Banglar Chokh | বাংলার চোখ

রাজশাহীতে “সকল সেবা” এর আনুষ্ঠানিক পথযাত্রা শুরু

সোহরাব হোসেন সৌরভ,রাজশাহী থেকে

প্রকাশিত: ২১:১১, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

রাজশাহীতে “সকল সেবা” এর আনুষ্ঠানিক পথযাত্রা শুরু

নিজস্ব ছবি

রাজশাহীতে বহুল প্রতিক্ষিত ডিজিটাল সার্ভিস বিষয়ক ব্যাবসায়িক প্রতিষ্ঠান "সকল সেবা" এর শুভ উদ্বোধন ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (১৬ সেপ্টেম্বর) রাজশাহী নগরীতে অবস্থিত সেফ গার্ডেন রেস্টুরেন্টের হল রুমে বিকাল ৫ টায় এই উদ্বোধন ও মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়।

'সকল সেবা' এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহীর কৃতি সন্তান, গণপ্রজাতন্ত্রী তানজানিয়া সরকারের সাবেক সম্মানীয় রাষ্ট্রদূত ও বর্তমানে স্বল্প উন্নত দেশের উন্নয়ন বিশেষজ্ঞ ড. ইঞ্জি. রফিকুল ইসলাম।

তিনি তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন, বর্তমানে ডিজিটাল প্রযুক্তির যুগে ইন্টারনেটের ছোঁয়ায় অনেক দেশ এগিয়ে গেছে। তিনি বলেন “মহান আল্লাহর ইচ্ছায় আমার আমেরিকা, ইউরোপ, এশিয়া ও আফ্রিকার বিভিন্ন দেশ দেখা ও বসবাসের সৌভাগ্য হয়েছে। সাইবার কমিউনিকেশন ব্যবহার করে অনেক দরিদ্র দেশও দেশ পরিচালনা ও উন্নয়নে বিশেষ অগ্রগতি অর্জন করেছে।

তিনি বলেন, আফ্রিকার এক দরিদ্র দেশ রুয়ান্ডা এর প্রমাণ, যেখানে ট্রাফিক কন্ট্রোল, পার্কিং, ভূমি রেজিস্ট্রেশন ও ভূমির মালিকের ইউনিক আইডি ও ডিজিটাল এওঝ ম্যাপ, সকল প্রকার ট্যাক্সেশন, ক্রয়-বিক্রয়, এইরকম বহু সেবা অনলাইন দিয়ে প্রদান করা হয়। করোনার সময় বিমানবন্দরের আগত যাত্রীদেরকে রোবটের সাহায্যে স্যাম্পল কালেকশন করা হ্য়েছিল। সেখানে ড্রোনের সাহায্যে প্রত্যন্ত অঞ্চলেও ঔষুধ ও প্রয়োজনীয় দ্রব্য অত্যন্ত অল্প সময়ে সরবরাহ করা হয়। এইজন্য দেশটাকে সিঙ্গাপুর অফ আফ্রিকা বলা হয় এবং কিগালি শহরকে ক্লিনেস্ট সিটি ইন আফ্রিকা বলা হয়।

তিনি আরও উল্লেখ করেন যে, বাংলাদেশেও ডিজিটাল প্রযুক্তি ও ইন্টারনেটের ব্যবহারে উন্নয়নের ছোয়া লেগেছে। সরকারের বিশেষ সদিচ্ছা আছে ডিজিটাল সেবা সকল ক্ষেত্রে সম্প্রসারন করার। তবে জনগন যদি এর সাথে সম্পৃক্ত না হয়, তবে এর প্রকৃত সুফল পাওয়া যাবে না। সেই জন্য সকলকে এই ডিজিটাল সেবার সাথে একাত্ব হ্তে হবে এবং এটাকে গ্রহন করে নিতে হবে দেশ ও নিজের উন্নয়নের জন্য।

তিনি উদ্যক্তাদের উল্লেখ করে বলেন, জনগনকে সম্পৃক্ত করার এই প্রচেষ্টায় বাংলাদেশের দ্রুত উন্নয়ন এবং অল্প সময়ে অনেক বেশি সেবা প্রদান করার লক্ষ্যে রাজশাহীতে সকল সেবার মত অনলাইন ভিত্তিক সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান শুরু করতে দেখে আমি অত্যন্ত আনন্দিত এবং অভিভূত।

সাবেক সম্মানীয় রাষ্ট্রদূত এর অভিজ্ঞতায় এই ধরনের সম্মিলিত সেবা এক প্লাটফর্ম থেকে প্রদান করার উদ্যোগ এই প্রথম।  তার বিশ্বাস এই প্রতিষ্ঠান বিশ্বের অনেক দেশেই এই সেবার মডেল ছড়িয়ে দিতে পারবে। সমাপনিতে তিনি সকলকে অনুরোধ করেন এই উদ্যোক্তাদের পাশে দাড়ানোর এবং নিজে প্রয়োজনে যেকোন সাহায্য করার অঙ্গিকার করে প্রতিষ্ঠানের দ্রুত সাফল্য কামনা করেন।

অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন সকল সেবার চেয়ারম্যান ও সিইও জনাব ইঞ্জি. আরিফুল ইসলাম। অনুষ্ঠানের শুরুতেই তিনি প্রজেক্টরের মাধ্যমে ংড়শড়ষংযবনধ.ীুু ওয়েবসাইটটি সকলের নিকট পরিচিত করিয়ে দেন এবং ওয়েব সাইট থেকে সবাই কিভাবে সেবা গ্রহণ করতে পারবে তার দিক নির্দেশনা দেন। এর পর উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত থেকে প্রতিষ্ঠানটির শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন রাজশাহী চেম্বার অব কমার্স এর সাবেক পরিচালক জনাব ইঞ্জি. জিয়া উদ্দিন আহমেদ।

এসময় চেয়ারম্যান ও সিইও মহোদয় বলেন, বর্তমান সময়ে আমরা খুব বেশি ব্যস্ত হয়ে পড়েছি। যার কারনে সাংসারিক অনেক কাজ করার সময়ও পায় না। মাঝে মাঝে মনে হয় যদি ৪৮ ঘন্টায় ১ দিন হত তাহলে কতই না ভাল হতো! বাসার সমস্থ কাজ যদি কেউ বাসায় এসে করে দিয়ে যেত তবে একটু বিশ্রাম পাওয়া যেত।

আবার চতুর্দিকে খরচের পরিমানটাও বেড়েছে কিন্তু সে অনুযায়ী আয় বাড়েনি। যদি কোথাও কেনাকাটায় কিংবা চিকিৎসা সেবায় কিছুটা ডিসকাউন্ট পাওয়া যেত তবে হয়তো কিছুটা সেভিংস করা সম্ভব হতো।

তিনি আরো বলেন, সময় যত যাচ্ছে মানুষ তার প্রয়োজনীয় সেবা পাওয়ার উপায়টা আরো সহয করে পেতে চাচ্ছে। অনলাইনে কেনাকাটার উপায় এসে এক দিকে যেমন সহয হয়েছে আবার অন্যদিকে বিড়ম্বনা কিংবা প্রতারণার শিকারও হতে হচ্ছে। তবে পণ্য কেনাকাটার বিষয়টি সহযলভ্য হলেও বিভিন্ন ধরণের হোম সার্ভিসগুলো এখনো সহযলভ্য হয় নি। হাতে গোনা কয়েকটা প্রতিষ্ঠান ছাড়া এই ধরনের সার্ভিস মূলক প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেনি।

সিইও মহোদয় বলেন, বর্তমান প্রেক্ষাপট এবং ভবিষ্যৎ বিবেচনায় রেখে আমরা "সকল সেবা" নামের সার্ভিস রিলেটেড প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমরা মনে করি, ঘরে বসেই এক জায়গাতেই বাসা বাড়ির সকল ধরনের সেবা পাওয়ার নির্ভরযোগ্য প্রতিষ্ঠান হচ্ছে "সকল সেবা"। আপাতত আমরা ২০ টির মত সেবা নিয়ে কার্যক্রম পরিচালনা শুরু করছি।

তিনি বলেন, আমাদের মূল লক্ষ হচ্ছে, আগামী ৫ বছরের মদ্ধে একটি পরিবারের প্রয়োজনীয় যাবতীয় সেবা প্রদান করা। এছাড়াও আমাদের প্রতিষ্ঠান থেকে অনেক কর্মসংস্থানও সৃষ্টি হবে যা বেকারত্ব দুরীকরণে বিশেষ ভূমিকা রাখবে বলে আমরা আশাবাদী।

আমাদের প্রধান উদ্দেশ্য হচ্ছে, দেশে প্রচুর কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা এবং দেশের প্রতিটি ঘরে ঘরে আমাদের সেবা পৌছে দেওয়া। আপাতত আমাদের সেবা শুধুমাত্র রাজশাহী শহরেই সীমাবদ্ধ থাকবে তবে অদূর ভবিষতে সারা দেশেই আমাদের কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

পরিশেষে তিনি বলেন "আমরা সমাজ পরিবর্তন করতে এসেছি, সমাজকে আরো উন্নত করতে এসেছি, সমাজের মানুষের জীবনাধারাকে সহয করতে এসেছি এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে এগিয়ে নিতে এসেছি। আপনার সকলে আমাদের পাশে থাকলে আমাদের লক্ষ ও উদ্দেশ্য পুরন করতে সময় লাগবে না।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, নিরাপদ সড়ক চাই, রাজশাহী জেলা শাখার সভাপতি এ্যাড. তৌফিক আহসান টিটু, রাজশাহী সার্ভে ইন্সটিটিউট এর সাবেক অধ্যক্ষ জনাব ইঞ্জি. মাহমুদ হোসেন, রাজশাহী ওয়াসার নির্বাহী প্রকৌশলী জনাব ইঞ্জি. রেজাউল হুদা কোকো এবং পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী জনাব ইঞ্জি. ময়েজ উদ্দিন। বক্তব্যে তারা সকলেই বিভিন্ন ধরনের দিক নির্দেশনা ও পরামর্শ দিয়ে সকল সেবার উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করেন।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক ইঞ্জি. আতিকুল হক মন্ডল, ইঞ্জি. খাইরুল আলম, ইঞ্জি. আকিদ আহমেদ, সুধীজন, গ্রাহক ও সার্ভিস প্রোভাইডারগণ এবং সমাজের বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ।

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়