২৭ মে ২০২০, বুধবার ০৫:৫৮:৪৪ এএম
সর্বশেষ:
পরিচয় নিশ্চিত না হয়ে কাউকে ঘরে ঢুকাবেন না, কোনো সন্দেহ হলে নিকটস্থ থানাকে অবহিত করুন অথবা ৯৯৯ কল করুন: পুলিশ সদর দপ্তর           

০৬ এপ্রিল ২০২০ ০৪:০৩:১৩ এএম সোমবার     Print this E-mail this

যশোরে গরু ছাগল খাচ্ছে ফুল ক্ষতি ১০০ কোটি টাকা

এম.জামান কাকা, যশোর থেকে
বাংলার চোখ
 যশোরে গরু ছাগল খাচ্ছে ফুল ক্ষতি ১০০ কোটি টাকা

 ক্রেতার অভাবে যশোরে গরু-ছাগল খাচ্ছে ফুল। এর ফলে সামগ্রিক ক্ষতির পরিমান ১০০ কোটি টাকা। মন্দা এতটাই যে ফুল চাষীরা জেলা প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছেন।
দেশের ফুলের রাজ্য খ্যাত যশোরের গদখালি। আর এখানেই এই ফুলের বেচা-কেনার জন্য গড়ে উঠে দেশের সবচেয়ে বড় পাইকারি বাজার। প্রতিদিন ভোর থেকে আনাগোনা শুরু হয় এ বাজারে গদখালি, কুলিয়া, শিওরদাহ, পানিসারা, নাভারন, উলাশী, বেনে আলীর কয়েক হাজার ফুল চাষির। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছোট-বড় পাইকাররা সেখান থেকে ফুল কিনে নিয়ে যান। এরপর বিভিন্ন হাতবদল হয়ে পাইকারি ও খুচরা বিক্রেতার মাধ্যমে ফুলের রঙ ছড়ায় নানান বয়সের মানুষের মনে। গদখালি-পানিসারার ছয় হাজার কৃষক সাত হাজার হেক্টর জমিতে ফুলের আবাদ করেন। বিশ্বব্যাপী প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে বিপর্যস্ত র্সবত্র। তার নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে দেশের সব চেয়ে বেশি ফুলের যোগান দেওয়া গদখালি ফুলের বাজারে।
নতুন ভোরের সাথে সাথে জমে উঠতো ফুলের বাজার। সেখানেই করোনার প্রাদুর্ভাবে বাজার প্রাঙ্গণ জন-মানব শূন্য। নেই আগের মতো ফুলের দাম নিয়ে তর্ক-বিতর্ক। নেই কোন হাঁকডাক। গুটি কয়েক দোকানদার বসে আছেন দোকান খুলে। নেই ক্রেতা। জন মানব শুন্য বাজারটি প্রায়। ফুল চাষিরা ফুল বাগান থেকে ফুল কেটে ছাগল-গরু দিয়ে খাওয়াচ্ছেন। ফুল চাষিরা ফুল বাগান থেকে ফুল কেটে ছাগল-গরুকে দিয়ে খাওয়াচ্ছেন।
গদখালি ফ্লাওয়ার সোসাইটির নেতৃবৃন্দ জানান, ঝিকরগাছা উপজেলার গদখালি-পানিসারার প্রায় ৬০০০ কৃষক ৭০০০ হেক্টর জমিতে ফুলের আবাদ করছেন। ফুল চাষে আবহাওয়া ভালো থাকায় এবার রেকর্ড পরিমাণ ফুলের উৎপাদন হয়েছিলো। দেশের সবচেয়ে ফুলের বাজার গদখালি বাজারে প্রায় ১৫ রকমের ফুল বেচা-কেনা হয়। প্রতিবছর জানুয়ারি থেকে এপ্রিল পর্যন্ত ফুল চাষিদের ভরা মৌসুম। কিন্তু করোনা ভাইরাসে ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস ও বাংলা বর্ষবরণ উৎসব ঘিরে ফুল চাষি ও ব্যবসায়ীদের অন্তত একশ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে দাবি গদখালি ফ্লাওয়ার সোসাইটির সদস্যদের।
গদখালি এলাকার কৃষক আলম মেম্বর জানান, তিন বিঘা জমির গোলাপ ফুলের ক্ষেত এখন ছাগলের খাদ্যে পরিণত হয়েছে। করোনা ভাইরাসের কারণে ১৫ দিন ধরে ফুলের বেচাকেনা নেই। এদিকে বাগান থেকে প্রতিদিনই দেড় থেকে দুই হাজার গোলাপ কেটে ছাগল-গরুকে খাওয়াতে হচ্ছে। কারণ গোলাপ না কাটলে বাগান নষ্ট হয়ে যায়। একদিকে ফুলের বেচাকেনা নেই; অন্যদিকে ফুল কাটার জন্যে শ্রমিক খরচ গুনতে হচ্ছে। প্রতিদিন তিন হাজার টাকা লোকশান গুনতে হচ্ছে।
পানিসারা এলাকার ফুল চাষি শের আলী জানান, আড়াই বিঘা জমিতে গোলাপ ফুলের চাষ করেছি। বাংলা বর্ষবরণ উৎসব সামনে রেখে ফুল উৎপাদনের ব্যাপক প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছিলো। কয়েক লাখ টাকা গোলাপ বাগানে বিনিয়োগ করা আছে। ঠিক সেই সময়ে করোনা ভাইরাসের দুর্যোগের কারণে ১২ দিন ধরে পরিবহন-দোকানপাট বন্ধ রয়েছে। ফুলের বাজার বসছে না। ক্ষেত থেকে প্রতিদিনই দেড় হাজারের বেশি গোলাপ ফুল কেটে ছাগল গরু দিয়ে খাওয়াতে হচ্ছে। ফুল না কাটলে নতুন করে আর কুড়ি আসে না। অত্যন্ত খারাপ অবস্থার মধ্যে আছি আমরা ফুল চাষিরা।
তিনি আরো বলেন, শুধু আমার মতো না এই এলাকার হাজারো ফুলচাষি এমন বিপাকে পড়েছেন। তাদের বাগানের রজনীগন্ধা, গ্লাডিওলাস, জারবেরা ফুল কেটে গরু দিয়ে খাওয়াচ্ছে।
বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার সোসাইটির সভাপতি আব্দুর রহিম বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে গদখালির পাইকারি ফুলের বাজার ২৪ মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে। চাষিরা ফুল বিক্রি পারছেন না। আবার ক্ষেতে ফুল রাখতেও পারছে না। এরকম উভয় সংকটে পড়েছেন তারা। এর মধেই ১০০ কোটি টাকার মতো ক্ষতি হয়েছে। এই ক্ষতি পুষিয়ে নিতে কৃষককে খাদ্য সরবারাহ ও বিনা সুদে সহজ শর্তে ঋণের ব্যবস্থা করতে হবে। এ বিষয়ে কৃষি মন্ত্রী ও সচিব মহোদয়ের কাছে একটি স্মারকলিপি দিয়েছি।
বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার সোসাইটির নেতৃবৃন্দ যশোরের  জেলা প্রশাসক ও ঝিকরগাছা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে মৌখিকভাবে জানিয়েছেন।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
আইটি উপদেষ্টা
সোহেল আসলাম
উপদেষ্টামন্ডলী
মোঃ ইমরান হোসেন চৌধুরী
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2020. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close