banglarchokh Logo

লাউড়েরগড়,ফাজিলুপুর ও ধোপাজান মহালে পরিবেশ বিধ্বংসী কর্মকান্ড স্থায়ী বন্ধের দাবী

নাইম তালুকদার সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
বাংলার চোখ
 লাউড়েরগড়,ফাজিলুপুর ও ধোপাজান মহালে পরিবেশ বিধ্বংসী কর্মকান্ড স্থায়ী বন্ধের দাবী

সুনামগঞ্জ পরিবেশ আন্দোলন অত্যন্ত উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করছে, সম্প্রতি সুনামগঞ্জ জেলাধীন তাহিরপুর উপজেলার লাউড়রেগড়,ফাজিরপুর ও সুনামগঞ্জ সদর-বিশ্বম্ভরপুর উপজেলাধীন ধোপাজান বালি পাথর উত্তোলনে পরিবেশ বিধ্বংসী চক্রের চলমান অবৈধ কর্মকান্ডের ফলে এলাকার ফসলী জমি, রাস্তাঘাট, ঘরবাড়ি ও বিভিন্ন স্থাপনা সহ এলাকার পরিবেশ চরম ভাবে ধ্বংসের সম্মুখিন হয়ে পড়েছে। সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক মহোদয় ভারতের চেন্নাইতে চিকিৎসাধীন এক ফেইসবুক স্ট্যাটাসে উল্লেখ করেন ‘এলাকার ভূক্তভোগী মানুষগণ গভীর রাতেও আমাকে মোবাইল ফোনে যাদুকাটা/ধোপাজানের নদীর পাড়ের লোকজন পরিবেশ বিধ্বংসীদের তান্ডবের ফলে তাদের অসহায়ত্বের কথা জানালে তাৎক্ষনিক আমি পুলিশকে এব্যাপারে খেঁাজ নেওয়ার কথা বলি। পুলিশ ঘটনার সত্যতা পেয়ে আমাকে অবহিত করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ম্যাজিষ্ট্রেট ও পুলিশকে সাথে নিয়ে পরদিন সরজমিনে পরিদর্শনে গিয়ে নৌকা হতে পরে পায়ে মারাত্মক আঘাত পাই’। জেলা প্রশাসকের এহেন আন্র্Íরিক প্রচেষ্টার জন্য আমরা আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন ও সুস্থতা করছি। উল্লেখ্য যে, ধোপাজান নদী তীর বতর্ী এলাকায় ড্রেজার/বোমা মেশিন দিয়ে বালি-পাথর স্তুপীকৃত করায় একেরপর এক ভাঙ্গনের সৃষ্টি হলে জেলা প্রশাসক মহোদয় ৪ ডিসেম্বর ২০১৮ সালে ৭ দিনের মধ্যে নদীর স্তুপীকৃত বালি-পাথর অপসারনের জন্য মাইকিং যোগে নির্দেশনা জারি করেন। কিন্তু মুনাফা লোভী চক্র প্রশাসনের নির্দেশনার প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করে ডলুরা, খাইয়ারগঁাও, আদাং, মথুরকান্দি, জিনাপুর, কুচগঁাও, রতারগঁাও সহ ধোপাজান মহালের নদী ভাঙ্গন কৃত স্থানে এলাকার পরিবেশ প্রতিবেশ ধ্বংস করে ড্রেজার/বোমা মেশিন দিয়ে কোটি কোটি ঘনফুট বালি/পাথর স্তুপীকৃত করায় এলাকাবাসী বিশাল ক্ষতির সম্মুখীন হয়ে চরম আতংকে দিনাতিপাত করছেন। বা. আ. নৌ. কতর্ৃপক্ষের সার্ভে বহির্ভূত শাখা নদী ঝালখালী (সরুনদীর) ভেতর দিয়ে ডলুরা বি ও পি ক্যাম্প পর্যন্ত জাহাজ/বাল্গ হেড ডুকিয়ে এলাকাবাসীর বঁাধা সত্ত্বেও পরিবেশ প্রতিবেশের ক্ষতি সাধন করে বালি-পাথর বিক্রির অপ তৎপরতায় লিপ্ত রয়েছে। এব্যাপারে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমে নিয়মিত অনুসন্ধানী সংবাদ পরিবেশন অব্যাহত আছে। পরিবেশ বিধ্বংসী এমন কর্মকান্ডের প্রতিবাদে বিভিন্ন পরিবেশ বাদী সংগঠন সচেতন মহল বারকি শ্রমিক সংগঠন সাংবাদিক সমাজ বিগত ৮/১০ বৎসর যাবৎ নিয়মিত আবেদন নিবেদন সভা সমাবেশ ও সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে প্রতিবাদ জানিয়ে আসছেন। বর্তমান উদ্ভুত এ পরিস্থিতিতে এলাকার জনগণের জানমাল ও পরিবেশ রক্ষার্থে টাস্কফোর্স গঠন করে নিয়মিত অভিযান পরিচালনার মাধ্যমে আইনের যথাযত প্রয়োগ ঘটিয়ে অবৈধ কর্মকান্ড স্থায়ী ভাবে বন্ধ করার জন্য জোর দাবী জানিয়ে বিবৃতি প্রদান করেন। সুনামগঞ্জ পরিবেশ আন্দোলনের প্রধান উপদেষ্টা ডা. এডভোকেট মফচ্ছির মিয়া, পরিবেশ আন্দোলনের উপদেষ্টা ও সনাক সুনামগঞ্জ জেলা সভাপতি গোলাম কিবরিয়া, উপদেষ্টা ও কৃষক লীগের আহ্বায়ক আব্দুর কাদির শান্তি মিয়া, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি ও পরিবেশ আন্দোলনের উপদেষ্টা ফৌজি আরা শাম্মি, পরিবেশ আন্দোলন সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি একেএম আবু নাছার, সহ-সভাপতি মফিজ উদ্দিন, মোজাম্মেল হক, সাধারণ সম্পাদক মোঃ সাকিল আহমদ, সহ-সম্পাদক প্রভাষক ফজলুল করিম সাইদ, সহ-সম্পাদক প্রভাষক দুলাল মিয়া, সহ-সম্পাদক প্রভাষক শাহিনুর ইসলাম, সাংবাদিক জসিম উদ্দিন, সাংবাদিক আমিনুল হক, সাংবাদিক অরুন চক্রবতর্ী, সাংবাদিক শাহরিয়ার সুমন প্রমুখ।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কপিরাইট © 2019 বাংলারচোখ.কম কর্তৃক সর্ব স্বত্ব ® সংরক্ষিত। Developed by eMythMakers.com