banglarchokh Logo

আইয়ুব বাচ্চুর স্মৃতি স্মরণে `রুপালি গিটার`

মুহাম্মদ মহরম হোসাইন, চট্টগ্রাম ব্যুরো
বাংলার চোখ
 আইয়ুব বাচ্চুর স্মৃতি স্মরণে `রুপালি গিটার`

এই রুপালি গিটার ফেলে একদিন চলে যাবো দূরে বহুদূরে’ সত্যি সত্যিই তিনি আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। কিন্তু তার এই রুপালি গিটারের টুং টাং শব্দ এখনো হাজারো মানুষের মন কাঁদায়। কিংবদন্তি শিল্পী প্রয়াত আইয়ুব বাচ্চুর স্মৃতি স্মরণে
চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নগরের প্রবর্তক মোড়ে স্থাপন করেছে রুপালি গিটার।ফোয়ারা বেষ্টিত গিটারের আশপাশ জুড়ে করা হয়েছে সৌন্দর্যবর্ধনের কাজ।


১৮ ফুট উঁচু বিশাল দৃষ্টি নন্দন স্টিলের তৈরি এই গিটারটি দেখে পথচারীদের মাঝে নতুন উৎসাহ উদ্দীপনা দেখা দিয়েছে। এছাড়া
গিটারকে ঘিরে ঐ স্হানে বাচ্চু ভক্তদের মধ্যে প্রতিদিনই আনাগোনা শুরু হয়েছে। কেউ গিটারের সামনে ছবি তুলে ফেসবুকে পোষ্ট দিচ্ছেন। কেউ আবার গিটারকে তাদের প্রোফাইল টাইমলাইনে সেট করেছেন।

আইয়ুব বাচ্চুর `রুপালি গিটার` বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায়  উদ্বোধন করা হবে। উদ্বোধন করবেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।
শিল্পীর মৃত্যু বার্ষিকীর এক মাস আগে গিটারটি উদ্বোধন করা হচ্ছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,সাড়ে চার ফুট বেদীর ওপর গিটাররি বসানো হয়েছে।ফিনিশিংয়ের কাজ প্রায় সম্পন্ন।ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের লোকজন এখন উদ্বোধনের প্রহর গুনচ্ছেন।

 
গোলপাহাড় মোড় থেকে প্রবর্তকের দিকে যাওয়ার সময় গিটারটির সামনের অংশ চোখে পড়বে। এ ছাড়া চারপাশ থেকে গিটার ও বর্ণিল আলোর ফোয়ারার সৌন্দর্য নজর কাড়বে সবার। স্টিলের পাতে তৈরি গিটারটিতে ৬টি তার রয়েছে।

 এই ব্যপারে চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, আইয়ুব বাচ্চু চট্টগ্রামের সন্তান। তিনি আমাদের গর্ব। সে ছিল লাখ তরুণদের প্রেরণার উৎস।
পরবর্তী প্রজন্মের কাছে তাকে তুলে ধরতে ও তার প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর জন্যই এই  গিটার বসানো হয়েছে।
 চসিক সূত্র জানাযায়, নগরের সৌন্দর্যবর্ধনের অংশ হিসেবে আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে প্রায় ৩ কোটি টাকায় প্রবর্তক মোড় ও আশপাশের এলাকার কাজটি করছে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান আর্ডিওস ইংক ও স্ক্রিপ্ট। এ কাজের মধ্যে থাকবে রোড বিউটিফিকেশন, ওয়াকওয়ে নির্মাণ, দেয়ালে ম্যুরাল, সবুজায়ন ইত্যাদি।

২০১৮ সালের ১৮ অক্টোবর ঢাকায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন এলআরবির লিড গিটারিস্ট ও ভোকাল কিংবদন্তি আইয়ুব বাচ্চু। তার মৃত্যুতে পুরো দেশে শোকের ছায়া নেমে আসে। ২০ অক্টোবর চট্টগ্রামের জমিয়তুল ফালাহ মসজিদ মাঠে জানাজা শেষে স্টেশন রোডস্হ চৈতন্য গলি কবরস্থানে মায়ের কবরের পাশে দাফন করা হয়।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কপিরাইট © 2020 বাংলারচোখ.কম কর্তৃক সর্ব স্বত্ব ® সংরক্ষিত। Developed by eMythMakers.com