২৪ অক্টোবর ২০১৯, বৃহস্পতিবার ০৮:০৯:৪৪ এএম
সর্বশেষ:

২৯ জুলাই ২০১৯ ০২:৫০:৪৬ এএম সোমবার     Print this E-mail this

আমাকে যদি কেউ জোর করে আল্লাহু আকবার বলতে বাধ্য করলে কেমন লাগতো: অপর্ণা সেন

বিনোদন ডেক্স
বাংলার চোখ
 আমাকে যদি কেউ জোর করে আল্লাহু আকবার বলতে বাধ্য করলে কেমন লাগতো: অপর্ণা সেন

‘দেশজুড়ে কোথাও গোমাংস খাওয়ার অভিযোগ তোলা হচ্ছে, আবার কোথাও জয় শ্রী রাম না বললে পেটানো হচ্ছে। এমনকি হত্যা পর্যন্ত করা হচ্ছে। এগুলো কী ধরনের ঘটনা? কেন একজন ভিন্ন ধর্মের মানুষকে জোর করে জয় শ্রী রাম বলানো হবে? আমি একজন হিন্দু, আমাকে যদি কেউ জোর করে আল্লাহু আকবার বলতে বাধ্য করে, তাহলে আমার কেমন লাগত?’

কথাগুলো বলেছেন পরিচালক ও অভিনেত্রী অপর্ণা সেন। গোটা ভারতজুড়ে সংখ্যালঘু, দলিতদের নির্যাতন ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি লিখেছেন অভিনেত্রী অপর্ণা সেন, মনি রত্নম, অঞ্জন দত্তসহ ৪৯ জন বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব। চিঠি দেয়ার পর সম্প্রতি সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

অভিনেত্রীর ভাষ্য, ‘জয় শ্রী রাম, আল্লাহু আকবর, জয় বাংলা, জয় মা কালী কিংবা জয় মহাদেব-সবকিছুই বলার অধিকার আছে মানুষের। তবে ভালোবেসে বলানো উচিৎ, জোর করে নয়।’

চিঠি প্রসঙ্গে এই অভিনেত্রী বলেন, ‘দেশে দলিত ও সংখ্যালঘুরা অত্যাচারিত হচ্ছে। এ ঘটনার যথাযথ তথ্য ও পরিসংখ্যান তুলে ধরা হয়েছে ওই চিঠিতে। বিশ্বস্ত সূত্রে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।’

ওই ৪৯ জন চিঠিতে বিভিন্ন সামাজিক অসঙ্গতি তুলে ধরেছেন। এসব সমস্যা সমাধানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সরকারকে বলা হয়েছে। ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ড ব্যুরোর তথ্যের বরাত দিয়ে চিঠিতে বলা হয়, ২০০৯ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ২০১৮ সালের ২৯ অক্টোবরের মধ্যে ধর্মীয় কারণে ২৫৪ জনকে অপরাধী, ৯১ জনকে হত্যা, ৫৭৯ জন আহত করা হয়েছে। ২০১৪ সালে প্রধানমন্ত্রী পদে যখন নরেন্দ্র মোদি ছিলেন তখন এমনই অপরাধের মাত্রা ছিল ৯০ শতাংশ।

এই চিঠিতে যেমন তারকাদের নাম রয়েছে, তেমনই রয়েছে সমাজকর্মী, কার্ডিওলজিস্ট, লেখক, ঐতিহাসিক, সাধারণ নাগরিকরা। চিত্র পরিচালক কেতন মেহতা, অঞ্জন দত্ত, অনুপম রায়, আদুর গোপালকৃষ্ণণ, রূপম ইসলাম, ঋদ্বি সেন, ঐতিহাসিক রামচন্দ্র গুহ, সংগীতশিল্পী শুভা মুদগলের নাম রয়েছে এই চিঠিতে।

এদিকে বিভিন্ন পেশার ৪৯ বিশিষ্ট ব্যক্তি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছে পাঠানো ঐ চিঠিতে স্বাক্ষর করেছিলেন। চিঠিতে স্বাক্ষর দেয়া ও প্রতিবাদ করার অপরাধে এবার উল্টো তাদের নামে বিহারের মুজাফফরপুর আদালতে মামলা করা হয়েছে।

ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত, রাষ্ট্রদ্রোহিতাসহ কয়েকটি ধারায় এই ৪৯ জন বিশিষ্ট ব্যক্তি ও বুদ্ধিজীবীদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করার আর্জি রয়েছে পিটিশনে। এ পিটিশনে সাক্ষী করা হয়েছে কঙ্গনা রানাওয়াত, মধুর ভাণ্ডারকর, বিজয় অগ্নিহোত্রীদের।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মমতাজ বেগম
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2019. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close