২৪ মে ২০১৯, শুক্রবার ০৭:৪৯:০৬ এএম
সর্বশেষ:

১৪ মে ২০১৯ ০১:০২:২১ এএম মঙ্গলবার     Print this E-mail this

সৈয়দপুরে বিভিন্ন অভিযোগে ৯ ব্যবসায়ীর ১৬ হাজার টাকা অর্থদন্ড:খাদ্যপণ্য ধ্বংস

সৈয়দপুর ( নীলফামারী) প্রতিনিধি
বাংলার চোখ
 সৈয়দপুরে  বিভিন্ন অভিযোগে ৯ ব্যবসায়ীর ১৬ হাজার টাকা অর্থদন্ড:খাদ্যপণ্য ধ্বংস

নীলফামারীর সৈয়দপুরে মূল্য তালিকা না টাঙ্গানো, অস্বাস্থ্যকর ও ক্ষতিকর রং মিশিয়ে লাচ্ছা সেমাই তৈরি, অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে খাবার তৈরি, পরিবেশন ও আয়োডিনবিহীন লবন বিক্রি ও ওজন পরিমাপক যন্ত্র না থাকার দায়ে ৯ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান মালিকের পৃথক পৃথক অর্থদন্ড করা হয়েছে। এ সময় একটি লাচ্ছা তৈরি প্রতিষ্ঠান সাময়িক বন্ধ ঘোষণা ও কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের খাদ্য এবং লবন ধ্বংস করা হয়েছে।  গতকাল (সোমবার)  সৈয়দপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় রংপুর বিভাগীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ওই ভেজাল বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে। এতে নেতৃত্ব দেন রংপুর বিভাগীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক (ডিডি) খন্দকার মো. নুরুল আমিন।
অভিযান চলাকালে সৈয়দপুর শহরের মাংস বাজারে মূল্য তালিকা না থাকায় এবং অপরিচ্ছন্ন  মাংস বিক্রি করার দায়ে  সুরুজ মাংস দোকানের  মালিক  মো. সুরুজের তিন হাজার টাকা, তৃপ্তি মাংস বিতানের শওকত আলীর এক হাজার, ডিজিটাল ওজন পরিমাপক যন্ত্র না থাকায় মাছ ব্যবসায়ী মানিকের  পাঁচশত টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়াও শহরের পাঁচমাথা মোড়ের আমির হাদিস মুদি দোকানে ক্ষতিকর রং মেশানো এবং মেয়াদোত্তীর্ণ রঙিন চিপস্ বিক্রির অভিযোগে প্রতিষ্ঠান মালিক মুরাদের  দুই  হাজার টাকা, চিকলী বাজারে রবিউল হোটেলে  নোংরা পরিবেশে ইফতার  তৈরি, বাসি মিস্টি ও খাদ্য বিক্রির দায়ে রবিউলের দেড় হাজার, একই অভিযোগে কামারপুকুর বাজারে শহিদুল  হোটেলের শহিদুল ইসলামের  চার হাজার টাকা ও ফজলুল হকের দুই হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এ সময় ওইসব হোটেলের খাবার ধ্বংস ও নোংরা থালা-বাসন নষ্ট করা হয়।
এদিকে শহরের নিয়ামতপুর জুম্মাপাড়া এলাকায় একটি বাড়িতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে ক্ষতিকর রং মিশিয়ে লাচ্ছা তৈরি করার দায়ে শাহিন লাচ্ছা  সেমাই কারখানার মালিক শাহিনের দুই হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এ সময় অভিযান পরিচালনাকারী দল কারখানটি সাময়িক বন্ধের নির্দেশ  দেন। একই দিন, শহরের বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করা আয়োডিনবিহীন লবন জব্দ ও ধ্বংস করা হয়।
অভিযান চলাকালে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর রংপুর বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারি পরিচালক মোছা. মমতাজ বেগম ও মোছা. আফসানা পারভীন, সৈয়দপুর উপজেলা স্যানেটারি ইন্সপেক্টর ও নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক যথাক্রমে মো. অহিদুল হক, পৌরসভা স্যানিটারি ইন্সপেক্ট মো. আলতাফ হোসেন সরকার, নীলফামারী জেলা ব্রেড বিস্কুট প্রস্তুতকারক ও বেকারী মালিক সমিতির সভাপতি মো. আকতার সিদ্দিকী পাপ্পু, সৈয়দপুর মাংস ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মো. নাদিম কোরাইশী ছুটুসহ  সৈয়দপুর থানার পুলিশ সদস্যরা সহযোগিতা দেন।
এ ব্যাপারে রংপুর বিভাগীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মো. খন্দকার আমিন জানান, নিরাপদ খাদ্য তৈরি এবং বাজারজাত নিশ্চিত করতে প্রতিদিনই অভিযান পরিচালনা করা হবে। এ ক্ষেত্রে  কোন অসাধু ব্যবসায়ীকে ছাড় দেয়া হবে না।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মমতাজ বেগম
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2019. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close