banglarchokh Logo

১৭২ বছরের পর বৃহষ্পতিবার ‘রিং অফ ফায়ার’সূর্যগ্রহণ

ডেক্স রিপোর্ট
বাংলার চোখ
 ১৭২ বছরের পর বৃহষ্পতিবার ‘রিং অফ ফায়ার’সূর্যগ্রহণ

বছরের শেষ সূর্যগ্রহণ। এক ঐতিহাসিক সূর্যগ্রহণ দেখতে পাবে গোটা দেশ। আগামী ২৬ ডিসেম্বর সেই সূর্যগ্রহণ দেখা যাবে। এইবারে ভারত থেকে এই অসামান্য মহাকাশীয় ঘটনাটি দৃশ্যমান হবে। শেষবার মানুষ দেখেছিল ১৭২ বছর আগে।

 আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে ২৬ ডিসেম্বর বলয়গ্রাস সূর্যগ্রহণ হবে

বাংলাদেশ সময় সকাল সাড়ে ৮টায় শুরু হয়ে দুপুর ২টা ৫ মিনিট ৩৬ সেকেন্ডে শেষ হবে সূর্যগ্রহণটি।  আকাশ পরিষ্কার থাকলে বাংলাদেশে আংশিক সূর্যগ্রহণ দেখা যাবে।

ইউরোপ, এশিয়া, অস্ট্রেলিয়া, পূর্ব আফ্রিকার দেশগুলো থেকে দেখা যাবে এই সূর্যগ্রহণ। তবে এবারের গ্রহণ সবচেয়ে ভালো দেখা যাবে সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে। ২০১৯ সালের শেষ সূর্যগ্রহণ হবে এটি।

চাঁদ যখন পরিভ্রমণরত অবস্থায় কিছু সময়ের জন্য পৃথিবী ও সূর্যের মাঝখানে এসে পড়ে, তখন পৃথিবীর নির্দিষ্ট কিছু স্থানের মানুষের কাছে সূর্য আংশিক বা সম্পূর্ণরূপে কিছু সময়ের জন্য অদৃশ্য হয়ে যায়।

পৃথিবীতে প্রতি বছর অন্তত দুই থেকে পাচঁটি সূর্যগ্রহণ দেখা যায়।

এ বছরের ৬ জানুয়ারি ও ২ জুলাই আরও দুটি সূর্যগ্রহণ হয়েছিল।  তবে সেগুলো উপমহাদেশীয় অঞ্চলের মানুষের দৃষ্টিগোচর হয়নি।
এ গ্রহণের সময় সূর্যের চারপাশে থাকবে আগুনের বলয়। বিজ্ঞানীরা যাকে বলেন ‘রিং অব ফায়ার’। আড়াই ঘণ্টা ধরে চলবে এই মহাজাগতিক দৃশ্য। সূর্যকে ৯০ শতাংশের বেশি ঢেকে ফেলবে চাঁদ, যা খালি চোখেই অবলোকন করতে পারবেন পৃথিবীবাসী। যখন চাঁদ তার কেন্দ্র থেকে সূর্যকে আচ্ছাদিত করে তখন চাঁদের ঢেকে দেওয়া অংশটুকু বাদে সূর্যের বাকিটা দৃশ্যমানই থাকে।
দেখে যেন মনে হয় একটা সোনালি রঙের আংটি। এই ধরণের সূর্যগ্রহণকেই বলয়াকার সূর্যগ্রহণ বলে। সুতরাং, এই বছর, চাঁদ সূর্যকে মাঝখান থেকে ঢেকে ফেলবে, এবং সূর্যের প্রান্তকে ‘আগুনের আংটি’ বা ‘আগুনের বলয়’ হিসাবেই দেখা যাবে।


 

 

 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কপিরাইট © 2021 বাংলারচোখ.কম কর্তৃক সর্ব স্বত্ব ® সংরক্ষিত। Developed by eMythMakers.com