২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার ০১:০৪:১০ এএম
সর্বশেষ:

১১ জুন ২০১৯ ০৭:১৮:৪৮ পিএম মঙ্গলবার     Print this E-mail this

দশদিন যেতে না যেতেই

শফিকুল ইসলাম সবুজ ভালুকা, ময়মনসিংহ প্রতিনিধি
বাংলার চোখ
 দশদিন যেতে না যেতেই

 ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার বিরুনীয়া ইউনিয়নে এক কিলোমিটার রাস্তা পাকাকরণ কাজে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিম্মমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে রাস্তাটি পাকা করার কারণে কাজ শেষ হতে না হতেই বিভিন্ন স্থানে সাইড ভেঙে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। এ ঘটনায় স্থানীয় লোকজন উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
সরজমিন ঘুরে এলাকাবাসির সাথে কথা বলে ও লিখিত অভিযোগ জানা যায়, ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে এলজিআরডি মন্ত্রণালয় কর্তৃক ৬৭ লাখ টাকা ব্যয়ে ভালুকা-গফরগাঁও সড়কের নুন্দীবাড়ি থেকে জোনাকীর টেক রাস্তার শেষ অংশ গোয়ারী ওয়াহদ কেরানীর বাড়ি হতে এক কিলোমিটর রাস্তারপাকাকরণের কাজ করা হয়। দীর্ঘদিন কাজটি না হলে গত তিন মাস পূর্বে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান তৃপ্তি ষ্টিল বিতান কাজটি শুরু করেন এবং গত ঈদের তিন আগে শেষ করা হয়। অভিযোগে প্রকাশ রাস্তার কাজ শেষ করার পর পরই বিভিন্ন স্থানে ভাঙ্গন দেখা দেয়। এতে স্থানীয় লোকজনের মাঝে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এ রাস্তা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (ফেইস বুকে) ভিডিও ভাইরাল হয়। পরে রাস্তায় নিন্মমানের কাজ হওয়ায় স্থানীয়রা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বরাবর একটি অভিযোগ দিয়েছেন।
অভিযোগকারী গোয়ারী গ্রামের মৃত কুদ্দুস মেম্বারের ছেলে মো: হায়দর আলী জানান, রাস্তাটি নির্মাণে ব্যাপক কারচুপি করা হয়েছে। নিন্মমানের ইট সুরকী ব্যবহারসহ গর্ত কম করে সুরকী ও বালির পরিমান ছিলো খুবই কম। তাছাড়া রাস্তার উপরে পিচঢালাইয়ে বিটুমিন ও মালামাল কম দেয়ায় কাজ শেষ হতে না হতেই বিভিন্ন স্থানে রাস্তার সাইডে ফাটল দেখা দিয়েছে। এমনকি কার্পেটিংও উঠে যাচ্ছে। তিনি অভিযোগ করেন, ঠিকাদার নিজে রাস্তার সাইডে না গিয়ে তার ভাই অবসরপাপ্ত সেনা সদস্য তারা মিয়া ওরফে তারা ম্যালেটারীকে দিয়ে কাজ করিয়েছেন। নিন্মমানের কাজের ব্যাপারে প্রতিবাদ করলে তারা মিয়া তাদেরকে বিভিন্ন ধরণের হুমকী প্রদর্শণ করেন।
ঠিকাদার আরিফ বব্বানী সবুজ জানান, রাস্তাটি নির্মাণে কোন নিন্মমাণের সামগ্রী ব্যবহার করা হয়নি। তাছাড় এই রাস্তা দিয়েই তার গ্রামের বাড়ি যেতে হয়। তাই যতদুর সম্ভব ভালো কাজ করার চেষ্টা করেছেন। এতে নির্মাণ ব্যয় বেড়ে গিয়ে বেশ টাকা গচ্চা দিতে হচ্ছে।
ভালুকা উপজেলা এলজিআরডি অফিসার ফরিদুল ইসলাম জানান, রাস্তা নির্মাণে অনিয়ম হয়েছে, তা আমার মনে হয়নি।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুদ কামাল জানান, রাস্তা নির্মাণে অনিয়মের ব্যাপারে একটি অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মমতাজ বেগম
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2019. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close