২২ নভেম্বর ২০১৯, শুক্রবার ০১:৪৭:৫১ পিএম
সর্বশেষ:

০৮ নভেম্বর ২০১৯ ০৪:৫৯:৪৮ পিএম শুক্রবার     Print this E-mail this

পাথরঘাটায় প্রস্তুত রাখা হয়েছে আশ্রয়কেন্দ্র

পাথরঘাটা প্রতিনিধি
বাংলার চোখ
 পাথরঘাটায় প্রস্তুত রাখা হয়েছে আশ্রয়কেন্দ্র

ঘুর্নিঝড় ‘বুলবুল’ শনিবার উপকূলে আঘাত হানতে পারে আবহাওয়া দপ্তরের এমন সংবাদে পাথরঘাটায় প্রস্তুত রাখা হয়েছে আশ্রয়কেন্দ্র। ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে উত্তাল হয়ে উঠেছে বঙ্গোপসাগর। উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারগুলোকে যত দ্রুত সম্ভব নিরাপদ স্থানে যেতে এবং পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত নিরাপদ অশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে। সাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ বাংলাদেশ-ভারত উপকূলে ক্রমশ ধেয়ে আসছে। আবহাওয়া দপ্তরের এমন সংবাদেও ভিত্তিতে উপজেলা প্রশাসন থেকেখোলা হয়েছে কন্ট্রোল রুম।     একারনে আবহাওয়া দপ্তর মোংলা,পায়রা,চট্টগ্রম ও কক্সবাজার সমুদ্র বন্দও সমুহকে চার নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে যেতে নির্দেশ দিয়েছেন।ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ এর প্রভাবে বৃস্পতিবার (৭ নবেম্বর) দিবাগত রাত ১২টা থেকেই  পাথরঘাটায় বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে আকাশ মেঘাচ্ছন্ন।

পাথরঘাটায় শুক্রবার (৮ নবেম্বর) ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ মোকাবিলায় বেলা ১১ টারদিকে জরুরি সভা করেছে উপজেলা প্রশাসনের সভা কক্ষে। শুক্রবার সকাল থেকেই আকাশ মেঘলা এবং বৃহস্পতিবার রাত ১২ টা থেকে বিরাহীন বৃষ্টপাত।  সিডরের মতো আবহাওয়া বিরাজ করায় উপকূলীবাসীর মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

পাথরঘাটা প্রশাসনের জরুরি সভায় জানানো হয়েছে, উপজেলায় সরকারি তালিকাভুক্ত ৭৪টি সাইক্লোন শেল্টার রয়েছে। কলেজ, মাধ্যমিক, ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবনগুলো খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সকল সাইক্লোন শেল্টারগুলো বাসযোগ্য করা হয়েছে দুর্যোগের সময় আশ্রয় নেয়া সাধারন মানুষের যাতে কোন প্রকার কষ্ট না হয়।

এছাড়া তাৎক্ষনিক প্রয়োজনে বিভিন্ন স্কুল ও কলেজ ভবন নিরাপদ আশ্রয়ের জন্য ব্যবহার করা হবে বলে।ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচি (সিপিপি), রেডক্রিসেন্টসহ বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের স্বেচ্ছাসেবকরা সদা প্রস্তুত রয়েছেন। পাশাপাশি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী, ফায়ার সার্ভিস ও রোভার স্কাউটের সদস্যরাও যেকোনো ধরনের দুর্যোগে সার্বিক সহযোগিতা করবে বলে জানান। পাথরঘাটা বনিক সমিতিকে সকল ধরনের পর্যাপ্ত শুকনা খাবার রাখার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

পাথরঘাটা উপজেলা ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তার কার্যালয়ের প্রকৌশলী মো. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, আমরা ঘূর্ণিঝড়ের সতর্কবার্তা দেখে সবাইকে নিরাপদ আশ্রয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি ইতিমধ্যে সম্পন্ন করেছি। বণিক সমিতিকে পর্যাপ্ত শুকনো খাবার মজুদ রাখার জন্য বলেছি।

পাথরঘাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. হুমায়ুন কবির বলেন, উপজেলা প্রশাসনের পক্ষথেকে কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। দুর্যোগ থেকে জানমাল রক্ষার্থে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি। সরকারি সংশ্লিষ্ট সকল কর্মকর্তাকে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের গতিবিধি লক্ষ্য রেখে সে অনুযায়ী যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। উপজেলাটি উপকূলবর্তী হওয়ায় ঝুঁকিতে থাকার কারনে আমরাও প্রস্তুত রয়েছি।

বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি চৌধুরী গোলাম মোস্তফা   বলেন, ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষে শতশত জেলেরা মাছধরা ট্রলার গভীর সমুদ্রে মাছ ধরতে যায়। আবহাওয়া খারাপ দেখে বেশ কিছু ট্রলার ঘাটে আসলেও এখনো দেড় শতাধিক ট্রলার গভীর সমুদ্রে রয়েছে। এখন পর্যন্ত জেলেদের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মমতাজ বেগম
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2019. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close