২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, সোমবার ০২:১৬:৪৯ এএম
সর্বশেষ:

১১ আগস্ট ২০২০ ০৪:৫৮:২৫ পিএম মঙ্গলবার     Print this E-mail this

মেজর সিনহা হত্যার ঘটনায় পুলিশের মামলার তিন সাক্ষী গ্রেপ্তার

প্রতিনিধি
বাংলার চোখ
 মেজর সিনহা হত্যার ঘটনায় পুলিশের মামলার তিন সাক্ষী গ্রেপ্তার

 

কক্সবাজারে পুলিশের গুলিতে নিহত অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যার ঘটনায় টেকনাফ থানায় পুলিশের দায়ের করা দুটি মামলার তিন সাক্ষীকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।


আজ মঙ্গলবার দুপুরে টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া এলাকা থেকে গ্রেপ্তারের পর তিনজনকে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছে তদন্তকারী সংস্থা র‍্যাব।

র‍্যাব-১৫ এর উপ-অধিনায়ক মেজর মেহেদী হাসান বিকেলে এনটিভি অনলাইনকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এ ছাড়া র‍্যাব সদর দপ্তর থেকে পাঠানো একটি খুদে বার্তায়ও বিষয়টি জানানো হয়েছে।

বিকেলে পাঠানো খুদে বার্তায় বলা হয়েছে, ‘মেজর (অব.) সিনহা হত্যা মামলায় কক্সবাজারের বাহারছড়া এলাকার মো. আয়াছ, মো. নুরুল আমিন, মো. নাজিমুদ্দিন নামে তিনজনকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব, আদালতে সোপর্দ; ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হবে।’


পরে র‍্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আশিক বিল্লাহ  বলেন, ‘এই তিনজনকে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা রাশেদের বোনের দায়ের করা হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।’

এই তিনজনের বাড়ি উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের মারিশবনিয়া গ্রামে বলে জানা গেছে।

গত ৩১ জুলাই ঈদুল আজহার আগের রাত সাড়ে ১০টার দিকে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশ কর্মকর্তা লিয়াকত আলীর গুলিতে নিহত হন অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। ঘটনার পর পুলিশ বাদী হয়ে টেকনাফ থানায় দুটি মামলা করে।

পরে ৫ আগস্ট মেজর সিনহা হত্যার বিচার চেয়ে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করেন বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস। এতে নয়জনকে আসামি করা হয়। আসামিরা হলেন টেকনাফ থানার বরখাস্ত হওয়া ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ, টেকনাফের বাহারছড়া শামলাপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের প্রত্যাহার হওয়া পরিদর্শক লিয়াকত আলী (৩১), উপপরিদর্শক (এসআই) নন্দদুলাল রক্ষিত, সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) লিটন মিয়া, পুলিশ কনস্টেবল সাফানুর রহমান, কামাল হোসেন, আবদুল্লাহ আল মামুন, মো. মোস্তফা ও এসআই টুটুল। এদের মধ্যে শেষ দুজন ছাড়া বাকি সবাই জেলহাজতে রয়েছেন।

এদিকে পুলিশের দায়ের করা মামলায় দুই আসামি সিনহা রাশেদের দুই সহযোগী সাহেদুল ইসলাম সিফাত গতকাল সোমবার এবং অপর সহযোগী শিপ্রা দেবনাথ গত রোববার জামিনে মুক্ত হয়েছেন।

গতকাল সিফাতের জামিন মঞ্জুরের আদেশ পাওয়ার পর তাঁর আইনজীবী মোহাম্মদ মোস্তফা গণমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ হত্যার ঘটনায় পুলিশ দুটি মামলা করে। এসব মামলা র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নকে (র‍্যাব) তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। এ ঘটনায় অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদের বোন একটি মামলা করেছিলেন। এসব মামলার তদন্ত কর্মকর্তাকে পরিবর্তন করে র‍্যাবের কাছে হস্তান্তর করার নির্দেশও দিয়েছেন আদালত।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
আইটি উপদেষ্টা
সোহেল আসলাম
উপদেষ্টামন্ডলী
মোঃ ইমরান হোসেন চৌধুরী
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2020. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close