banglarchokh Logo

চামড়া কিনে লোকসানের মুখে সাঁথিয়ার ব্যবসায়ীরা

মনসুর আলম খোকন,সাঁথিয়া (পাবনা) প্রতিনিধি
বাংলার চোখ
 চামড়া কিনে লোকসানের মুখে সাঁথিয়ার ব্যবসায়ীরা

ঢাকার ট্যানারী মালিকরা নাটোর আড়তে চামড়া কিনতে শুরু না করায় পাবনার সাঁথিয়ার চামড়া ব্যবসায়ীরা মোটা অংকের লোকসানের মুখে পড়ার আশংকা করছে। অপরদিকে গত বছরগুলোর বকেয়া টাকা ট্যানারী মালিকরা পরিশোধ না করায় হতাশায় ভুগছে এসব ব্যবসায়ী।
২১ জুলাই ঈদুল আযহার কোরবানির পশুর চামড়ার সরকার নির্ধারিত ৪০/৪৫ টাকা ফুটে কিনতে চাচ্ছে না ট্যানারী মালিকরা। তারা নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে কম দামে চামড়া কিনতে বিভিন্ন তালবাহনা করছে বলে জানান ব্যবসায়ীরা। ব্যবসায়ীদের দাবি, মহাজন ও কোম্পানীর মালিকরা না এসে প্রতিনিধির মাধ্যমে নাটোর আড়তে কম দামে চামড়া কিনতে চাচ্ছে। আড়তে দাম কম হওয়ায় ব্যবসায়ীরা নিজ বাড়িতে স্তুপ করে রেখেছে চামড়া। সাঁথিয়ার সবচেয়ে বড় চামড়া ব্যবসায়ী বিষ্ণুপুর গ্রামের বিমল কুমারের ছেলে শ্যামল কুমার জানান, ট্যানারী মালিকরা ৩০/৩৫ টাকা ফুট মূল্যে চামড়া কিনতে আগ্রহী। আমরা ফরিয়া ও সরাসরি মালিকপক্ষের নিকট থেকে ৩০/৩৫ টাকা ফুট মুল্যে চামড়া কিনেছি। শ্রমিক দ্বারা পরিস্কার, লবণ মিশানো ও পরিবহন মিলে ফুট প্রতি ১০ টাকা খরচ হয়। সে তুলনায় চামড়া প্রতি ৩০০/৪০০ টাকা লোকসান হবে। ১৩ শত পিচ গরুর চামড়ায় এত বেশি ক্ষতি পোষানো সম্ভব নয়। দাম কম হওয়ায় ঘরে স্তুপ করে রেখেছি চামড়া। তিনি আরও জানান, ৪ বছর আগে ঢাকার হেমায়েতপুরের সাবিনা ট্যানারী মালিকের নিকট ৩২ লক্ষ টাকার চামড়া বাকী দেই। এ পর্যন্ত মাত্র ৮ লক্ষ টাকা পরিশোধ করেছে। ২৪ লক্ষ টাকা পাওয়া নিয়ে আতংকে রয়েছি। কাশিনাথপুরের ব্যবসায়ী শুটকা জানান, আমি ও সুরমান প্রায় ১৫ শত চামড়া নিয়ে নাটোর আড়তে যাই। সেখানে ঢাকার ট্যানারী মালিকরা না আসায় চামড়ার দাম কম। লকডাউনে বসে থেকে খরচ হওয়ায় বাধ্য হয়ে চামড়া রেখে বাড়িতে চলে এসেছি। ব্যবসায়ী অজিত কুমার জানান, কোরবানির সময় লাভের আশায় সুদ ও ঋণ করে টাকা এনে চামড়া কিনে থাকি। লোকসান হলে আত্মহত্যা ছাড়া উপায় থাকবে না। ব্যবসায়ীরা জানান, শুধুমাত্র সাঁথিয়া উপজেলা থেকে প্রায় ৭ হাজার পিচ চামড়া নাটোর আড়তে যাবে। সরকার নির্ধারিত দামে চামড়া বিক্রয় করতে না পারলে তারা মোটা অংকের লোকসানের মুখে পড়বে।সাঁথিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার এসএম জামাল আহমেদ জানান, সরকারের নির্ধারিত মূল্যে ও চামড়ার যেন কোন অপব্যবহার না হয় সে দিকে বিশেষ নজর আমাদের ছিল। ভবিষ্যতে চামড়ার বাজার মূল্য বৃদ্ধির জন্য সংশ্লিষ্ট সরকারি দপ্তরকে জানাবো।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কপিরাইট © 2021 বাংলারচোখ.কম কর্তৃক সর্ব স্বত্ব ® সংরক্ষিত। Developed by eMythMakers.com