banglarchokh Logo

২৫ ঘন্টা পর উদ্ধার হলো সেই পাগলা মহিষ

মোল্লা তোফাজ্জল, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি
বাংলার চোখ
 ২৫ ঘন্টা পর উদ্ধার হলো সেই পাগলা মহিষ

টাঙ্গাইলে কোরবানির সময় ক্ষিপ্ত হয়ে কয়েকজনকে আহত করে পালিয়ে যাওয়া সেই মহিষটিকে ২৫ ঘণ্টা পর আটক করা হয়েছে।
মঙ্গলবার দুপুরে ভূঞাপুর উপজেলার অলোয়া ইউনিয়নের নিকলা বিলে মহিষটিকে ইনজেকশনে নিস্তেজ করে ঢাকা থেকে আসা প্রাণিসম্পদ বিভাগের একটি টিম। পরে সেটিকে উদ্ধার করে মালিকের কাছে হস্তান্তর করা হয়।
সোমবার বেলা ১১টায় ঘাটাইল উপজেলার যুগিহাটি গ্রামে এই মহিষটিকে কোরবানি দেওয়ার প্রস্তুতি নেওয়ার সময় লাফিয়ে ওঠে এবং ১১ জনকে গুঁতোয় আহত করে পালিয়ে যায়। সোমবার দিন-রাত চেষ্টা করেও মহিষটিকে উদ্ধার করা যায়নি।
ভূঞাপুর থানার এসআই শামছুল ইসলাম বলেন, মহিষটিকে উদ্ধারের জন্য ঢাকা থেকে প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের একটি দল ঘটনাস্থলে আসে। দলের সদস্যরা নৌকাযোগে নিকলা বিলে অবস্থানরত মহিষটিকে ইনজেকশন দিয়ে নিস্তেজ করে।
পরে ভূঞাপুর উপজেলা প্রশাসন, ভূঞাপুর থানা পুলিশ ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের যৌথ উদ্যোগে সেটি উদ্ধার করে মালিকের কাছে হস্তান্তর করা হয়।
ঘাটাইলের যুগিহাটি গ্রামের আরিফুল সরকারের বাড়িতে এই মহিষটি কয়েকজন মিলে কোরবানি দেওয়ার জন্য কিনেছিলেন। সোমবার কোরবানির প্রস্তুতির সময় হঠাৎ লাফিয়ে উঠে সেখানে থাকা কয়েকজনকে আহত করে মহিষটি ভূঞাপুরের কাগমারি পাড়ায় চরে চলে যায়।
পরে সন্ধ্যার দিকে ওই মহিষটিকে ধরতে পুলিশ ১ রাউন্ড গুলি ছোড়ে। কিন্তু গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। এরপর ঘটনাস্থরে উৎসুক লোকজনে ভিড় করায় পুনরায় গুলি চালানো সম্ভব হয়নি। রাতে মহিষটি কাগমারি থেকে অলোয়া ইউনিয়নের নিকলা বিলে চলে যায়।
২৫ ঘন্টা পর উদ্ধার হলো সেই পাগলা মহিষ
মোল্লা তোফাজ্জল, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি ঃ
টাঙ্গাইলে কোরবানির সময় ক্ষিপ্ত হয়ে কয়েকজনকে আহত করে পালিয়ে যাওয়া সেই মহিষটিকে ২৫ ঘণ্টা পর আটক করা হয়েছে।
মঙ্গলবার দুপুরে ভূঞাপুর উপজেলার অলোয়া ইউনিয়নের নিকলা বিলে মহিষটিকে ইনজেকশনে নিস্তেজ করে ঢাকা থেকে আসা প্রাণিসম্পদ বিভাগের একটি টিম। পরে সেটিকে উদ্ধার করে মালিকের কাছে হস্তান্তর করা হয়।
সোমবার বেলা ১১টায় ঘাটাইল উপজেলার যুগিহাটি গ্রামে এই মহিষটিকে কোরবানি দেওয়ার প্রস্তুতি নেওয়ার সময় লাফিয়ে ওঠে এবং ১১ জনকে গুঁতোয় আহত করে পালিয়ে যায়। সোমবার দিন-রাত চেষ্টা করেও মহিষটিকে উদ্ধার করা যায়নি।
ভূঞাপুর থানার এসআই শামছুল ইসলাম বলেন, মহিষটিকে উদ্ধারের জন্য ঢাকা থেকে প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের একটি দল ঘটনাস্থলে আসে। দলের সদস্যরা নৌকাযোগে নিকলা বিলে অবস্থানরত মহিষটিকে ইনজেকশন দিয়ে নিস্তেজ করে।
পরে ভূঞাপুর উপজেলা প্রশাসন, ভূঞাপুর থানা পুলিশ ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের যৌথ উদ্যোগে সেটি উদ্ধার করে মালিকের কাছে হস্তান্তর করা হয়।
ঘাটাইলের যুগিহাটি গ্রামের আরিফুল সরকারের বাড়িতে এই মহিষটি কয়েকজন মিলে কোরবানি দেওয়ার জন্য কিনেছিলেন। সোমবার কোরবানির প্রস্তুতির সময় হঠাৎ লাফিয়ে উঠে সেখানে থাকা কয়েকজনকে আহত করে মহিষটি ভূঞাপুরের কাগমারি পাড়ায় চরে চলে যায়।
পরে সন্ধ্যার দিকে ওই মহিষটিকে ধরতে পুলিশ ১ রাউন্ড গুলি ছোড়ে। কিন্তু গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। এরপর ঘটনাস্থরে উৎসুক লোকজনে ভিড় করায় পুনরায় গুলি চালানো সম্ভব হয়নি। রাতে মহিষটি কাগমারি থেকে অলোয়া ইউনিয়নের নিকলা বিলে চলে যায়।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কপিরাইট © 2020 বাংলারচোখ.কম কর্তৃক সর্ব স্বত্ব ® সংরক্ষিত। Developed by eMythMakers.com