১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, মঙ্গলবার ০৯:২৩:১৯ পিএম
সর্বশেষ:

২১ আগস্ট ২০১৮ ১২:৩৬:১৮ এএম মঙ্গলবার     Print this E-mail this

“যেখানে পেট চালানো দায় সেখানে আবার ঈদের নতুন জামা”

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি
বাংলার চোখ
 “যেখানে পেট চালানো দায় সেখানে আবার ঈদের নতুন জামা”

রাহুল মুন্সী বয়স হবে প্রায় ১২। ছোট বেলায় হারিয়েছে বাবকে। চার বছর আগে মা পঙ্গু হয়ে ঘরে। বড় ভাই রাস্তার পাশে চা বিক্রি করে কোন রকমে চালিয়ে নিচ্ছে সংসার। বড় ভাইকে সাহায্য করতে নিজে কাজ শুরু করে একটি দোকানে। সমান্য রোজগারে যেখানে নিজেদের পেট চালানো দায় সেখানে আবার ঈদের নতুন জামা। তাই জীবনের ঈদগুলোতে নতুন জামা কেনা হয়নি রাহুল মুন্সীর।

গোপালগঞ্জ শহরের মান্দারতলা এলাকায় দু:স্থ ও পথ শিশুদের নিয়ে গড়া বিদ্যালয় পথ শিশু নিকেতনে বসে কথা হয় রাহুলের সাথে। এরকম ভাগ্য বিরম্বনা সাথে রয়েছে আসিফ মোল্যা, সালমাসহ শতাধিক শিশু।

আসিফ জানায়, ঈদ আসলে সকলকে নতুন জামা পড়ে ঘুরতে দেখি। সেখানে তিন বেলা ঠিক মত খাইতে পারি না সেখানে আবা নতুন জামা। মা ঘরে পঙ্গু। বড় ভাই রাস্তার পাশে চা বিক্রি করে। আমি বজারের একটি দোকানে কাজ করি। দুই ভাই যা পাই তাই দিয়ে কোন রকমে চালে যায়। টাকার অভাবে কখনোই নতুন জামা পরে ঘোরা হয়নি। মনে মধ্যে একটা কষ্ট থাকলে তা কখনো কাউকে বলিনি। এমনকি টাকার অভাবে পড়তেও পারিনি। এই পথ শিশু নিকেতনে এখন পড়াশুনা করি। নিজের নাম লেখাসহ হিসাব করতে পারি।

তবে এবার পথ শিশু নিকেতনের মাধ্যমে ঈদের নতুর জামা পেয়েছি। মনে হচ্ছে ঈদের সবচেয়ে বড় উপহার পেয়েছি। মনে মধ্যে যে কষ্ট ছিল তা এখন আর নেই। এবারের ঈদে নতুন জামা পারে ঘুরতে পারব।