Banglar Chokh | বাংলার চোখ

যশোরে গাছে গাছে সোনালী রঙের আম মুকুল

মালিকুজ্জামান কাকা,যশোর থেকে

প্রকাশিত: ০১:১৩, ২৫ জানুয়ারি ২০২৩

যশোরে গাছে গাছে সোনালী রঙের আম মুকুল

নিজস্ব ছবি

যশোরের আম গাছে ভরে গেছে সোনালী রঙের আমের মুকুল। এ যেন এক অপরূপ সৌন্দর্য প্রকাশ হচ্ছে। 
কবির ভাষায় ‘মা তোর আমের বনে ঘ্রাণে পাগল করে’। যশোরে ঋতুরাজ বসন্তের আগমনের সাথে সাথে গাছে গাছে শোভা পাচ্ছে সোনালী রঙের আমের মুকুল, যশোর সদর উপজেলা ও তার আশেপাশে এলাকাগুলোতে ছোট-বড় প্রায় সকল গাছে ঝুলছে থোকা থোকা আমের মুকুল এতে বেড়েছে ভ্রমরের আনাগোনায় মুকুলের মৌ মৌ গন্ধে মুখরিত যশোর।
যশোরের গ্রামে গ্রামে ঘুরে দেখা যায় বাড়ির আঙিনায়, পুকুরপাড়ে, বাগান সহ সকল আম গাছে মুকুলে মুকুলে ছেয়ে গেছে। ছোট-বড় প্রায় সকল গাছ মুকুলে ভরে গেছে স্থানীয় দেশি জাত সহ আম্রপালি, ফজলি, লতাই ,ন্যাংড়া,আমরুপালী সহ নানা জাতের আম গাছে এসেছে পর্যাপ্ত মুকুল। মুকুল আসলে অনেকেই গাছে স্প্রে করার জন্য ভ্রাম্যমাণ স্প্রয়ের অপেক্ষায় আছে ,কেউ কেউ নিজ উদ্যোগে স্প্রে করে থাকে।
যশোরের ঝুমঝুমপুরের বিভিন্ন নার্সারিতে কথা বললে তারা বলেন মুকুল আসার সাথে সাথে মুকুলে সকালে পানি স্প্রে করতে হয় ও হালকা কীটনাশক স্প্রে করা দরকার কুয়াশা বেশি হলে আমের মুকুল পুড়ে যায়। মুকুল থেকে গুটি ধরার পরে গাছে পিপড়া লাগতে পারে পিঁপড়া আমের গুটি ক্ষতিসাধন করে থাকে। তবে এ বছরের প্রথমে যশোরে কুয়াশা কিছুটা বেশি থাকায় আমের ফলনের কিছুটা কম হলেও অন্য বছরের তুলনায় ভালো ও বেশি হতে পারে ।
এই ব্যাপারে আম বাগান মালিকরা বলেন, ‘আমরা আশা করি এবার আমের বম্পার ফলন হবে,আমাদের আম যশোরের বিভিন্ন বাজারে চাহিদা মিটিয়ে দেশের বিভিন্ন শহরে ও বাজারে বিক্রির জন্য পাঠানো হয়, আরো বলেন এই বছর মুকুল আসার মুহুর্তে বৃষ্টি না হওয়ায় এবছর আমের মুকুল তাপে পুড়ে যাওয়ায় সম্ভাবনা থাকবে। তবে আশা করছি গত বছরের চেয়ে এবছর আমের বাম্পার ফলন হবে’।
 

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়