banglarchokh Logo

টাঙ্গাইলে স্ত্রীকে হত্যার দায়ে পুলিশ সদস্যসহ দুইজনের মৃত্যুদন্ড

মোল্লা তোফাজ্জল, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি
বাংলার চোখ
 টাঙ্গাইলে স্ত্রীকে হত্যার দায়ে পুলিশ সদস্যসহ দুইজনের মৃত্যুদন্ড

টাঙ্গাইলে স্ত্রীকে হত্যার দায়ে পুলিশের সদস্য স্বামী আব্দুল আলীম ও তার বন্ধু শামীমের মৃত্যুদন্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।
সোমবার (০৫ আগষ্ট) দুপুরে টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালের হাকিম খালেদা ইয়াসমিন রায় ঘোষণা করেন।
মত্যুদন্ডপ্রাপ্তরা হলেন, কালিহাতী উপজেলার হিন্নাইপাড়া গ্রামের আবু হানিফের পুত্র পুলিশ কনস্টেবল আব্দুল আলীম ওরফে সুমন (৩২) এবং তার বন্ধু একই গ্রামের আবুল হাশেমের ছেলে শামীম আল মামুন (২৯)।
টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালের বিশেষ সরকারি কৌশুলী (পিপি) একেএম নাছিমুল আক্তার জানান, দন্ডিত পুলিশ সদস্য আব্দুল আলীম শিল্প পুলিশে কর্মরত অবস্থায় ২০১১ সালের ৬ মে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার ফলিয়ারঘোনা গ্রামের সুলতান আহমেদের মেয়ে সুমি আক্তারকে বিয়ে করেন। বিয়ের সময় যৌতুক হিসেবে পাঁচ লাখ টাকা দেয়ার কথা ছিল। কিন্তু সুমির বাবা তিন লাখ টাকা দিলেও দুই লাখ টাকা বাকী ছিল। যৌতুকের বাকী টাকার জন্য আব্দুল আলীম প্রায়ই স্ত্রীকে নির্যাতন করতেন। একপর্যায়ে স্ত্রী সুমি আক্তারকে বাবার বাড়ি পাঠিয়ে দেন। এরপর ২০১২ সালের ২০ এপ্রিল বঙ্গবন্ধু সেতু এলাকায় ঘুরতে যাওয়ার কথা বলে আলীম তাঁর স্ত্রীকে শশুর বাড়ি থেকে নিয়ে যায়। পরে তাঁকে ঢাকার তুরাগ থানার বেড়িবাঁধ এলাকায় নিয়ে বন্ধু শামীম আল মামুনের সহায়তায় গলায় ওড়না পেঁচিয়ে হত্যা করে।
পরে আব্দুল আলীম গ্রেপ্তার হওয়ার পর হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দী দেন। এ ব্যপারে নিহত সুমির মা বাদী হয়ে টাঙ্গাইল সদর থানায় দন্ডিত দুই জনের নামে মামলা দায়ের করেন।
ঘটনার পর আব্দুল আলীম পুলিশ কনস্টেবল পদ থেকে বরখাস্ত হয়ে কারাগারে আছেন। সোমবার রায় ঘোষনার পর দুইজনকে টাঙ্গাইল জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কপিরাইট © 2019 বাংলারচোখ.কম কর্তৃক সর্ব স্বত্ব ® সংরক্ষিত। Developed by eMythMakers.com