১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, মঙ্গলবার ১১:৫৭:৩৬ পিএম
সর্বশেষ:

১৮ জুলাই ২০১৮ ০১:৫৩:৫৬ এএম বুধবার     Print this E-mail this

বিজিবি প্রত্যাহারে বেনাপোল বন্দর সচল

যশোর থেকে বিশেষ প্রতিনিধি
বাংলার চোখ
 বিজিবি প্রত্যাহারে বেনাপোল বন্দর সচল

 বেনাপোল চেকপোস্ট ও বন্দরে কাস্টমসের ওয়েভিং স্কেলে বিজিবি প্রত্যাহার করে নেওয়ায় মঙ্গলবার সকাল থেকে আবার সচল হয়েছে বেনাপোল-পেট্রাপোল স্থলবন্দর। সোমবার রাতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ আসার পর বিজিবি সদস্যদের প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়। বিজিবি মোতায়েন করায় রবি ও সোমবার দুই দিন বন্ধ ছিল দেশের বৃহত্তম স্থলবন্দরের আমদানি-রফতানিসহ পণ্য খালাস প্রক্রিয়া। কাস্টমসের পাশাপাশি বন্দর ব্যবহারকারীরা বন্ধ রাখে সকল কার্যক্রম।
গত শনিবার (১৪ জুলাই) সন্ধ্যায় বেনাপোল চেকপোস্ট কাস্টমস কার্গো শাখা ও বন্দরের অভ্যন্তরে ওয়েভিং স্কেলে বিজিবি সদস্যরা আমদানি বাণিজ্যে কাস্টমসের সঙ্গে যৌথ তদারকি শুরু করেন। এর প্রতিবাদে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ বাণিজ্যিক কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়। কাস্টমসের সঙ্গে যোগ দেয় বন্দর ব্যবহারকারী বিভিন্ন সংগঠন। ফলে রবি ও সোমবার আমদানি-রফতানিসহ খালাস প্রক্রিয়া বন্ধ থাকে। বিজিবি প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত তারা কোনো কাজ করতে অনীহা প্রকাশ করে।
বিজিবির দাবি ছিল, বন্দরে চোরাচালান ও অনিয়ম প্রতিরোধে তাদের কাজ করার অনুমতি ছিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের। কিন্তু কাস্টমস কর্তৃপক্ষ বিজিবির হঠাৎ এ তদারকি মানতে নারাজ। স্থানীয় ব্যবসায়ীরা কাস্টমসের সঙ্গে ছিল একমত। এতেই বাঁধে বিপত্তি।
এদিকে, গত দুইদিন আমদানি-রফতানি বাণিজ্য বন্ধ থাকায় অচলাবস্থার কবলে পড়ে বন্দর। পণ্য সরবরাহ বন্ধ থাকায় প্রভাব পড়ে দেশের শিল্প-কারখানার উৎপাদন কার্যক্রম। আটকে পড়া অনেক চালানে কাঁচামালও রয়েছে। এর মধ্যে পান, পেঁয়াজ, মাছ উল্লেখযোগ্য। এখনো ভারতের পেট্রাপোল বন্দর ও বনগাঁ কালিতলা পাকিংয়ে পণ্যবাহী কয়েক হাজার ট্রাক বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে আছে।
বেনাপোল কাস্টমস হাউজের ডেপুটি কমিশনার সাঈদ আহম্মেদ রুবেল বাংলার চোখকে বলেন, ‘বন্দরের দুটি ওয়েভিং স্কেল থেকে বিজিবি সদস্যদের প্রত্যাহার করে নেওয়ায় ব্যবসায়ীরা আবার বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু করেছেন। আমরাও কাজ করছি। যানজট ও পণ্যজট কমাতে দ্রুত কাজ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের।’
বেনাপোল বন্দরের পরিচালক আমিনুল ইসলাম বাংলার চোখকে জানান, দু’দিন আমদানি-রফতানি বাণিজ্য বন্ধ থাকায় বন্দরে পণ্যজটের অবস্থা স্বাভাবিক। আটকে থাকা পণ্য যাতে দ্রুত খালাস দেওয়া যায়, তার জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
যশোর ৪৯ বিজিবির কমান্ডিং অফিসার লে.কর্নেল আরিফুল হক বাংলার চোখকে বলেন, ‘ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে আমরা ওয়েভিং স্কেলে বিজিবি মোতায়েন করে কার্যক্রম চালাচ্ছিলাম। এ নিয়ে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ প্রতিবাদ জানায়। পরে কর্তৃপক্ষের নির্দেশে আমরা বিজিবি সদস্য প্রত্যাহার করে নিয়েছি।’

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মমতাজ বেগম
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2018. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close