Banglar Chokh | বাংলার চোখ

একদিনে পাঁচ ইসলামী ব্যাংক ৪ হাজার কোটি টাকা ধার নিয়েছে

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০১:৫৪, ৮ ডিসেম্বর ২০২২

আপডেট: ০২:০৮, ৮ ডিসেম্বর ২০২২

একদিনে পাঁচ ইসলামী ব্যাংক ৪ হাজার কোটি টাকা ধার নিয়েছে

.

তারল্য সংকটে পড়ায় দেশের শরিয়াহভিত্তিক ব্যাংকগুলোকে তারল্য সুবিধা বা টাকা ধার দিতে বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। তারল্য সংকট কাটাতে ১৪ দিন মেয়াদে এ সুবিধা পাবে ইসলামী ধারার এসব ব্যাংক। এরই মধ্যে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এ সুবিধা দেয়ার প্রথম দিনই পাঁচটি ইসলামী ধারার ব্যাংক বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ৪ হাজার কোটি টাকা ধার নিয়েছে। সুকুকের বিপরীতে দেয়া এ টাকা ব্যাংকগুলোর হিসাবে যুক্ত হবে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা এই তথ্য নিশ্চিত করেন। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কাছ থেকে অর্থ ধার নেয়া পাঁচ ব্যাংকের মধ্যে রয়েছে- ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড, ইউনিয়ন ব্যাংক লিমিটেড, সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড ও গ্লোবাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড।

গত সোমবার এ সংক্রান্ত একটি পরিপত্র জারি করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। সেখানে বলা হয়েছিল, ইসলামিক আর্থিক ব্যবস্থাকে অধিকতর শক্তিশালী করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষে এ তারল্য সুবিধা দেয়া হবে। শরিয়াহভিত্তিক ব্যাংকগুলো সপ্তাহের প্রতি কার্যদিবসে নিয়মিতভাবে এ সুবিধা নিতে একটি ফরমে আবেদন করতে পারবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের এক কর্মকর্তা বলেন, ইসলামিক ব্যাংকস লিকুইডিটি ফ্যাসিলিটির মাধ্যমে পাঁচটি ইসলামী ব্যাংককে ৪ হাজার কোটি টাকা দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। বুধবার ব্যাংকগুলোর হিসাবে এসব টাকা যুক্ত হবে। সুকুকের বিপরীতে প্রথম দিনে এ টাকা দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

প্রয়োজনমতো টাকা নিতে পারবে ইসলামী ধারার অন্য ব্যাংকগুলোও। 
তবে প্রথম দিন সবচেয়ে বেশি টাকা দেয়া হয়েছে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডকে। দেশে ১০টি ইসলামী ব্যাংকের মধ্যে সবচেয়ে বড় ব্যাংক ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড। সামপ্রতিক অস্থিরতায় বেসরকারি খাতের সবচেয়ে বড় এ ব্যাংকটির আমানত প্রতিদিন কমছে। গত সোমবার ব্যাংকটির আমানত কমে দাঁড়িয়েছিল ১ লাখ ৪৬ হাজার ৯৬৪ কোটি টাকায়। গত ৩১শে অক্টোবর ব্যাংকটির আমানত ছিল ১ লাখ ৫৩ হাজার ২৭২ কোটি টাকা।

উল্লেখ্য, ইসলামী ধারার সব ব্যাংককে এত দিন টাকা ধার দিয়ে আসছিল ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড। তবে ইসলামী ব্যাংক এখন টাকার জন্য অন্য ব্যাংকের কাছে যাচ্ছে। ফলে ইসলামী ধারার অন্য ব্যাংকগুলোও হঠাৎ তারল্য সংকটে পড়েছে।

উৎস: মানবজমিন

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়