Banglar Chokh | বাংলার চোখ

ভূমি বেদখলের প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে তিন সংগঠনের বিক্ষোভ

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ০০:৩৬, ২৮ অক্টোবর ২০২২

ভূমি বেদখলের প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে তিন সংগঠনের বিক্ষোভ

নিজস্ব ছবি

আদালতে দেয়া নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করে লামায় ম্রো-ত্রিপুরাদের ৪০০ একর ভূমিতে অবৈধ প্রবেশ পূর্বক জমি বেদখলের ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে এবং আইন লঙ্ঘনকারী লামা রাবার ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড এর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে খাগড়াছড়িতে বিক্ষোভে মিছিল করেছে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ, গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম ও হিল উইমেন্স ফেডারেশন।

আজ বৃহস্পতিবার (২৭ অক্টোবর) বিকেল ৫টা দিকে তিন সংগঠনের খাগড়াছড়ি জেলা শাখা যৌথ উদ্যোগে খাগড়াছড়ি শহরের নারাঙহিয়া এলাকা থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি স্বনির্ভর বাজারে শেষ করে পরে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাধারন সম্পাদক শান্ত চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সহ-সভাপতি লিটন চাকমা ও হিল উইমেন্স ফেডারেশনের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার আহ্বায়ক এন্টি চাকমা।

বক্তারা বলেন, নামে বেনামে ভূমি বেদখল করে পাহাড়িদের উচ্ছেদের প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে। সরকার মানুষ নয়, মাটি চাই এই নীতি গ্রহণ করে পাহাড়ি ধ্বংসের নীল নকশা বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় বান্দরবানের লামা উপজেলায় লামা রাবার ইন্ডাস্ট্রিজকে লেলিয়ে দিয়ে সেখানকার ম্রো ও ত্রিপুরাদের জুম ভূমি বেদখলের চেষ্টা করা হচ্ছে।

বক্তারা আরো বলেন, লামা সরই ইউনিয়নে রাবার ইন্ডাস্ট্রিজ কর্তৃক রেংযেন ম্রো পাড়া, লাংকম ম্রো পাড়া ও জয়চন্ত্র ত্রিপুরা পাড়ায় বসবারসত ম্রো ও ত্রিপুরাদের ৪০০ একর জুম ভূমি জবরদখলের যে প্রচেষ্টা চালাচ্ছে তা সম্পূর্ণ বৈআইনি ও জবরদস্তিমূলক। স্থানীয় প্রশাসন কর্তৃক গত ২৭ সেপ্টেম্বর জারিকৃত ১৪৪/৪৫ ধারা উপেক্ষা করে গত ৩/৪ দিন ধরে রাবার কোম্পানির নিয়োজিত লোকজন রেংয়েন ম্রো পাড়া এলাকায় পূনরায় অনুপ্রবেশ করে ম্রো ও ত্রিপুরাদের ভোগদখলীয় জুমের বন ও ফলজ বাগান কেটে সাবাড় করে দিচ্ছে। প্রশাসন রাবার কোম্পানির পক্ষে পক্ষপাতিত্ব করার করণেই তারা এমন অন্যায় কাজ করার সাহস পাচ্ছে বলে বক্তারা অভিযোগ করেন।

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়