১২ আগস্ট ২০২০, বুধবার ০৮:২৮:২৮ পিএম
সর্বশেষ:

১১ জুলাই ২০২০ ০১:০৫:৩৮ এএম শনিবার     Print this E-mail this

দীর্ঘদিন সংস্কার হয়নি মেহেরপুর রাজনগরের সড়ক

মেহেরপুর প্রতিনিধি
বাংলার চোখ
 দীর্ঘদিন সংস্কার হয়নি মেহেরপুর রাজনগরের সড়ক

 মেহেরপুর সদর উপজেলার রাজনগর গ্রামের গুরুত্বপূর্ণ একটি সড়ক বৃষ্টি হলেই পানিতে ডুবে যায়। গত ছয়-সাত বছরে এ রাস্তা সংস্কার কাজ করা হয়নি। গ্রামের তিনপাড়ার প্রায় ২ হাজার জনগণের একটি মাত্র মসজিদ। ড্রেনের ব্যবস্থা থাকলেও সড়কের সকল পানি নিষ্কাশন হয়না । কর্তৃপক্ষের সামান্য উদ্যোগে মসজিদে নামাজ পড়ার মুসল্লিগণ হাজারো মানুষ এ দুর্ভোগ থেকে মুক্তি পেতে পারে।

জানা গেছে, সদর উপজেলার এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিনে স্কুলের ছোট ছোট শিক্ষার্থী ও মসজিদের মুসল্লিগণ সহ এলাকার লোকজন এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করে থাকে। এ সড়কটির সংস্কার হয়নি দীর্ঘদিন।

সরেজমিন দেখা যায়, রাস্তাটি আব্দুর রশিদের দোকান থেকে ছেলেটি নদী পর্যন্ত সড়কের বিভিন্ন অংশে প্রতিনিয়ত পানি জমে থাকে।রাস্তার দুইপাশে ব্যক্তি মালিকানায় বাড়ির সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়। রাস্তার পাশের ড্রেনেজ ব্যবস্থা থাকলেও সামান্য পানিতে তলিয়ে যায় সড়ক। কাদা পানিতে ডুবে থাকা সড়কটি দেখে মনে হয় যেন মরা খাল। পানি জমে বিভিন্ন স্থানে খোয়া উঠে গিয়ে তৈরি হয়েছে গর্ত। এতে অসাবধানতায় গর্তে পড়ে ঘটছে দুঘর্টনা।

স্থানীয় ব্যবসায়ী বাদশা আলম বলেন, মেহেরপুর-চুয়াডাঙ্গা প্রধান সড়ক থেকে মসজিদের সামনে থেকে শুরু করে বিভিন্ন স্থানে জলাবদ্ধতা তৈরি হয়। যেন দেখার কেউ নেই। পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা থাকলেও সড়কে পানি জমে থাকে।

ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক খাকছার আলী জানান, সড়কের এই জায়গায় পানি জমে খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। এ কারণে ঝুঁকি নিয়ে হেলেদুলে পথ চলতে হয়। অনেক সময় পানির ছিটকে পড়ে পথচারীর কাপড় নষ্ট হয়। ।

স্থানীয় পিরোজপুর ইউপি সদস্য আরমান আলী জানান, গ্রামের এ সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে মেরামত হয়নি। তাছাড়া পানি নিষ্কাশনে গতবছর আমি ড্রেনের ব্যবস্থা করে দিই। ড্রেন থাকলেও সড়কের সব পানি নিষ্কাশন হয় না কারণ সড়কটি অত্যন্ত নিচু। এ কারণে বৃষ্টি হলেই জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়। আমি কয়েকবার এ রাস্তার কাজের জন্য বিভিন্ন কাগজপাত্র জমা দিয়েছি। বিষয়টি আমি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। তাছাড়া বাড়িঘরের চেয়ে রাস্তা নিচু হওয়ায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। আমি নিজে সড়কের বিভিন্ন স্থানে ইট-বালি দিয়ে জনদুর্ভোগ লাঘবের জন্য চেষ্টা করেছি।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
আইটি উপদেষ্টা
সোহেল আসলাম
উপদেষ্টামন্ডলী
মোঃ ইমরান হোসেন চৌধুরী
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2020. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close