তার চেম্বার থেকে একটি ইঞ্জেকশন দেন। ইঞ্জেকশন দেবার সময় তাদের সেখান  থেকে বের করে দেয়া হয়। ইনঞ্জেকশন দেয়ার পর হতে বাবার অবস্থা খারাপ হতে থাকে।

লাকছি বেগমের অভিযোগ,মৃত্যু যন্ত্রনায় কাতর স্বামীর নিকট যাওয়ার জন্য ছটফট করলেও লাকছী বেগমকে যেতে দেয়া হয়নি। এক সময় নিস্তব্ধ হয়ে পড়ে মাফিজুর। ডুকরে কেঁদে শেষ বারের মত স্বামীর কথা শোনার জন্য তার কাছে যাওয়ার আকুতি জানায় লাকছী বেগম। কোন কাকুতি মিনতি কাজে লাগেনি। স্বামীর জন্য ডাক্তারের চেম্বারের বাইরে রোগিদের ওয়েটিং রুমে বসে ডুকরে কাদতে থাকেন।
স্থানীয়দের অভিযোগ, ঘটনা ধামাচাপা দিতে নানা ধরনের কৌশর অবলম্বন করেন ডাক্তার জসিম। তিনি নিজের কিছুলোক ও অনুগতদের চেম্বারে  ডেকে নিয়ে আসেন। তারা এসে নিহত রোগির স্বজনদের নানা ভাবে গোপনে কথা বলে  বিষটি ধামাচাপা দেবার চেষ্টা করেন,কয়েকজন প্রভাবশালী আইনজীবি এসময় ডাক্তারের পক্ষ নিয়ে এবং  হুমকি দিয়ে এ বিষয়ে নিরব থাকার জন্য চাপ সৃষ্টি করে। পরে এ্যাম্বুলেন্স ডেকে এনে নিহতের লাশ ও তার স্বজনদের জোর করে বাড়ি পাঠিয়ে দেয়া হয়।
স্বামীর মৃত্যুতে বার বার মূর্ছা যাওয়া লাকছী বেগম কাঁদতে কাঁদতে বলেন, তার স্বামী হাটা চলা করতে পারতো। স্থানীয় বনগ্রাম বাজারে চা বিক্রি করে সংসার চালাতো। তাকে সম্পূণরুপে সুস্থ করতে এসেছিলেন। কসাই ডাক্তার তাকে লাশ বানিয়ে বাড়ি পাঠিয়ে দিলো। তিনি আহাজারি করে মহান আল্লাহর কাছে বিচার দাবি করতে থাকেন। এসময় স্থানীয় অনেক জনতা উত্তেজিত হয়ে পড়ে। ভাংচুর হওয়ার ভয়ে চেম্বারের সামনে  কিছু সন্ত্রাসীদের  হাজির করেন ঐ ডাক্তার।
ঘটনার সময় ঘটনাস্থলে থাকা সাংবাদিকেরা ক্যামেরায় নিহতের স্ত্রী লাকছী বেগম এর বক্তব্য  নিতে চাইলে বক্তব্য দিতে শুরু করেন তিনি,সেসময় স্থানীয় সন্ত্রাসীদের কাছে  লাঞ্ছিত হবার ভয়ে পরিবারের লোকেরা তাকে থামিয়ে দেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক  স্থানীয় একজন সাংবাদিক নেতা বলেন,ডাক্তার জসিমের হাত অনেক লম্বা,পরিবারের লোকেরা ভয়েই সাংবাদিকদের কোন অভিযোগ  দিতে পারলো না,এই ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় আরো কতো লোক পঙ্গু হয়ে আছে,কেউ ই ডাক্তার জসিমের  কিছু করতে পারছে না,তিনি নানাভাবে সবকিছু ম্যানেজ করে ফেলেন।
কি ধরনের চিকিৎসা দিয়েছিলেন যাতে সঙ্গে সঙ্গে রোগী মারা গেলো? এমন প্রশ্নের জবাবে কোন উত্তর না দিয়ে ডাক্তার আব্দুল কাদের জসিম প্রতিবেদককে মোবাইল ফোনে বলেন“বিকালে চেম্বারে আসেন”রোগি মৃত্যুর কারনটি  যদি বলতেন, এমন কথার পরেও  তিনি আবার বলেন“ বিকালে একটু কষ্ট করে চেম্বারে আসেন।
এ ব্যাপারে নড়াইলের  সিভিল সার্জন ডাঃ আসাদ-উজ-জামান মুন্সি বলেন, এ ধরনের অভিযোগ আমার কানে এসেছে। সম্ভবত ডাক্তার জসিম কোন অবশ করার লোকাল কোন ইনজেকশন  ব্যবহার করেছেন,বিষয়টি তদন্ত করলে বের হবে। পরিবারের পক্ষ  থেকে  অভিযোগ আসলে  বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়া হবে।


সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
কার্যালয়
জামান টাওয়ার (৮ম তলা), ৩৭/২ কালভাট রোড, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০।
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2018. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close