১৪ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার ১২:২৮:৪৯ পিএম
সর্বশেষ:

০৮ নভেম্বর ২০১৯ ০৮:৩৬:৪৮ পিএম শুক্রবার     Print this E-mail this

সেন্টমাটিনে আটকা পড়েছে সহস্রাধিক পর্যটক, ফেরার আকুতি

এম,জুবাইর হোছাইন,সেন্টমার্টিন
বাংলার চোখ
 সেন্টমাটিনে আটকা পড়েছে সহস্রাধিক পর্যটক, ফেরার আকুতি

প্রবালদ্বীপ সেন্টমার্টিনে পর্যটক ব্যাবসায় একদম প্রথম যাত্রায় ধাক্বা লেগেছে।মৌসুমের যাত্রা কালেই বেড়াতে এসে প্রতিকুল  আবহাওয়ার কারনে প্রায় সহস্রাধিক দেশী পর্যটক আটকা পড়েছে। ঈদে মিলাদুন্নবী (সাঃ) উপলক্ষে সরকারী ছুটিতে  পর্যটকে মুখরিত হওয়ার কথা।  ইত্যবৎসরে পর্যটন মৌসুমও শুরু হয়ে যায়। কিন্তু না বৈরি আবহাওয়ার কারনে ৮ ই নভেম্বর শুক্রবারে সেন্টমার্টিনে সহস্রাধিক পর্যটক আটকা পড়ে।

জানা যায় প্রত্যেক বছরের মতোই প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিনে পহেলা নভেম্বরে আনুষ্ঠানিক ভাবে হাজারো যাত্রী নিয়ে তিনটি পর্যটকবাহী জাহাজ যাত্রা শুরু করেন। হঠাৎ বৈরি আবহাওয়ার কারনে ৪ নং সতর্ক সংকতে আটকা পড়েন ১ হাজার ৫০ জনের মতো ভ্রমণ পিপাসু।

খোজ নিয়ে যানা যায় সেন্টমার্টিন ডেইল পাড়াস্হ ব্লু মেরিন রিসোর্টে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রাণী বিদ্যা শাখার ছাত্র সহ ৯০ জন,স্ট্রেট লীগেছি বাইক গ্রুপের সী ভিউ,ওশান ব্লু,শাহজালাল রিসোর্টে ৩ শত জন, কোরাল ভিউ রিসোর্টে রংপুর ক্যাডেট কলেজের ছাত্র ৫৪ জন,সানসেট ভিউ রিসোর্টে খুলনা প্রকৌশলী বিশ্ববিদ্যালয় টেক্সটাইল বিভাগের৪৫ও ইউ বির ছাত্র ১৩ জন,ফহাদ রিসোর্টে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়  সাংবাদিক বিভাগের ২৬ জন,সাইরি রিসোর্টে ২৫ জন,সমুদ্র কুটিরে ১৮ জন,সেন্টমার্টিন রিসোর্ট (অবকাশ)১৫ জন,স্যান্ডশুর হোটেলে ২৮ জন,মারমেড রিসোর্টে ৪৫ জন,সী ভিউ হোটেলে ৪৩ জন,সী প্রবাল হোটেলে ১৫ জন, রোকসানাতে ১২ জন,।এ ছাড়াও সেন্টমার্টিনে শতাধিক বিভিন্ন হোটেলে পর্যটক আটকা পড়েছেন।

শেরপুর সদরের বাসিন্দা পেশায় চিকিৎসক কামরুন্নাহার অনু (পিথি) জানান আমরা পরিবারের বাচ্চা সহ ৭জন সেন্টমার্টিনে বেড়াতে যাই। রাত যাপন করি হোটেল সাকিনাতে।আমার আব্বা অসুস্হ সময়মত সেন্টমার্টিন থেকে ফিরতে না পেরে দ্বীপে আটকে গেছি। আমাদেরকে দ্রুত ফেরত নেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যাবস্হা গ্রহনের জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা কামনা করছি।

সেন্টমার্টিন হোটেল মালিকের সাবেক সাধারন সম্পাদক ব্যাবসায়ী মাসুম আলম জানান সেন্টমার্টিনে সহস্রাধিক ট্যুরিষ্ট আটকা।আমরা তাদেরকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করছি। বিশ্বের প্রবাল দ্বীপ সেন্টমাটিন সমুদ্র সৈকত যেন ভরে যায় পর্ষটকের ভীড়ে। হোটেল,মোটেল গুলোতে উপচে পড়া ভীড় পরিলক্ষিত হয়। কিন্তু হাজারো পর্ষটকের আনন্দ উৎসবই একদিনই শেষ হয়ে যায়। সেন্টমাটিনে রাত যাপনকারী পর্ষটক বাড়িতে ফিরতে না পেরে দুঃখ প্রকাশ করেন। ফলে দুঃশ্চিন্তায় আছেন ভ্রমন পিপাসু।

জানা যায় ঈদুল আযহার পর থেকে টেকনাফ- সেন্টমাটিন নৌ রুটে প্রত্যকদিন ৩ টি পর্যটক বাহী জাহাজ যাতায়াত করেন। ৮ ই নভেম্বর প্রতিকুল আবহাওয়ার কারনে পর্ষটকবাহী জাহাজ দ্বীপে আসতে না পারায় ভ্রমন পিপাসু দেশী পর্ষটক আটকা পড়ে।ফলে পর্ষটক ওদ্বীপ বাসী দুশ্চিন্তায় আছেন।এবং আতন্কিত দিনাতিপাত করেছেন বলে জানান তারা।

কেয়ারী সিন্দাবাদ জাহাজের টেকনাফ ইনচার্জ মোঃ শাহ আলম জানান সতর্ক সংকতের কারনে সেন্টমার্টিনে যাওয়া হইনি।  আবহাওয়ার উপর নির্ভর করে আটকা পড়া পর্যটকদের কে সেন্টমাটিন হইতে ফেরত আনার চেষ্টা করা হবে।

সেন্টটমার্টিন ইউনিয়ন পরিযদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুর আহমদ  জানান সেন্টমার্টিনে বেড়াতে এসে হাজারো জনের মত আটকা পড়া পর্যটকের খোঁজ নেওয়া হচ্ছে। এবং তাদের সেবার জন্য কর্তব্যরত প্রত্যেক হোটেল ম্যানেজারদেরক জরুরি পরামর্শ প্রদান করা হয়েছে।
উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করে আবহাওয়া অনুকোলে থাকলে টেকনাফ পাঠানোর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যাবস্হা গ্রহন করা হইবে।
 টেকনাফ থেকে সার্ভিস বোট আসতে না পারায় নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যও সংকটের আশংকা করেছেন সচেতনমহল।
সরেজমিন ঘুরে দেখা যায় বিভিন্ন হোটেলে গান বাজনা করে সময় পার করতেছে।এবং জেটি ঘাটে সমুদ্র দেখতে ভীড় জমাচ্ছে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মমতাজ বেগম
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2019. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close