২৪ আগস্ট ২০১৯, শনিবার ১০:৩৫:১৫ এএম
সর্বশেষ:

০২ আগস্ট ২০১৯ ০১:২৫:৪৯ এএম শুক্রবার     Print this E-mail this

দেড় যুগ পর মালা পেল স্ত্রীর আর মিলন পেল সন্তানের স্বীকৃতি

ডেক্স রিপোর্ট
বাংলার চোখ
 দেড় যুগ পর মালা পেল স্ত্রীর আর মিলন পেল সন্তানের স্বীকৃতি

অবশেষে দেড় যুগ পর হতভাগা মালা পেল স্ত্রীর আর মিলন পেল সন্তানের স্বীকৃতি। আর যাবজ্জীন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত যে ব্যক্তিকে কেন্দ্র করে এমন স্বীকৃতির দৃষ্টান্ত সেই ইসলামকে জামিনে মুক্তির নির্দেশ দিয়েছেন দেশের সর্বোচ্চ আদালত।

 ঘটনার বিবরণ থেকে জানা যায়: ঝিনাইদহের লক্ষীপুর গ্রামের মেয়ে মালার সাথে একই গ্রামের ইসলামের প্রেমের সম্পর্ক হয়। লোকচক্ষুর অন্তরালে স্বামী-স্ত্রী হিসাবে বসবাস করতে থাকেন। এরপর স্থানীয় মৌলভীর মাধ্যমে ২০০০ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারী বিয়ে করেন। পরবর্তীতে মালা গর্ভবতী হন। ২০০১ সালের ২১ জানুয়ারী মালার গর্ভে জন্ম নেয় একটি পুত্র সন্তান। যার নাম রাখা হয় মিলন। তখন মালার পরিবার ও স্থানীয়রা বিয়ের জন্য বললে ইসলাম মালার সাথে তার বিয়ে ও মিলনের পিতৃত্ব অস্বীকার করেন।

এরপর মালার পিতা ইসলামের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা করেন। পরবর্তীতে এ মামলায় বিচারিক আদালত ইসলামকে যাবজ্জীন কারাদণ্ড দেন। সাজার এই রায়ের বিরুদ্ধে ইসলাম আপিল করলে হাইকোর্টে সাজার রায় বহাল রাখেন। এরপর হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে ইসলাম আবেদন করলে আপিল বিভাগও সাজার রায় বহাল রাখেন। পরবর্তীতে আপিল বিভাগে রিভিউ আবেদন করেন যাবজ্জীন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত ইসলাম।

এই রিভিউ শুনানিতে যাবজ্জীন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত ইসলামের পক্ষের আইনজীবী ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন সাত বিচারপতির আপিল বেঞ্চে মালা ও মিলনের স্বীকৃতির বিষয়টি সামনে নিয়ে আসেন।

এরপর ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল আপিল বিভাগকে বলেন, মালা ইসলামেরই স্ত্রী। আর মিলন যে ইসলামের সন্তান সেটা হাইকোর্টের আদেশর পর ডিএনএ রিপোর্টে প্রমাণিত। এরই মধ্যে কারাগারে ইসলাম ও মালার বিয়ের রেজিষ্ট্রেশন হয়েছে। তাই মালা ও মিলনকে ইসলামের স্ত্রী ও সন্তানের স্বীকৃতি দিয়ে ইসলামকে কারামুক্তি দেওয়া হোক।

এর পরিপ্রেক্ষিতে আজ প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন সাত বিচারপতির আপিল বেঞ্চ যাবজ্জীন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত ইসলামকে জামিনে মুক্তির নির্দেশ দেন।

আজকের আদেশের বিষয়ে ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল বলেন, মালা ও মিলনকে স্বীকৃতির পরই আপিল বিভাগ ইসলামকে জামিন দিয়েছেন। দ্রুতই ইসলাম কারামুক্তি পাবেন বলে আশা করি। আর দেড় যুগ পর একজন স্ত্রীকে স্বামীর ও সন্তানকে তার বাবার স্বীকৃতি নিশ্চিত করিয়ে দিতে পেরে নিজের ভাল লাগছে। এটি একটি নজিরবিহীন দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মমতাজ বেগম
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2019. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close