১২ ডিসেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার ০৮:৪৭:০৯ এএম
সর্বশেষ:

১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০২:১৯:৫০ এএম মঙ্গলবার     Print this E-mail this

নির্যাতিতা নারীর বাড়ি উদ্ধারে এগিয়ে এলেন পৌর মেয়র

আলমগীর মানিক,রাঙামাটি থেকে
বাংলার চোখ
 নির্যাতিতা নারীর বাড়ি উদ্ধারে এগিয়ে এলেন পৌর মেয়র

রাঙামাটি শহরে দিনে-দুপুরে দোতলা বাড়ি দখল করে নেওয়ার ঘটনা পরবর্তী বিষয়টি নিয়ে অভিযোগ পাওয়ার পরে উক্ত ঘটনাস্থল শহরের উন্নয়ন বোর্ড সংলগ্ন এলাকায় সরেজমিনে পরিদর্শন করে দখলকারি জনৈক শাহজাহানকে আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে বাড়িটি ত্যাগ করতে বলেছেন রাঙামাটি পৌরসভার মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী। সোমবার বিষয়টি নিয়ে উক্ত দোতলা বাড়িটির আসল মালিক ভূক্তভোগী নারী আনজুমান আরা কর্তৃক লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পরপরই পৌরসভার সকল ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও মহিলা কাউন্সিলরগণকে সাথে নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান মেয়র আকবার হোসেন। এসময় পুরো পৌর পরিষদ উক্ত এলাকার স্থানীয় বাসিন্দাদের সাথে কথা বলেন এবং দখলকারি শাহজাহান ও আনজুমান আরার সকল কাগজপত্র যাচাই-বাচাই করে দেখেন। এসময় দখলকারি শাহজাহান তার স্বপক্ষে সঠিক কাগজপত্র দেখাতে নাপারায় এবং তার প্রদত্ত তথ্যে গড়মিল পাওয়ায় তাকে আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে দোতলা বাড়িটি দখল ছেড়ে চলে যাওয়ার কথা জানান। এসময় মেয়র বলেন, প্রথমত বাড়িটি নিয়ে আদালতে মামলা চলমান থাকায় আপনি জোর করে দখল নিতে পারেন না। এটা মাননীয় আদালতের প্রতি অশ্রদ্ধার সামিল। জনগণ ভোটাধিকার প্রয়োগ করে আমাকে পৌর মেয়র বানিয়েছে তাদের জন্য ন্যায় বিচার নিশ্চিত করাসহ সুখে দুঃখে তাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য। আমরা রাজনীতি করি নীপিড়িত মানুষের অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে। সুতরাং দিনে দুপুরে আইনের তোয়াক্কা না করে রাঙামাটি শহরে একটি বাড়ি দখল করে নিবে” আর আমরা চেয়ে চেয়ে দেখে থাকবো”। এটা সন্ত্রাসীদের জন্য একটি অন্যন্য উদাহরণ হবে, তারা অন্যায়ের সুযোগ পাবে এবং এভাবেই বাড়ি দখলে উৎসাহিত হবে এটা কখনো হতে পারেনা। একটি সুন্দর ও নিরাপদ সমাজ গঠনে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে দখলবাজদের মতো লোকদের বিরুদ্ধে রাঙামাটি পৌরসভা নীপিড়িত মানুষদের পাশে থাকবে বলেও মন্তব্য করেন পৌর পিতা আকবর হোসেন চৌধুরী। এসময় প্যানেল মেয়র মোঃ জামাল উদ্দিন, পৌর কাউন্সিলর কালায়ন চাকমা, হেলাল উদ্দিন, আব্দুল করিম, মিজানুর রহমান বাবু, রূপসী দাশ গুপ্তাসহ পুরো পৌর পরিষদ ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী জানিয়েছেন, একটি লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা পৌরসভার পক্ষ থেকে সেখানে পৌর আদালত পরিচালনা করেছি। এসময় আমি ঘটনার বিস্তারিত জেনে কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জের সাথে মুঠোফোনে আলাপ করে উক্ত ঘটনায় ন্যায় বিচার নিশ্চিত করতে তার সহযোগিতাও কামনা করেছি।  
গত বুধবার (৪ই সেপ্টেম্বর) রাঙামাটি শহরে দিনে-দুপুরে সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে বৈধ মালিককে মারধর করে বের করে দিয়ে দোতলা বিল্ডিং বাড়ি দখল করে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার (৬ই সেপ্টেম্বর) দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করে ভূক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা সাংবাদিকদের জানায়, লংগদু থেকে আসা জনৈক শাহজাহান নামের এক ব্যক্তি ও তার মেয়েরা গত বুধবার দিনে-দুপুরে হামলা চালিয়ে শহরের উন্নয়ন বোর্ড সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দা আঞ্জুমান আরা বেগমের দোতলা বসতঘরটি দখলে নিয়ে নেয়।
এসময় বাধা দিতে গেলে বাড়িটির বৈধ মালিক ও তার স্কুল পড়–য়া কন্যাকে জোর করে বেধে স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেওয়ার লক্ষ্যে বেদড়ক মারধর করে এবং তাদের সকল জিনিসপত্র বাড়ির বাইরে ছুড়ে ফেলে দরজায় তালা লাগিয়ে দেয়।
এরপর থেকে পরিবারটির সদস্যরা বাড়িতে প্রবেশ করতে দিচ্ছেনা বলে অভিযোগ করে সংবাদ সম্মেলনে পরিবারটি স্কুল পড়–য়া কন্যা জানায়, সামনে আমার এসএসসি পরীক্ষা, বাসায় ঢুকতে না পারায় আমার পড়ালেখা বন্ধ রয়েছে।
আমার মা আঞ্জুমান আরা বর্তমানে রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। সরকারদলীয় বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি থেকে শুরু করে থানায় লিখিত অভিযোগ করেও কোনো সুরাহা হয়নি বলেও অভিযোগ করে পরিবারটি। সংবাদ সম্মেলনে আঞ্জুমান আরার’ ছোট ছেলে ১০ বছর বয়সী আরিফ, বড় মেয়ে, প্রতিবেশি ও নিকটাত্মীয়রা উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে অন্তত ১০জন গণমাধ্যমকর্মী সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গেলে শাহাজাহান ও তার পরিবারের সদস্য কর্তৃক হামলা চালিয়ে আঞ্জুমান আরার বসতভিটা টি দখল করে নিয়েছে বলে স্বাক্ষ্য দিয়েছে স্থানীয় প্রতিবেশিরা।
স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর করিম আকবরও ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক। আমি বিষয়টি জানার পর ভূক্তভোগীদের থানায় যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছি।
এদিকে সংবাদ সম্মেলন পরবর্তী বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে রাঙামাটি কোতয়ালী থানায় যোগাযোগ করলে থানার অফিসার ইনচার্জ মীর জাহেদুল হক রনি উর্দ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া ক্যামেরার সামনে কথা রাজি নাহলেও তিরি জানান, আমরা ভূক্তভোগীদের কাছ থেকে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্তকারি কর্মকর্তার প্রাথমিক তদন্তে ফৌজদারি অপরাধের সত্যতা পেয়েছি। এই ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধি ৪৪৭/৪৪৮/৪২৭/৩২৩/৩২৪/৩৮০/৫০৬ ধারায় কোতয়ালী থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নাম্বার-৪, তারিখ: ০৬/০৯/২০১৯ইং। আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্ঠা চলছে বলেও জানিয়েছেন ওসি।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মমতাজ বেগম
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2019. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close