১৪ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার ০৮:১৩:৫০ পিএম
সর্বশেষ:
সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় দুপুর ২.১৫মিনিটে রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনের ইঞ্জিন লাইনচ্যুত হলে পিছনের বগি এসে ধাক্কা দেয় এতে ট্রেনে আগুন ধরে যায়           

১৫ অক্টোবর ২০১৯ ১০:২৯:২৯ পিএম মঙ্গলবার     Print this E-mail this

এবার কুর্মিটোলা হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে গিয়ে অসুস্থ সাংবাদিককে পিটিয়েছে আনসারা

ডেক্স রিপোর্ট
বাংলার চোখ
 এবার কুর্মিটোলা হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে গিয়ে অসুস্থ সাংবাদিককে পিটিয়েছে আনসারা

কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে গিয়ে অসুস্থ বাংলাদেশে টাইমস এর নিজস্ব প্রতিবেদক তানভীর রায়হানকে পিটিয়েছে সেখানকার প্রায় ১৫জন আনসার। মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১১টায় থেকে ১২টা পর্যন্ত এই নির্যাতন চলে।

ভুক্তভোগী সা্ংবাদিক জানান, অসুস্থ সাংবাদিক লাইন ধরে ৩৩৭ নাম্বার কক্ষে ডাক্তার সাহানাকে বাম চোয়ালের নিচের অংশে একটি গোটা হয়েছে বলে জানায়। সেই ব্যাথায় সাংবাদিকের জ্বর হচ্ছে। তিনি ৩০১ নাম্বার কক্ষে গিয়ে বড় ডাক্তারকে দেখাতে বলেন। আর সেখানে এক নার্স চার তলায় ওটিতে ডাক্তার আছেন। আর সেখানে যেতে বলেন। সেখানে গিয়েই সাংবাদিক আব্দুল্লাহ নামের আনসারকে দেখতে পেয়ে নাক, কান ও গলার ওটি ডাক্তার আছে কিনা জানতে চান। কিন্তু তার আচরণ দেখে সাংবাদিক সেখান থেকে চলে যান।

আর সাংবাদিক বলেন, `আপনার আচরণ ভালো লাগলো না।` তখন আনসার আব্দুল্লাহ তার কলার চেপে ধরেন। তখন সাংবাদিক তা ওটির ডাক্তারকে দেখান। ওটির ডাক্তার তখন দেখে হতবাক হয়ে দ্বিতীয় তলায় পরিচালকের রুমে যেতে বলেন। কিন্তু আব্দুল্লাহ ফোন দিয়ে আরো আনসারদেরকে ডেকে নিয়ে এসে সাংবাদিককে চার তলায় তুলে নিয়ে যান।

তখন সেই সাংবাদিক `সাংবাদিক` হিসাবে পরিচয় দিলে তারা বলে আমরা তো কত সাংবাদিককেই পিটালাম! এই কথা বলেই তারা সাংবাদিকের যেই চোয়ালে অসুখ হয়েছে সেখানে একটা থাবা মারে। আর এসব ঘটনা ঘটে আনসার মুনজু (বি+) এর মুখের সামনে। এতে সাংবাদিক তার অফিসকে জানাতে চাইলে তার ফোন কেড়ে নিয়ে আরো ৭/৮ জন আনসার তাকে কিল, ঘুষি ও গণপিটুনি দেয়।

সাংবাদিক দ্বিতীয় তলায় যেতে চাইলেও তাকে ধরে বার বার মারধর করা হয়। এরকম করে তাকে সাত তলায় নিয়ে গিয়ে কয়েক দফা মারধর করা হয়। তারা দ্বিপক নামের এক আনসারের কাছে নিয়ে যায়। সেও সাংবাদিককে পাগল বলে। আর সেখান থেকে সাংবাদিক নিচে সিড়ি দিয়ে নামতে চাইলেও তাকে লিফটে নিয়ে যেতেও মারধর করে। সেখান থেকে দ্বিতীয় তলায় গিয়ে ওয়ার্ড মাষ্টারের রুমে সব কিছু বলে। তারপরে পরিচালক জামিল আহমেদের কাছে গিয়ে অভিযোগ পত্র দেয়।

ভুক্তভোগী সাংবাদিক তানভীর রায়হান বলেন, আমি বুঝলামই না, তারা কেন আমাকে ধরে ধরে পিটালো। কিল, ঘুষি ও লাথি আর গণপিটুনি দিলো। এসব কারণে আমি সেখানে কোনো ডাক্তার দেখাইনি।

হাসপাতালের পরিচালক জামিল আহমেদ সাংবাদিককে আশ্বস্ত করে বলেন, আপনার অভিযোগ পত্র পেয়েছি। ওদের সাথে কথা বলবো। আর আপনাকে কেন তারা মারধর করেছে তা আমরা সিসিটিভিতে দেখবো। আপনি নিশ্চিন্তে থাকেন অপরাধীরা পাড় পেয়ে যাবে না। তাদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তি নিবো।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মমতাজ বেগম
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2019. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close