০৯ জুলাই ২০২০, বৃহস্পতিবার ০৯:৩৮:০০ পিএম
সর্বশেষ:

২৬ জুন ২০২০ ০৩:৪৮:১৮ পিএম শুক্রবার     Print this E-mail this

বিনিয়োগকারীদের টাকা নিয়ে লাপাত্তা ক্রেস্ট সিকিউরিটিজ

ডেস্ক রিপোর্ট
বাংলার চোখ
 বিনিয়োগকারীদের টাকা নিয়ে লাপাত্তা ক্রেস্ট সিকিউরিটিজ

করোনাকালে হঠাৎ অফিসে তালা লাগিয়ে দিয়েছে ক্রেস্ট সিকিউরিটিজ কর্তৃপক্ষ। রাজধানীর পল্টনের প্রধান কার্যালয়সহ তাদের আরও তিনটি শাখায় এক যোগে তালা লাগিয়ে দিয়ে লাপাত্তা হয়ে গেছে মালিকপক্ষ। লাপাত্তা হওয়ার সময় হাতিয়ে নিয়ে গেছে বিনিয়োগকারীদের লাখ লাখ টাকা।

বিনিয়োগকারীদের অভিযোগ তালা বন্ধ হওয়ার আগে তাদের অজান্তেই বড় বড় ক্লাইন্ডদের শেয়ার বিক্রি করেছে এই হাউসটি, যার কিছুই জানেন না বিনিয়োগকারীরা। এখন নিজেদের শেষ সম্বল হারিয়ে দিশাহারা হয়ে পড়েছেন এসব বিনিয়োগকারী।

গত বৃহস্পতিবার রাজধানীর পল্টনে ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের কার্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়। হাউসটির প্রধান ফটকে তালা ঝুলছে। সামনে জটলা করেছেন কিছু বিনিয়োগকারী। এসব বিনিয়োগকারীর সবাই-ই হাউস কর্তৃপক্ষ দ্বারা প্রতারিত। শুধু তারাই নন, হাউসে যারা কর্মরত রয়েছেন তাদেরও ঠকিয়েছে মালিকপক্ষ। জানা যায়, দীর্ঘদিন থেকে এই হাউসে কর্মরতদের বেতন বন্ধ রয়েছে।

বিনিয়োগকারীদের অভিযোগ, ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. শহীদ উল্লাহসহ অন্যান্য কর্মকর্তা তাদের টাকা আত্মসাৎ করে পালিয়ে গেছেন।

অফিস বন্ধ পেয়ে ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের ধানমন্ডি ৫ নাম্বারের বাসায় যান কয়েকজন বিনিয়োগকারী। কিন্তু বাসায় গিয়ে তারা কাউকে পাননি। আর ওই বাসায় কোনো আসবাবপত্রও ছিল না, সম্পূর্ণ বাসা খালি ছিল বলে অভিযোগ করেছেন বিনিয়োগকারীরা।

জানতে চাইলে মো. নাজির আহমেদ নামে এক বিনিয়োগকারী শেয়ার বিজকে বলেন, ‘হাউস কর্তৃপক্ষের কাছে প্রায় এক কোটি টাকার শেয়ার আছে। সম্প্রতি তাদের ভাবগতি দেখে সন্দেহ হচ্ছিল। যে কারণে লিংক অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে অন্য একটি হাউসে চলে যেতে চেয়েছিলাম। এর জন্য আমি হাউসে আসি। কর্তৃপক্ষ জানায়, বুধবারে লিংক অ্যাকাউন্টে সব শেয়ার পাঠিয়ে দেওয়া হবে। কিন্তু এর আগেই তারা লাপাত্তা হয়ে গেছে। আমার শেয়ার যেহেতু লিংক অ্যাকাউন্টে আসেনি। তার মানে এই শেয়ার তারা বিক্রি করে দিয়েছে। তবে শেয়ার বিক্রি করার বার্তা মুঠোফোন কিংবা অন্য কোনো মাধ্যমে জানানো হয়নি। সিডিবিএলে খোঁজ নিয়েছি তারা জানিয়েছেম আমার অ্যাকাউন্টে ১১টি শেয়ার ছাড়া কিছু নেই। আমরা এখন ডিএসই, বিএসইসির দিকে তাকিয়ে আছি। তারা ব্যবস্থা না করলে আমাদের আইনের আশ্রয় নিতে হবে।’

এদিকে হাউস থেকে যাদের শেয়ার বিক্রির চেক দেওয়া হয়েছে তাদেরও চেক ডিজঅনার হয়েছে। এই প্রসঙ্গে বিনিয়োগকারী হাসিনা মুর্তজা বলেন, ‘আমাকে দুই লাখ ৫২ হাজার টাকার চেক দেওয়া হয়েছিল, সেই চেক ডিজঅনার হয়। পরবর্তী সময়ে হাউস থেকে বলা হয়েছিল আমাকে নগদ টাকা দেওয়া হবে।’

বিষয়টি জানতে ডিএসইতে যোগাযোগ করা হলে ব্যবস্থাপনা পরিচালক ছানাউল হক কাজী বলেন, ‘ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানার সঙ্গে সঙ্গেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে হাউসটির সব ধরনের লেনদেন বন্ধ রাখা রয়েছে। পাশাপাশি একইসঙ্গে এই হাউসের ডিপি স্থগিত রাখার জন্য সিডিবিএলকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আমরা আমাদের কাজ করে যাচ্ছি।’

এদিকে বিষয়টি জানতে হাউসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. শহীদ উল্লাহর মুঠোফোনে বারবার চেষ্টা করলে ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। তার বাসায় গিয়েও কাউকে পাওয়া যায়নি।

প্রসঙ্গত, ক্রেস্ট সিকিউরিটিজ অনেক পুরোনো ব্রোকারেজ হাউস, যার সনদ নং-৮। হাউসটির রাজধানীতে প্রধান কার্যালয়সহ আরও একটি শাখা এবং ঢাকার বাইরে কুমিল্লা ও নারায়ণগঞ্জে দুটি শাখা রয়েছে। বিনিয়োগকারীদের তথ্যমতে হাউসের চারটি শাখায় ৩০ হাজারের বেশি বিনিয়োগকারী রয়েছেন।

জানতে চাইলে বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আবদুর রাজ্জাক বলেন, ‘হাউসটি বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে বড় ধরনের প্রতারণা করেছে। এখানে বিনিয়োগকারীদের কোটি কোটি টাকা আটকে রয়েছে। আমরা চাইব নিয়ন্ত্রণ সংস্থা দ্রুত এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিক। কারণ করোনাতে এমনিতে খারাপ অবস্থায় রয়েছেন বিনিয়োগকারীরা। আর শেষ সম্বলগুলো হাতছাড়া হয়ে গেলে তাদের কষ্টের সীমা থাকবে না।’

এদিকে হাউসটির ভুক্তভোগী বিনিয়োগকারীরা গতকাল বিকালে পল্টন মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন, যার নং-১১৯৮।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) নির্বাহী পরিচালক মো. সাইফুর রহমান বলেন, অভিযোগের সত্যতা যাচাই-বাছাইকে কেন্দ্র করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
আইটি উপদেষ্টা
সোহেল আসলাম
উপদেষ্টামন্ডলী
মোঃ ইমরান হোসেন চৌধুরী
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2020. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close