২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, রবিবার ০৩:০৬:১৪ এএম
সর্বশেষ:

২০ জানুয়ারি ২০২১ ১১:১৩:৩৪ পিএম বুধবার     Print this E-mail this

২৮ ফেব্রুয়ারি যশোর পৌরসভার নির্বাচন

মালেকুজ্জামান কাকা, যশোর
বাংলার চোখ
 ২৮ ফেব্রুয়ারি যশোর পৌরসভার নির্বাচন

ঐতিহ্যবাহী যশোর পৌরসভার কাঙ্খিত নির্বাচন আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি। এ খবর পেতেই নগরবাসী আনন্দ উল্লাসে মেতেছে। শহরের বিভিন্ন কর্নারে পৌর নির্বাচন এবং আওয়ামী লীগ তথা নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নিয়ে বেজায় জল্পনা কল্পনা শুরু হয়েছে। বর্তমান পৌর মেয়র জহিরুল ইসলাম রেন্টু চাকলাদার প্রার্থী তালিকায় শীর্ষে রয়েছেন। তার সাথে আলোচনায় রয়েছেন আরো কয়েকজন। এদের মধ্যে রয়েছেন যশোর পৌরসভা বাংলাদেশের যশোর জেলার স্থানীয় সরকার সংস্থা। ১৮৬৪ সালে পৌরসভাটি প্রতিষ্ঠিত হয় এবং এটি বাংলাদেশের প্রাচীন পৌরসভা গুলোর অন্যতম। এটি একটি ক শ্রেণীর পৌরসভা।
যশোর পৌরসভার মোট ভোটার এক লাখ ৪১ হাজার ৩১০ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৫৯ হাজার ৫০৭ জন ও নারী ৭১ হাজার ৮০৩ জন। প্রথম শ্রেণির পৌরসভা এটি। ২০১৫ সালের ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে নৌকা মার্কা নিয়ে মেয়র নির্বাচিত হন যশোর জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু। ২০১৬ সালের ৬ মার্চ দায়িত্ব গ্রহণ করেন। শহরতলীর কয়েকটি এলাকা যুক্ত হয়ে বেড়ে গেছে যশোর পৌরসভার আয়তন। সীমানা বাড়ানোর সিদ্ধান্তের উপর আপত্তি না থাকায় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন জারি করে গেজেট প্রকাশ করেছে আগেই। এতে যশোর পৌরসভার আয়তন বেড়েছে সাত বর্গ কিলোমিটার। পৌরসভায় যুক্ত হয়েছে পুরো উপশহর ইউনিয়ন। পাশাপাশি চাঁচড়া এলাকা এবং রামনগর, ফতেপুর, নওয়াপাড়া ও আরবপুর ইউনিয়নের আংশিক এলাকা এ পৌরসভায় যুক্ত হয়েছে।
গেজেট সূত্র মতে, ২০১৯ সালে ২৪ আগস্ট যশোর পৌরসভার সীমানা বাড়িয়ে প্রথম একটি গেজেট প্রকাশ হয়। স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন ২০০৯ অনুযায়ী স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় এই গেজেট প্রকাশ করে। এ বিষয়ে কোন আপত্তি থাকলে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের চেয়ারম্যানদের লিখিতভাবে জানানো ও শুনানিতে অংশ নিতে বলা হয়। এসব প্রক্রিয়া শেষে যশোর জেলা প্রশাসক সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে সুপারিশ আকারে পাঠান। আর সেই সুপারিশের ভিত্তিতে মন্ত্রণালয় যশোর পৌরসভার সীমানা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করে গেজেট প্রকাশ করেছে।
ব্রিটিশ শাসিত অবিভক্ত ভারতে গোড়াপত্তন হয় যশোর পৌরসভার। ১৮৬৪ সালে যশোর পৌরসভা প্রতিষ্ঠিত হয়। সেই অর্থে যশোর শহর দেড়শ বছরের বেশি প্রাচীন। কিন্তু দীর্ঘ সময়ের ব্যবধানেও কখনও যশোর পৌরসভার আয়তন বাড়েনি। এই প্রথম সীমানা বাড়িয়ে বিস্তৃত হয়েছে পৌর শহরের আয়তন। যশোর পৌর এলাকার আগের আয়তন ছিল সাড়ে ১৪ বর্গ কিলোমিটারের একটু বেশি। শহর সংলগ্ন ৬টি ইউনিয়নের ৭ বর্গ কিলোমিটারের কিছু বেশি অংশ পৌর এলাকায় যুক্ত হয়েছে।
