২৩ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার ১১:৫২:৫৪ এএম
সর্বশেষ:

১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০৬:১২:৩০ পিএম বুধবার     Print this E-mail this

বিএসএফের গুলিতে নিহত বাবলু মিয়ার ১৪ দিন পর দাফন

নীলফামারী প্রতিনিধি
বাংলার চোখ
 বিএসএফের গুলিতে নিহত বাবলু মিয়ার ১৪ দিন পর দাফন

১৪ দিন পর দাফন সম্পন্ন হলো লালমনিরহাটের পাটগ্রাম সীমান্তে ভারতীয় বিএসএফের গুলিতে নিহত বাবলু মিয়ার (২৫)।
বুধবার সকাল ১১টার দিকে ডিমলা উপজেলা পূর্ব ছাতনাই ইউনিয়নের ছাতনাই কলোনী কেন্দ্রিয় জামে মসজিদ জানাজা শেষে ওই মসজিদের কবরস্থানে তার দাফন সম্পন্ন হয়।
গত মঙ্গলবার রাত নয়টার দিকে পাটগ্রাম উপজেলার দহগ্রাম সীমান্তের তিন বিঘা করিডোর ফটকে বিজিবির উপস্থিতে ডিমলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মফিজ উদ্দিন শেখের কাছে নিহত বাবলু মিয়ার মৃতদেহ হস্তান্তর করে বিএসএফ।
ভারতের ৪৫ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের কাছ থেকে বাবলু মিয়ার মৃতদেহ গ্রহন কওে  সেখানের তারা বাবা নূর মোহাম্মদের কাছে বুঝে দেন ডিমলা থানার ওসি। সেখান থেকে রাতে পুলিশের সহযোগিতায় গ্রামের বাড়ি নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার পূর্বছাতনাই ইউনিয়নের ঝাড়সিংহেশ্বর গ্রামে মৃতদেহ নিয়ে আসেন তার বাবা।
ওই নিহত বাবলু মিয়ার মৃতদেহ হস্তান্তরের সময় ৫১ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল ইসাহাক ম-ল, ৫১বিজিবি ব্যাটায়িলন পাটগ্রামের পানবাড়ি ক্যাম্পের সুবেদার তাহাজুল ইসলাম, ডিমলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মফিজ উদ্দিন শেখ, পূর্বছাতনাই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ খান, দহগ্রাম পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের উপ-পরিদর্শক আবু হানিফ। ভারতীয় ৫৪ বিএসএফের উপ-অধিনায়ক এসওয়াই খেঙ্গারু, কোচবিহার জেলার কুচলিবাড়ি থনার সার্কেল কর্মকর্তা পুরান রায় ও থানা পুলিশের কর্মকর্তা সুবাস চন্দ্র রায় উপস্থিত ছিলেন।
ডিমলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মফিজ উদ্দিন শেখ বলেন,‘মঙ্গলবার রাত নয়টার দিকে লাশ গ্রহন করে তার বাবার কাছে বুঝে দিয়েছি। বুধবার সকালে তার দাফন সম্পন্ন হয়েছে।’
পূর্বছাতনাই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ খান বলেন, ‘নিহত বাবলু মিয়া আমার ইউনিয়নের ঝাড়সিংহেরশ্বর গ্রামের বাসিন্দা এবং পশ্চিম ছাতনাই ইউনিয়নের কালিগঞ্জ গ্রামের নূর মোহাম্মদ ছেলে। মঙ্গলবার রাত নয়টার দিকে লাশ হস্তান্তর করেন বিএসএফ। পরে ডিমলা থানা পুলিশের সহযোগিতায় রাত ১১টার দিকে লাশ গ্রামের বাড়িতে পৌঁছে।
বুধবার সকাল ১১টার দিকে পূর্বছাতনাই ইউনিয়নের ছাতনাই কলোনী জামে মসজিদের সামনে জানাজা শেষে ওই মসজিদের কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন হয়।’
তিনি আরও বলেন, ‘ওই ঘটনায় আহত ভারতে আটক থাকা একই গ্রামের গোলজার হোসেনের ছেলে সাইফুল ইসলামকে ৯০ দিনের মধ্যে ফেরৎ দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন ভারতে কুচলিবাড়ি থানার ওসি সুভাষ চন্দ্র রায়। সে এখন ভারতের কোচবিহারে শিশু অপরাধ শোধনাগারে ভালো আছেন বলে জানিয়েছেন।’ সাইফুল ইসলাম পূর্বছাতনাই উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র।
উল্লেখ্য, গত ৩ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার সকালে নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার সীমান্ত এলাকার কালিগঞ্জ গ্রামের বাবলু মিয়া (২৫) ও ঝাড়সিংহেশ্বর গ্রামের সাইফুল ইসলাম (১৪) গরুর ঘাস কাটতে বের হয় বাড়ি থেকে। এসময় তাদের বাড়ি পার্শ্ববর্তী লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার দহগ্রাম সীমান্তে ঘাস কাটার সময় তাদেরকে গুলি করে ভারতের উড়াল ক্যাম্প বিএসএফ সদস্যরা। গুলিতে বাবলু মিয়া নিহত এবং সাইফুল আহত হলে সাথে সাথে হতাতদের নিয়ে যায় বিএসএফ। সে থেকে নিহত বাবলুর মৃতদেহ ও আহত সাইফুলকে ফেরত চায় এলাকাবাসীসহ তাদের পরিবার। এমন দাবিতে তারা এলাকায় মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচি পালন করে। দাবির প্রেক্ষিতে ঘটনার ১৪ দিন পর বাবলু মৃতদেহ ফেরৎ এলেও সাইফুলকে ফেরৎ পায়নি তার পরিবার।
এদিকে আহত সাইফুলের বাবা গোলজার হোসেন অভিযোগ করে বলেন, ‘আমার নির্দোষ ছেলেকে আটকিয়ে রেখেছে বিএসএফ । তাদে দ্রুত ফেরতের দাবি জানাচ্ছি।’

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মমতাজ বেগম
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2019. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close