১৯ আগস্ট ২০১৯, সোমবার ০৮:৪৮:৫৪ পিএম
সর্বশেষ:

১৫ মে ২০১৯ ০৯:২১:৩১ পিএম বুধবার     Print this E-mail this

বাংলা জ্যৈষ্ঠ মাসের শুরু আজ আম পাড়া

সোহরাব হোসেন সৌরভi রাজশাহী থেকে
বাংলার চোখ
 বাংলা জ্যৈষ্ঠ মাসের শুরু আজ আম পাড়া

বাংলা জ্যৈষ্ঠ মাসের শুরু আজ। রসালো ফলের সমারোহের বার্তা দেয়া এই মধুমাসের শুরুতেই আজ বুধবার রাজশাহীর গাছ থেকে নেমেছে আম। প্রশাসনের বেধে দেয়া সময় অনুযায়ী আজ থেকে পর্যায়ক্রমে সাত ধাপে বিভিন্ন জাতের আম গাছ থেকে নামানো যাবে।

এদিকে জ্যৈষ্ঠর আগমন মানেই বাজারে রসালো ফল। এখন দেশীয় বিভিন্ন রসালো ফলের মাতোয়ারা সৌরভ। আম ও লিচু ছাড়াও এখন বাজারে পাওয়া যাবে কাঁঠাল, জাম, জামরুলসহ নানা প্রকারের দেশীও ফল।

এসব ফলের মধ্যে তরমুজ বেশ কিছু দিন আগেই বাজারে এসেছে। এবার জ্যৈষ্ঠের আগেই পরিপক্ব হয়ে আজ গাছ থেকে ঝুড়িতে নামছে রাজশাহীর আম। অবশ্য এগুলো হবে গুটি জাতের আম। উন্নতজাতের গোপালভোগের জন্য অপেক্ষা করতে হবে আরও পাঁচদিন।

দেশবাসীকে বিষমুক্ত আম দিতে গেলো তিন বছর ধরে গাছ থেকে আম ভাঙার জন্য সময় বেঁধে দিচ্ছে জেলা প্রশাসন। এবারও সময় বেঁধে দেয়া হয়। সে অনুযায়ী আজ থেকে শুরু হয়েছে গুটি আম নামানোর কর্মযজ্ঞ। পর্যায়ক্রমে সাত ধাপে বিভিন্ন জাতের সুস্বাদু পরিপক্ব আম গাছ থেকে পাড়া হবে।

উন্নতজাতের আমগুলোর মধ্যে গোপালভোগ ২০ মে, রাণীপছন্দ ২৫ মে, খিরসাপাত বা হিমসাগর ২৮ মে এবং লক্ষণভোগ বা লখনা নামানো যাবে ২৬ মে থেকে। এছাড়া ল্যাংড়া আম ৬ জুন, আমরুপালি ও ফজলি ১৬ জুন থেকে নামানো যাবে। আর সবার শেষে ১৭ জুলাই থেকে নামানো যাবে আশ্বিনা জাতের আম।

রাজশাহী ফল গবেষণা কেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. আলিম উদ্দিন বলেন, গুটি আম প্রতিবছরই একটু আগে পাকে। এবারও তার ব্যাতিক্রম হয়নি। তাই রাজশাহীর বানেশ্বর বাজার গুটি আমের দেখা মিলেছে। এছাড়া জেলা প্রশাসনের বেঁধে দেওয়ার সময় অনুযায়ী সাত দফায় আম নামাতে পারবেন। এতে ক্ষতির আশঙ্কা নেই।

প্রথম দিকে গাছে যখন মুকুল আসা শুরু হয় তখন তীব্র শীত ছিল। আবার শেষের দিকে গরমও পড়তে শুরু করেছিল। তাই কয়েক বছরের তুলনায় এবার গাছে সবচেয়ে বেশি মুকুল এসেছিল। কিন্তু দফায় দফায় কালবৈশাখী আর শিলাবৃষ্টিতে এবার রাজশাহীতে আমের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। তাই এবার লক্ষ্যমাত্রা অর্জন নিয়ে সংশয়ে আছেন আম চাষিরা। তবে কৃষিবিভাগ বলছে, গাছে গাছে এখনও প্রচুর আম ঝুলে আছে। এই দিয়েই দেশের চাহিদা পূরণ করা সম্ভব। এখন তাপদাহ কাটলেই হয়।

রাজশাহী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. শামসুল হক বলেন, চলতি মৌসুমে রাজশাহীতে প্রায় ২ লাখ ১৮ হাজার মেট্রিক টন আমের উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে। তাপদাহ কেটে গেলে আর নতুন কোনো প্রকৃতিক দুর্যোগ না এলে এই লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে কোনো সমস্যা হবে না।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মমতাজ বেগম
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2019. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close