২৮ মে ২০২০, বৃহস্পতিবার ০৬:২৩:০৬ এএম
সর্বশেষ:
পরিচয় নিশ্চিত না হয়ে কাউকে ঘরে ঢুকাবেন না, কোনো সন্দেহ হলে নিকটস্থ থানাকে অবহিত করুন অথবা ৯৯৯ কল করুন: পুলিশ সদর দপ্তর           

০৩ এপ্রিল ২০২০ ১০:০১:৫২ পিএম শুক্রবার     Print this E-mail this

সতর্ক না হলে দেশ হবে মৃত্যুর উপত্যকা

মাহামুদ হাসান
বাংলার চোখ
 সতর্ক না হলে দেশ হবে মৃত্যুর উপত্যকা

টানা ছুটি পেয়েছেন। কাজের নেই তাড়া। যা জমিয়েছেন তা ভেঙ্গে বসেবসে খাচ্ছেন। ছুটির আনান্দে ঘুরছেন আর দাঁত বের করে হাসছেন। উন্নত দেশ ইতালী স্পেন বৃটেন ও আমেরিকার কিছু মানুষ এভাবেই দেশ ও জাতির সর্বনাশ ডেকে এনেছে।
বাস্তবতা হলো এই যে আমরা ভয়ংকর ধ্বংসের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি। করোনার ছোবল ঠেকাতে উন্নত বিশ্ব যেখানে হিমশিম খাচ্ছে সেখানে আমরা সতর্ক না হয়ে নিজেদের মহা সংকটে ফেলতে যাচ্ছি। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনা ভাইরাসের মহামারী থেকে বাঁচতে হলে ঘরে থাকার বিকল্প নেই। সারা বিশ্ব এখন এই এক শ্লোগানে মুখরিত। এটা কেউ শুরু থেকে মেনে চলছেন, কেউ গায়ে মাখেননি। যারা মানেননি তাদের মাঝে ইতালি, স্পেন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক ও বৃটেন। একবার শুধু এই এই চারটি দেশের মৃত্যুর পরিসংখ্যানের দিকে চোখ বুলিয়ে নিন। অন্তরাত্মা কেঁপে উঠবে। দেরিতে হলেও এখানে সব ধরণের অফিস- আদালত বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে। গণপরিবহন ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আর আমাদের দেশের কিছু মানুষ এখনো দোকানের সামনে বসে আড্ডা জমাচ্ছেন। কেউ কেউ রাস্তা খালি পেয়ে পরিবার নিয়ে গাড়িতে করে ঘুরতে বেরিয়েছেন। কেউ সন্তানদের নিয়ে হাঁটতে বেরিয়েছেন। আপনার এমন আচরণে ক্ষতিগ্রস্ত হবে গোটা দেশ। বিভিন্ন বাহিনীর সদস্যরা বাধা দিচ্ছেন। কৌশলবাজরা তাদের ধোঁকা দিয়ে বুদ্ধি জাহির করে বলছেন জরুরী কাজেই বের হয়েছেন। রাস্তায় সরকারি বাহিনীর সংখ্যা অপ্রতুল হওয়ায় তারা সর্বত্র নজর দিতে পারছেন না। যার ফলে অলিগলি বা বাইপাস রাস্তাগুলোয় বাধা দেওয়ার কেউ থাকছে না। সেখানে কেউ হাঁটছেন, খেলছেন বা মজমা করছেন। কেউ দেখার বা বলার কেউ নেই। যারা এমন কাজ করছেন তাদের বেশিরভাগই একটি বিশেষ রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মী। তাই নিষেধের কাজটি কেউ করছেন না। নিজেকে আড়াল করে কেউ ৯৯৯ এ কল দিলে পুলিশ আসছে। তারা চলে গেলেই আবার যতকে তত অবস্থা। আইএসপিআর এর ঘোষনার পর গত বৃহস্পতিবার রাজধানীর কয়েকটি স্থানে চোখে পড়ার মতো প্রাইভেট কার আর রিক্সার জ্যাম ছিল। অনেক যাত্রীদের কাছে প্রশ্ন করেও কোন সদুত্তর পাননি দায়িত্ব পালনকারীরা। অনেকেরই দাঁত বের করা হাসির ভাবখানা এমন যে যাত্রাপালা বা কনসার্ট দেখে বাসায় ফিরছেন।
আজ আর হাসি বা রসিকতার দিন নেই। এই মুহুর্তে সাবধান না হলে ধ্বংসের হাত হতে বাঁচানো যাবে না এই গর্বিত জাতিকে। চোখ রাখুন বিশ্বের দিকে। পুরো পৃথিবীকে গ্রাস করেছে এই মরণঘাতি ভাইরাস। গত দুই সপ্তাহে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ১৯৯ টি দেশ। সুন্দর পৃথিবী ছেড়ে চলে গেছেন প্রায় ৫৬ হাজার মানুষ। তামাম দুনিয়ায় চলছে মৃত্যুর মিছিল। আর পরিবেশ ও অবকাঠামো দুর্বলতার কারনে এ ভাইরাস  বাংলাদেশে ছড়িয়ে পড়লে দেশ হবে মৃত্যুর উপত্যকা। এখনো সময় আছে আর গাফিলতি নয়। নয় কোন ছেলেখেলা। ঘরে থাকুন, নিজে সুরক্ষা নিন। অন্যকেও সুরক্ষা দিন। দেশ- জাতিকে রক্ষা করুন।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
আইটি উপদেষ্টা
সোহেল আসলাম
উপদেষ্টামন্ডলী
মোঃ ইমরান হোসেন চৌধুরী
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2020. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close