২২ জানুয়ারি ২০২১, শুক্রবার ১২:২৪:২৭ পিএম
সর্বশেষ:
টিকা দেয়ার পর ৩০ মিনিট পর্যবেক্ষণে রাখার পরামর্শ            ফেব্রুয়ারিতে অক্সফোর্ডের করোনা টিকা বাজারে আনতে পারে বেক্সিমকো            নাক, নাসিকারন্ধ্র, মুখ গহ্বর এবং শ্বাস ও খাদ্যনালীর মিলনস্থলে অবস্থান করা করোনাভাইরাস ধ্বংস করতে সক্ষম ‘ন্যাজাল স্প্রে’ উদ্ভাবনের দাবি করেছে বাংলাদেশ রেফারেন্স ইনস্টিটিউট ফর কেমিক্যাল মেজারমেন্টস (বিআরআইসিএম)। যার নাম রাখা হয়েছে ‘বঙ্গোসেফ ওরো ন্যাজাল স্প্রে’।            এখন থেকে এ URl লগইন করুন http://www.banglarchokh.com.bd/secondcopy/index.php           

১১ আগস্ট ২০২০ ১২:২২:০৯ এএম মঙ্গলবার     Print this E-mail this

ভূরুঙ্গামারীতে ৬৬ টি হতদরিদ্র পরিবার পেল মাথা গোঁজার ঠাঁই

হামিদুল ইসলাম ভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি
বাংলার চোখ
 ভূরুঙ্গামারীতে ৬৬ টি হতদরিদ্র পরিবার পেল মাথা গোঁজার ঠাঁই

এসডিজি’র লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের লক্ষ্যে সকলের জন্য বাসস্থান নিশ্চিতকরণ কর্মসূচীর আওতায় কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে ৬৬টি গৃহহীন হতদরিদ্র ও অস্বচ্ছল পরিবারের জন্য ঘর নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হয়েছে।
দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের আওতায় গ্রামীণ অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষন (টি.আর) ও গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার (কাবিটা) কর্মসূচীর বিশেষ বরাদ্দ দ্বারা গ্রামীণ দরিদ্র গৃহহীন জনগোষ্ঠীর জন্য “দূর্যোগ সহনীয় ঘর নির্মাণ” প্রকল্প হাতে নেয়া হয়। সমাজের পিছিয়ে পরা মানুষ যাদের ৮০০ বর্গফুট জায়গায় বা দুই শতাংশ জমি আছে তাদের জন্য রান্নাঘর ও টয়লেট সহ দুই কক্ষ বিশিষ্ট একটি সেমিপাকা টিনসেড গৃহ নির্মাণ করা হচ্ছে। প্রতিটি গৃহের জন্য নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে ২ লাখ ৯৯ হাজার ৮৬০ টাকা। ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে ভূরুঙ্গামারী উপজেলায় ৬৬টি গৃহ বরাদ্দ দেয়া হয়। যার মোট ব্যয় ১ কোটি ৯৭ লাখ ৯০ হাজার ৭৬০ টাকা।
প্রকল্পের সুবিধাভোগী জয়মনিরহাট ইউনিয়নের ছোটখাটামারী গ্রামের বিপ্লব জানান, আমি একজন প্রতিবন্ধী, মাথা গোঁজার কোন ঠাঁই ছিল না। প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া একটি ঘর পেয়েছি, আমি খুব খুশি। অপর সুবিধাভোগী তিলাই ইউনিয়নের দক্ষিন ছাট গোপালপুর গ্রামের জাহানারা বলেন “আগোত ভাঙ্গা ঘরোত থাইকছোং, ঝড়ি পইড়লে ঘরোত পানি পইড়ছে। ইউএনও স্যার দেখি যায়া মোক এখান ঘর দিছে। এ্যলা মুঁই ছওয়া-পোয়া শুউদ্দা পাকা ঘরোত থাকোং (আগে ভাঙ্গা ঘরে থাকতাম, বৃষ্টি পড়লে ঘরে পানি পড়ত, ইউএনও স্যার দেখে গিয়ে আমাকে একটা ঘর দিয়েছে। এখন সন্তান-সন্তুতি সহ পাকা ঘরে থাকছি)।
প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শাহিনুর আলম বলেন, ঘরের কাজ শেষের দিকে, রংয়ের কাজ কিছুটা বাকী আছে। যা দুই/একদিনের মধ্যে শেষ হবে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফিরুজুল ইসলাম জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা-দেশের কেউ গৃহহীন থাকবে না, সেই ঘোষণা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে হতদরিদ্রদের জন্য “দূর্যোগ সহনীয় ঘর নির্মাণ” করা হয়েছে। উপজেলার ৬৬টি গৃহহীন পরিবারকে ঘর নির্মাণ করে দিতে পেরে আমাদের এক ধরনের ভালো লাগা অনুভব হচ্ছে, ঘর পেয়ে উপকার ভোগীরাও বেজায় খুশি।

 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
আইটি উপদেষ্টা
সোহেল আসলাম
উপদেষ্টামন্ডলী
মোঃ ইমরান হোসেন চৌধুরী
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2021. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close