banglarchokh Logo

যশোর সদর উপজেলার নৌকার মনোনয়ন পাচ্ছে কে ?

এম.জামান কাকা, যশোর থেকে
বাংলার চোখ
 যশোর সদর উপজেলার নৌকার মনোনয়ন পাচ্ছে কে ?

 যশোর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান নৌকার প্রার্থী হচ্ছেন কে- এই প্রশ্ন সকলের। এ উপজেলায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী কে হবেন তা নিয়ে জোর আলোচনা শুরু হয়ে গেছে আগেই। করোনা ভীতি আলোচনাকারিদের দমাতে পারেনি। ঝড় বইছে চায়ের দোকানে আর বিভিন্ন আড্ডায়।
২০১৯ সালের মার্চে অনুষ্ঠিত উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মধ্যে কোন্দলের কারণে চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী মনোনীত করতে ব্যর্থ হয় জেলা আওয়ামী লীগ। একাধিক প্রার্থী হওয়ায় শেষ পর্যন্ত কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের অপেক্ষা করতে হয় তৃণমূলকে। পরে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যশোর-৩ (সদর) আসনে দলের টিকেট বঞ্চিত হওয়া যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার পুনরায় সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পান। তিনি যথারিতী জয়লাভ করে উপজেলা চেয়ারম্যান হন। কেশবপুর উপনির্বাচনে জিতে তিনি এখন এমপি। ফলে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান পদ খালি। সঙ্গত কারনে ওই সময়কার সম্ভাব্য প্রার্থীরা নৌকার মনোনয়ন পেতে ইতিমধ্যে তদবির মিশনে মাঠে নেমে গেছেন। এবারও একক প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগ দিতে পারবে না বলে বলে জানিয়েছেন একাধিক নেতা। ফলে যশোর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান পদে কে পাচ্ছেন নৌকার টিকেট তা নিয়ে ব্যাপক আগ্রহ রয়েছে দলটির নেতাকর্মীদের মধ্যে।
আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা বলেন, যশোর সদর উপজেলায় দলীয় প্রতীক পেতে ইতিমধ্যে তদবিরে মাঠে নেমে গেছেন কয়েকজন। ঢাকা, গোপালগঞ্জ, বাগেরহাট, খুলনায় লবিং করছেন কেউ কেউ। দলীয় সূত্রে জানা গেছে, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদারের অনুসারীদের মধ্যে কয়েকজন আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী রয়েছেন। এছাড়া জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক মীর জহুরুল ইসলাম, সাবেক শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক ব্যবসায়ী ও কুইন্স হসপিটালের জিএম হুমায়ুন কবীর কবু, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহিত কুমার নাথ, সাধারণ সম্পাদক ও আরবপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহারুল ইসলাম ও সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বিপুলের নাম শোনা যাচ্ছে। এছাড়া জেলা সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন গতবার মনোনয়ন চেয়েছিলেন। এখনো তিনি ফিল্ডে আছেন। যশোর-৩ সদর আসনের এমপি কাজী নাবিল আহমেদের পক্ষে তিনি দলীয় মনোনয়ন চায়ছেন। এ তালিকায় রয়েছেন ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বিপুলও।
আরবপুর ইউপির চেয়ারম্যান ও সদর থানা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক শাহারুল ইসলাম জানান, আমার নেতা শাহীন চাকলাদার যাকে সমর্থন করবেন তাকেই আমি সমর্থন করবো। তিনি যদি মনে করেন আমি যোগ্য, তাহলে আমার ভোটে আপত্তি নেই।
সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহিত কুমার নাথ জানান, মনোনয়নের ব্যাপারে আমি আশাবাদী। দলের জন্য জীবনকে উৎসর্গ করেছি। রাজনৈতিক জীবনে আমার কোনো ত্রুটি নেই।
জেলা আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক হুমায়ুন কবীর কবু জানান, ছাত্রলীগ করেছি। স্বৈরশাসক এরশাদের বিরুদ্ধে রাজপথে আন্দোলন করেছি। গত ১৫ বছর ধরে জেলা আওয়ামী লীগের সম্পাদক মন্ডলিতে ছিলাম। সাধারণ মানুষের সেবা করে যাচ্ছি। সদর উপজেলা নির্বাচনে দলের মনোনয়ন পেলে আশা করি মানুষ আমাকে নির্বাচিত করবেন। এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, দলের সিদ্ধান্তের বাইরে অবস্থান নেব না। নেত্রী যাকে মনোনয়ন দেবেন তার পক্ষে কাজ করব। তিনি ভদ্র প্রার্থী দলের।
দলীয় সিদ্ধান্তের ব্যাপারে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার জানান, আওয়ামী লীগ সভাপতি জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং সংসদীয় ও স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ড নৌকা প্রতীক দেন। এখন মনোনয়ন কেনা হয় ঢাকা থেকে, চূড়ান্তও করা হয় ঢাকা থেকে। এ কারণে জেলা থেকে কোনো তালিকা পাঠানো হয় না। জননেত্রী শেখ হাসিনা যাকে মনোনয়ন দেবেন তার জন্য কাজ করবে দল।

 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কপিরাইট © 2020 বাংলারচোখ.কম কর্তৃক সর্ব স্বত্ব ® সংরক্ষিত। Developed by eMythMakers.com