১১ ডিসেম্বর ২০১৯, বুধবার ০৫:১৯:১৪ পিএম
সর্বশেষ:

১৪ নভেম্বর ২০১৯ ০১:১৩:৪৭ এএম বৃহস্পতিবার     Print this E-mail this

টাঙ্গাইলে তালা ভেঙে ৬ টি প্রতিমা ভাংচুর

মোল্লা তোফাজ্জল, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি
বাংলার চোখ
 টাঙ্গাইলে তালা ভেঙে ৬ টি প্রতিমা ভাংচুর

টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে কালী মন্দিরের তালা ভেঙে ৬টি প্রতিমার ভাংচুর করেছে দুর্বৃত্তরা। এরমধ্যে প্রতিমার ৩ টি মাথা কেটে ফেলে রেখে যায় এবং ৩টি মাথা নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। বুধবার ভোরে রাতে উপজেলার সিলিমপুর উত্তরপাড়া সেনবাড়ী সার্বজনীন কালী মন্দিরে এ ঘটনা ঘটে। এতে হিন্দু সমাজের মধ্যে চরম ক্ষোভ ও আতংক বিরাজ করছে।

মন্দির কমিটির সভাপতি প্রতিশ চন্দ্র সেন বলেন, ‘ভোরে ঘুম থেকে উঠে মন্দিরের সামনে এসে দেখি কে বা কারা মন্দিরের ভিতরে থাকা মূর্তিগুলোর মাথা কেটে ফেলে রেখেছে এবং মাথা নিয়েও গেছে। দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি।’
এদিকে মন্দির ভেঙে প্রতিমা ভাংচুরের খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকার হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। সেইসাথে তাদের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য হাছান ইমাম খান সোহেল হাজারী, টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক শহীদুল ইসলাম, পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায়, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোজহারুল ইসলাম তালুকদার, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনছার আলী বিকম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীম আরা নীপা, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুদীপ কুমার দত্ত মানু, সাধারণ সম্বপাদক গোবিন্দ চন্দ্র সাহাসহ হিন্দু সমাজের নেতৃবৃন্দ।

কালিহাতী উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক গোবিন্দ চন্দ্র সাহা বলেন সুরক্ষিত মন্দিরের তালা ভেঙে প্রতিমা ভাঙচুর অত্যন্ত গর্হিত কাজ। এরআগে ২০১৪ সালেও এই এলাকার চাটিপাড়া গ্রামে মন্দির ভাঙচুর করে দুর্বৃত্তরা। তখন কোন আসামীর বিচার হয়নি। আমরা এই ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। যাতে ভবিষ্যতে মন্দির কিংবা প্রতিমা ভাঙ্গার সাহস কেউ না পায়।

টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসক শহিদুল ইসলাম ও জেলা পুলিশ সুপার রঞ্জিত কুমার রায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বলেন দূষ্কৃতিকারীরা রাতের অন্ধকারে এই ঘটনা ঘটিয়েছে। আমরা খুব দ্রুত আসামীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনবো। কালিহাতী থানার ওসি হাসান আল মামুন বলেন এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

হাছান ইমাম খান সোহেল হাজারী এমপি বলেন কালিহাতী উপজেলায় হিন্দু মুসলিম এক সাথে মিলে মিশে বসবাস করি। কোন গোষ্ঠী বা চক্র পরিবেশ অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছে। তাদের কঠোরভাবে দমন করা হবে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মমতাজ বেগম
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2019. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close