যশোর পৌরসভা সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সূত্র জানায়, আয়তনে তুলনামূলক ছোট হওয়ায় উন্নয়ন কাজে অনেক দাতা সংস্থা এখানে বিনিয়োগ করতে আগ্রহী হচ্ছিল না। মূলত পৌরসভার আয়তনের উপর ভিত্তি করে বিনিয়োগ আসে। বর্তমানে এশিয়ান ডেভলপমেন্ট ব্যাংকের অর্থায়নে এই পৌরসভার শত কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ করছে। পৌরসভার আয়তন বাড়ায় এই বরাদ্দ আরো বেশি হবে।
যশোর পৌরসভার মেয়র জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু বলেন, সীমানা বাড়ানোর গেজেট তারা বেশ আগেই হাতে পেয়েছেন। পৌরসভার সীমানা ১৪ দশমিক ৭২ কিলোমিটারের সাথে ৭ কিলোমিটারের একটু বেশি বেড়ে এখন প্রায় ২২ কিলোমিটার হয়েছে।
১৮৬৪ সালের ১৩ জুলাই বাংলার লেফটেন্যান্ট গভর্নরের ঘোষণা অনুযায়ি যশোর পৌর সমিতি গঠিত হয় ও ১ আগস্ট থেকে এটি কার্যকর হয়। সে সময় পৌর সমিতির আওতাভুক্ত এলাকা ছিল মূল শহর আর পুরাতন কসবা, ঘোপ, বারান্দীপাড়া, বেজপাড়া, নীলগঞ্জ, খড়কী ও চাঁচড়া গ্রামের অধিকাংশ। বছরখানেক পরে নীলগঞ্জ, খড়কী, চাঁচড়ার অবশিষ্ট অংশসহ বগচর, মুড়লী ও শংকরপুর পৌর এলাকার সাথে যুক্ত হয়। সব মিলিয়ে পৌর এলাকার আয়তন দাঁড়ায় প্রায় সাড়ে চার বর্গ মাইল। পদাধিকার বলে তৎকালীন জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মিঃ মলোনী সভাপতি হন ও প্রথম পৌর কমিশনার হিসেবে মিঃ টি. টি. অ্যালেন, জে ককবার্ণ, জে. সি. শ’, রাজা বরদা কান্ত রায় বাহাদুর, বাবু আনন্দ মোহন মজুমদার, বাবু মদন মোহন মজুমদার এবং মৌলবী গয়রাতুল্লাহ নির্বাচিত হন।
২০১১ সালের আদমশুমারি অনুসারে, যশোর পৌরসভা এলাকার জনসংখ্যা ২,৮৬,১৬৩ জন। তবে বর্তমানে জনসংখ্যা এর প্রায় দ্বিগুন।
প্রশাসক, চেয়্যারম্যান এবং মেয়রদের তালিকা
আফসার আহম্মেদ সিদ্দিকী, (কার্যকাল ২৬/০২/১৯৭৪ - ২৯/০৮/১৯৭৭) (চেয়্যারম্যান)
তরিকুল ইসলাম, (কার্যকাল ২৬/০২/১৯৭৪ - ২৯/০৮/১৯৭৭) (ভাইস চেয়্যারম্যান)
খালেদুর রহমান টিটো (কার্যকাল ১৫/০৩/১৯৮৪ - ৩০/১২/১৯৮৮) (চেয়্যারম্যান)
মোঃ ইসহক (কার্যকাল ১৫/০২/১৯৮৯ - ৩১/১২/১৯৯১) (চেয়্যারম্যান)
আলী রেজা রাজু (কার্যকাল ১৬/০৬/১৯৯৩ - ০৬/০৪/১৯৯৯) (চেয়্যারম্যান)
এস,এম কামরুজ্জামান চুন্নু (কার্যকাল ০৭/০৪/১৯৯৯ - ১২/০২/২০১১) (মেয়র)
মোঃ মারুফুল ইসলাম (কার্যকাল ১৬/০২/২০১১ -০৬-০৩-২০১৬ ) (মেয়র)
মো: জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু (কার্যকাল ০৬-০৩-২০১৬-বর্তমান) (মেয়র)

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
আইটি উপদেষ্টা
সোহেল আসলাম
উপদেষ্টামন্ডলী
মোঃ ইমরান হোসেন চৌধুরী
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2021. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close