২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, শুক্রবার ০৩:৪৯:১৯ এএম
সর্বশেষ:

১৭ জানুয়ারি ২০২০ ০২:২৭:১০ এএম শুক্রবার     Print this E-mail this

আন্দোলনের অংশ হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিয়েছি -নীলফামারীতে মির্জা ফখরুল

আবদুল গফুর নীলফামারী থেকে
বাংলার চোখ
 আন্দোলনের অংশ হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিয়েছি -নীলফামারীতে মির্জা ফখরুল

 বিএনপি’র মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন বিএনপি একটি উদার পস্থী রাজনৈনিক দল,বিএনপি গণতন্ত্রকে বিশ্বাস করে, বিএনপি কোন দাঙ্গাবাজ, উগ্রবাদ বা বিপ্লবী রাজনৈতিক দল নয়। আমাদের হাতে পিস্তল ও বন্দুক নেই, আমাদেরকে জসগনকে সংগঠিত করে নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় যাওয়ার চেষ্টা করতে  হবে। ওটাই আমাদের কাজ। এজন্যই আমারা নির্বাচনে অংশ গ্রহন করছি। তিনি বলেন এই সরকার একটি ফ্যাসিবাদী সরকার,এই সরকার নির্বাচন কমিশনকে নিয়ন্ত্রণ করছে। এই সরকার পুলিশ , র‌্যাব সহ অন্যান্য বাহিনী দিয়ে নির্বাচনের ফলাফল তাদের পক্ষে নিয়ে যাওয়ার জন্য অতীতে করেছে, বর্তমানেও সেই চেষ্টা করবে। তাহলে আমরা মুখ বুঝে বসে থাকব না ,আমরা নির্বাচনটা আন্দোলনের অংশ হিসেবে নিয়েছি। সিটি নির্বাচনে আমাদের প্রার্থীদের সাথে  বিপুলসংখ্যক মানুষ মাঠে নামছে,এই নামাটাইতো আমাদের বিজয়। যেখানে আমরা নামতে পারি না,  চলতে পারিনা, পুলিশ বাধা দেয়, নির্বাচনের মাধ্যমে আমরা বেরিয়ে আসছি। নেত্রীর মুক্তির কথা বলতে পারছি, ধানের শীষের বিজয়ের কথা বলতে পারছি। এটাই আমাদের বিজয়। এই বিজয়কে আমরা যদি আরো সুসংগঠিত করতে পারি তাহলে তাদেরকে পরাজিত করা  সম্ভব হতেও পারে।
তিনি গতকাল বৃহস্পতিবার নীলফামারী জেলা বিএনপি’র দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। শিল্পকলা একাডেমীতে  জেলা বিএনপির আহবায়ক আলমগীর সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্টিত সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিেেসবে বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, রংপুর বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যক্ষ আসাদুল হাবিব দুল, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক  আব্দুল খালেক ও জাহাঙ্গীর আলম। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাবেক এমপি আখতারুজামান মিয়া, নীলফামারী জেলা বিএনপির সদস্য সচিব জহুলল আলম, সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি রাশেদুল ইসলাম ,পৌর বিএনপির সভাপতি মাহাবুব রহমান সহ জেলা ও উপজেলা বিএনপি ও  তার অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবাইদুল কাদেরের উদ্দেশে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন আমি সহজে তার প্রশ্নের উত্তর  দেই না।এই জন্য দেই না যে আমি তার প্রশ্ন আমলেই নেই না। তিনি অনেক কথা বলেন যার সাথে রাজনীতিক ও বাস্তবতার কোন সম্পর্ক থাকে না। তিনি (ওবাইদুল কাদের) এখন তার ঘড়ি সমাচারে সাংঘাতিক ভাবে চিন্তিত আছেন। লক্ষ লক্ষ টাকার ঘড়ি তার হাতে  আছে এ নিয়ে কথা হচ্ছে ,এনিয়ে তিনি বিব্রত অবস্থায় আছেন।
