১৯ নভেম্বর ২০১৮, সোমবার ০৩:১০:৪৬ পিএম
সর্বশেষ:
মির্জা আব্বাসের শাহজাহানপুরের বাসা ঘিরে রেখেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। বাসার সামনে থেকে ১০-১২ জনকে আটক করার অভিযোগ করেছেন, আফরোজা আব্বাস।            বাসসের ব্যবস্থাপনা সম্পাদক শাহরিয়ার শহীদের ইন্তেকাল ( ইননাল--- রাজিউন দুপুর ১:২০ মিনিটে রাজধানীর এ্যাপোলো হাসপাতালে মারা যান           

১৪ নভেম্বর ২০১৭ ১০:২৩:৩৯ পিএম মঙ্গলবার     Print this E-mail this

শীত আসি আসি করছে

মুনসুর আহম্মেদ ঠাকুরগাঁও থেকে
বাংলার চোখ
 শীত আসি আসি করছে

 শীত আসি আসি করছে বাংলাদেশে। এখনও জেঁকে বসতে পারেনি হিমেল হাওয়া । মেঘমুক্ত নীল আকাশে সূর্য কিরণ এখনও জ্বলজ্বল করছে। আর এই শান্ত স্বচ্ছ আকাশের দিকে তাকালে দেখা যাবে বিশ্বের তৃতীয় সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গ ‘কাঞ্চনজঙ্ঘা’। ঠাকুরগাঁওয়ের কয়েকটি স্থান থেকে উত্তর দিকে তাকালে এখন সহজেই দেখা যাচ্ছে হিমালয় পর্বতমালার পর্বতশৃঙ্গ কাঞ্চনজঙ্ঘার সর্বোচ্চ চূড়া।২০১২ সালে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা বুঁড়ির বাঁধ নামক স্থান থেকে কাঞ্চনজঙ্ঘার সর্বোচ্চ চূড়ার প্রথম ছবি ক্যামেরা বন্দী করেন প্রকৃতি প্রেমী রেজাউল হাফিজ রাহী। পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করলে ছবিটি ভাইরালে পরিণত হয়।স্থানীয়রা জানান, বছরের অন্য সময়ে হিমালয়ের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গের দেখা পেতে পঞ্চগড়ের তেতুঁলিয়ায় যেতে হতো। কিন্তু এখন ঠাকুরগাঁও সদরের বুড়িবাঁধ নামক স্থানে দাঁড়ালে কাঞ্চনজঙ্ঘার সাদা বরফের গায়ে সূর্য কিরণের চকচকে আভা চোখে পড়ে। এই জন্য বাইনোকুলারেরও প্রয়োজন পড়ে না। আলো কম বেশির সঙ্গে সঙ্গে হিমালয়ের রূপও পরিবর্তিত হয়, যা প্রকৃতি প্রেমীদের আরও মুগ্ধ করে তোলে। উত্তরের আকাশে নয়না ভিরাম হিমালয় মূলত বরফে ঢাকা সাদা মেঘের মতোই। সেই সঙ্গে রয়েছে পিরামিডের মতো কাঞ্চনজঙ্ঘার চূড়া। চিলারং এলাকার মাজেদুর ইসলাম বলেন, ‘গত কয়েক বছর ভালোভাবে চূড়াটির দেখা না মিললেও এবার খালি চোখেই দেখা যাচ্ছে। আবহাওয়া ভালো থাকায় দেখা যাচ্ছে অপরূপ এই দৃশ্য।’ আকচা এলাকার শুভ শর্মা, রোহান রায়সহ অনেকেই জানান, এর আগে এতো পরিষ্কারভাবে হিমালয়ের চূড়া দেখা যায়নি। এবার মেঘমুক্ত নীল আকাশে সূর্যের আলোয় উত্তর দিকে তাকালেই সহজেই চোখে পড়ছে কাঞ্চনজঙ্ঘার। প্রকৃতি প্রেমী ও বিশিষ্ট ফটোগ্রাফার রেজাউল হাফিজ রাহী জানান, পাখি, নদী, প্রকৃতি, সবুজ ক্ষেত দেখার কথা চিন্তা করলেই ঠাকুরগাঁওয়ের নাম দেশের মানুষের চোখে ভেসে ওঠে। মানুষ জানে শুধু পঞ্চগড় থেকেই কাঞ্চনজঙ্ঘার প্রকৃতি দেখা যায়। কিন্তু আমি ২০১৪ সালে বুড়িরবাঁধ থেকে কাঞ্চনজঙ্ঘার প্রথম ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করি। এরপর থেকে মানুষ জেনেছে ঠাকুরগাঁও থেকেও কাঞ্চনজঙ্ঘার প্রকৃতির অপরূপ দৃশ্য উপভোগ করা যায়। প্রতিবছর সেই পর্বতশৃঙ্গের ছবি তুলেছি অনেকগুলো, যা দেখলে মনে হবে কাঞ্চনজঙ্ঘা চোখের সামনেই। ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক আব্দুল আওয়াল বলেন, ‘আগে জানতাম পঞ্চগড় থেকে আবছা আবছা দেখা যেতো। ঠাকুরগাঁওয়ে এসে জেনেছি বুড়িরবাঁধ নামকস্থান থেকে চকচক করে দেখা যায় হিমলয় পর্বত। আমিও ইতোমধ্যে বিশ্বের তৃতীয় সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গের দৃশ্য উপভোগ করেছি। এছাড়া এলাকার শিশু থেকে বয়স্ক মানুষও এ দৃশ্য দেখে চোখ জুড়াচ্ছে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মমতাজ বেগম
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2018. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close