২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার ১২:১৩:৫৩ এএম
সর্বশেষ:

১১ জুন ২০১৯ ০৬:০৫:০৩ পিএম মঙ্গলবার     Print this E-mail this

নড়াইলে চলন্তিকা যুব সোসাইটি’র ৪ কর্মকর্তা সিআইডির হাতে গ্রেফতার

নড়াইল প্রতিনিধি
বাংলার চোখ
 নড়াইলে চলন্তিকা যুব সোসাইটি’র ৪ কর্মকর্তা সিআইডির হাতে গ্রেফতার

 গ্রাহকের প্রায় ৫০কোটি টাকা নিয়ে উধাও এনজিও “চলন্তিকা যুব সোসাইটি”র ৪ কর্মকর্তাকে সোমবার খুলনার বিভিন্ন এলাকা থেকে আটকের পর মঙ্গলবার(১১ জুন) নড়াইল আদালতে প্রেরন করে। নড়াইল চীফ জুডিশিয়াল আদালতের কালিয়া আমলী আদালতের বিচারক নয়ন বড়াল তাদের জেল হাজতে প্রেরনের আদেশ দেন। সিআইডি তরফ থেকে আসামীদের ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে। আসামীরা হলেন চলন্তিকা যুব সোসাইটির কালিয়া শাখার জি এম মিলন দাশ,বড়দিয়া শাখার এজি এম সজল দাশ, বড়দিয়া শাখার ডি এম প্রনব দাশ ও প্রাক্তন গনসংযোগ কর্মকর্তা ও দৈনিক খুলনাঞ্চল পত্রিকার সম্পাদক মিজানুর রহমান।

গত সোমবার রাতে সিআইডির উপপুলিশ পরিদর্শক অলক চন্দ্র হালদার বাদী হয়ে চলন্তিকার চেয়ারম্যান,পরিচালক সহ ১৬ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ /২০১২(সংশোধনী) এর ৪(২) ধারায় নড়াইলের কালিয়া থানায় মামলা করেন। গ্রাহকের জমা করা ৩১ কোটি ৫৯ লাখ ৫৭ হাজার ৭৪০ টাকা আমানত আত্মসাতের অভিযোগে এ মামলা হয়।

মামলার এজাহারে বলা হয়, ২০০৪ সাল থেকে ২০১৮ পর্যন্ত চলন্তিকা যুব সোসাইটির অপরাধলব্ধ অর্থ আসামীরা বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগ মাধ্যমে অর্থ লেয়ারিং সহ অর্থ স্থানান্তর,রুপান্তর করে আসছে যা সি আই ডির তদন্তে বেরিয়ে এসেছে। মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন/২০১২(সংশোধনী২০১৫) এর ২(গ) ধারা মতে প্রতারনা একটি সম্পৃক্ত অপরাধ হিসেবে বিবেচিত। প্রতারনাপূর্বক আতœসাৎকৃত টাকা অবৈধভাবে লেয়ারিং এর মাধ্যমে আসামীদের জমি ক্রয়,গাড়ি ক্রয় সহ বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগ করেছে।
পুলিশ জানায়, ২০০৪ সালে খুলনা ও পার্শ্ববর্তী জেলাগুলোতে ৯টি শাখা কার্যালয় খোলে এই এনজিও। এনজিওটি এসব শাখা থেকে দ্বিগুণ ও তিনগুণ মুনাফার লোভ দিখিয়ে ডিপিএস ও এফডিআর এর নামে কয়েকহাজার গ্রাহকের নিকট থেকে আমানত গ্রহণ করে,পরে নানা অজুহাতে লভ্যাংশ প্রদানে গড়িমসি করে। এরপর হঠাৎ ২০১৮ সালের মার্চ মাসে কালিয়া কার্যালয় বন্ধ করে দেয়। ভুক্তভোগী কয়েকজন গ্রাহক কালিয়া থানায় মামলাও করেন। এরপর অন্যান্য শাখাও বন্ধ করে কর্মকর্তারা পালিয়ে যায়। কালিয়া থানায় গ্রহকের মামলার ভিত্তিতে সিআইডি তদন্ত শুরু করে।

স্থানীয়ভাবে জানা যায়, চলন্তিকা যুব সোসাইটি নামের খুলনা ভিত্তিক একটি এনজিও ২০০৮ সালে কালিয়া ও বড়দিয়ায় অফিস ভাড়া নিয়ে কাজ শুরু করে। লাখে ১৪ হাজার টাকা কমিশন এবং ৬ বছরে মেয়াদী আমানত দ্বিগুন ও দশ বছরে তিনগুন মুনাফা দেয়ার ঘোষনা দেওয়ার কথা বলে কালিয়া ও বড়দিয়া এলাকার গ্রাহকদের কাছ প্রায় ৫০কোটি টাকা আমানত সংগ্রহ করে। ২০১৮ সালের ৩ এপ্রিল বিপুল পরিমান টাকা হাতিয়ে নিয়ে চলন্তিকার ম্যানেজারের পলায়নের খবর ছড়িয়ে পড়লে কয়েক’শ আমানতকারি ওই এনজিরও কালিয়া অফিস ঘেরাও করে।

সিআইডির উপপুলিশ পরিদর্শক অলক চন্দ্র হালদার বলেন, কুচক্রী মহল পূর্ব পরিকল্পিতভাবে প্রতারণার উদ্দেশ্যে এই এনজিও খুলে এসব টাকা আত্মসাৎ করেছে। আসামিদের নড়াইল আদালতের মাধ্যমে গতকাল মঙ্গলবার কারাগারে পাঠানো হয়েছে। সিআইডি মামলাটি তদন্ত করছে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মমতাজ বেগম
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2019. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close