ফখরুল আরো বলেন বর্তমানে আমরা কঠিন সময় পার করছি। শুধু আমরা নই সমস্ত বাংলাদেশ আজ কঠিন রাজনৈতিক সংকটে আছে। সেই সংকটটি হচ্ছে বাংলাদেশে এখন গণতন্ত্র নেই। আমরা ৭১ সালে  স্বাধীনতার যুদ্ধ   করেছিলাম গণতান্ত্রিক  রাষ্ট্রের জন্য,গণতান্ত্রিক সমাজের জন্য, আমাদের দেশ আমরা শাসন করব এ জন্য । কিন্তু স্বাধীনতার ৪৮ বছর পরে কেউ বুকে হাত দিয়ে বলতে পারবে আমরা যে স্বপ্ন দেখে, যে চিন্তা-চেতনায় যুদ্ধ করেছিলাম তা পূরণ হয়েছে, তা হয়নি। যে নেত্রীর স্বামী ৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধের ঘোষনা করেছিলেন,পাক হানাদার বাহিনীর হাতে বন্দী হয়েছিলেন, নির্যাতিত হয়েছেন তার স্ত্রীকে এই সরকার কারাগারে বন্দী করে রেছেছেন।
আওয়ামীলীগ নেতাদের প্রশ্ন করে ফখরুল বলেন আপনারা কথায় কথায় মুক্তিযুদ্ধের কথা বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলেন কিন্তু জনগনের ম্যাগনেট ছাড়া, জনগনের অধিকার কেড়ে নিয়ে, জনগণকে হত্যা করে অবৈধভাবে ক্ষমতা যেয়ে যে শাসন করছেন সেই শাসন মুক্তিযুদ্ধের শাসন নয়্ আপনারা আজকে মুক্তিযুদ্ধকে অপমান করছেন। আপনারা মুক্তিযদ্ধের সাথে বিশ্বাস ঘাতকতা করছেন। তিনি বলেন যে সংবিধান তৈরী করা হয়েছিল সেই  সংবিধান আওয়ামী লীগ লঙ্ঘন করেছেন এজন্য একদিন আপনাদের বিচারের কাঠগড়ায় দাড়াতে হবে।
তিনি আরো বলেন আওমামী লীগ আগে রিলিফ চুরি করত আজ তারা ব্যাংক চুরি করছে, শেয়ার বাজার চুরি করছে। হাজার হাজার টাকা ব্যাংক থেকে উধাও হয়ে যাচ্ছে। আজ লুট ছাড়া কিছু নেই। আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রকে আজ চোর রাষ্ট্রে পরিণত করেছে। তিনি বলেন ২০১৮ সালের ৩০ডিসেম্বর নির্বাচন হওয়ার কথা থাকলেও  তারা নির্বাচন করেছে ২৯ তারিখে। নির্বাচন কমিশনকে  তারা যা বলছে তাই করছে। র‌্যাব পুলিশ,প্রশাসন সব কিছুকে ব্যবহার করেছে। এমনকি বিচার বিভাগকে ছাড় দেননি। আজ বিচার বিভাগও স্বাধীন নেই। তারা জোর করে ক্ষমতায় রয়েছে।
 আওয়ামী লীগের দুশাসন থেকে দেশকে রক্ষার জন্য নেতাকর্মীদের গ্রাম-গঞ্জে সর্বত্র দুর্বার আন্দোলন গড়ে  তোলার আহবান জানান তিনি।
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু  প্রাণ প্রিয় নেত্রীকে মুক্ত করতে বিএনপির নেতাকর্মীসহ সবাই রুকে দাড়াবার আহবান জানান।
 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
আইটি উপদেষ্টা
সোহেল আসলাম
উপদেষ্টামন্ডলী
মোঃ ইমরান হোসেন চৌধুরী
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2020. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close