banglarchokh Logo

চাঁচাড়ায় অন্যের গাছ বিক্রি করলেন স্থানীয় চেয়ারম্যান

মালেকুজ্জামান কাকা, যশোর
বাংলার চোখ
 চাঁচাড়ায় অন্যের গাছ বিক্রি করলেন স্থানীয় চেয়ারম্যান

চাঁচাড়ায় অন্য এক ব্যক্তির গাছ বিক্রি করলেন স্থানীয় চেয়ারম্যান। যশোর সদর উপজেলার চাঁচড়া ইউনিয়নের রুপদিয়া বাজার এলাকায় পেশী শক্তি ব্যবহার করে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এক ব্যক্তির মেহগনি গাছ কেটে বিক্রি করে দিয়েছেন। এ ঘটনায় এলাকার বিক্ষুব্ধ মানুষ ওই গাছ আটকিয়ে দিয়েছে। গাছের মালিক এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি নিয়েছেন।
যদিও অভিযুক্ত ওই জন প্রতিনিধি দাবি করেছেন, মালিকের সাথে কথা বলেই গাছ কাটা হয়েছে। সব সমস্যার সমাধান হয়ে গেছে।
স্থানীয় একাধিক সূত্র জানিয়েছে, রুপদিয়া বাজারের উত্তর পাড়ায় পুকুর পাড়ে রাস্তা ঘেঁষে নিজের জমিতে এলাকার আক্কাস মোড়ল মেহগনি গাছ লাগান। বিধি অনুযায়ী গাছ সরকারি রাস্তার অংশে পড়লেও গাছ বিক্রির টাকার বেশি অংশের দাবিদার যিনি গাছ লাগান এবং দেখাশুনা করেন। এছাড়া তাকে জানিয়েই গাছ কর্তন বা বিক্রি করার বিধি। সে হিসেবে আক্কাস মোড়লই ওই গাছের প্রধান এবং বৈধ দাবিদার। কিন্তু তাকে কিছ্ ুনা জানিয়ে চাঁচড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল আজিজ বিশ্বাস ওই গাছটি বিক্রি করে দিয়েছেন। নিজে সমুদয় টাকা পকেটস্থ করেছেন। এলাকার কামরুল নামে একজনের কাছে তিনি গাছ বিক্রি করেন। গত ১৯ জানুয়ারি কামরুল ইসলাম ওই গাছ কেটে নেয়ার সময় বাধ সাধেন আক্কাস মোড়ল ও তার লোকজন।
গাছ ক্রেতা কামরুল জানান, তার কোনো দোষ নেই। এটা চেয়ারম্যানের কাছ থেকে তিনি কিনেছেন। এছাড়া চেয়ারম্যান গোপনে তার কাছ থেকে নগদ ২৬ হাজার টাকা গ্রহণ করেছেন। এসময় স্থানীয়রা কাটা গাছ আটকে দেন।
গাছ মালিক আক্কাস মোড়ল জানিয়েছেন, তিনি তার জমিতেই গাছ লাগিয়েছেন। সরকারি রাস্তার পাশে হওয়ায় বন বিভাগ, সড়ক ও জনপথ বিভাগ, ইউনিয়ন পরিষদ অংশ পাবে। গাছ লাগানো ও দেখা শুনাকারী হিসেবে ধরে তিনি বেশি অংশ পাবেন। অথচ চেয়ারম্যান আজিজ তঞ্চকতা করে ওই গাছ বিক্রি করেছেন। এই টাকা ইউনিয়নে জমা হবে না। জমা হয়েছে তার পকেটে। এছাড়া বন বিভাগ, সড়ক বিভাগ, সড়ক ও জনপথ বিভাগ কিছুই জানে না। তিনি চেয়ারম্যান আব্দুল আজিজের প্রতারণা ও চৌর্যবৃত্তি ঘটনার শাস্তি দাবি করেছেন।
এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান আব্দুল আজিজ জানিয়েছেন, গাছটি আক্কাস মোড়লের লাগানো সত্য। তিনিই দাবিদার এটাও সত্য। তবে তাকে জানিয়েই ওই গাছ বিক্রি ও কাটা হয়েছে। একটু ভুল বুঝাবুঝি হয়েছে। সমঝোতা হয়ে গেছে। আর কোনো সমস্যা নেই, সব সমাধান হয়ে গেছে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কপিরাইট © 2021 বাংলারচোখ.কম কর্তৃক সর্ব স্বত্ব ® সংরক্ষিত। Developed by eMythMakers.com