Banglar Chokh | বাংলার চোখ

বড়াইগ্রামে পরকিয়ার জেরে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা, স্বামী পলাতক

শেখ তোফাজ্জ্বল হোসাইন,নাটোর থেকে

প্রকাশিত: ২০:৩৯, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

বড়াইগ্রামে পরকিয়ার জেরে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা, স্বামী পলাতক

নিজস্ব ছবি

নাটোরের বড়াইগ্রামে পরকিয়ার জেরে ঘুমন্ত স্ত্রী বিউটি বেগমকে (৪৫) হাসুয়া দিয়ে নিজ শয়ন কক্ষে কুপিয়ে হত্যা করেছে পাষন্ড স্বামী। শনিবার রাত একটার দিকে উপজেলার গোপালপুর স্কুুলপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 
বিউটি খাতুন উপজেলার গোপালপুর স্কুুলপাড়া গ্রামের আব্দুল বারেকের স্ত্রী ও একই গ্রামের আলতাব হোসেনের মেয়ে। 
স্থানীয়রা জানান, একই গ্রামের মোয়াজ্জেম হোসেনের ছেলে ওয়ার্কশপ মিস্ত্রি পিন্টুর সাথে দীর্ঘদিন যাবত পরকিয়া প্রেম ছিল। সেই জেরে দাম্পত্য জীবনে তাদের পারিবারিক কলহ চলতেছিল। তাদের ২ মেয়ে ও ১ ছেলে আছে। বড় মেয়ের বিয়ে হওয়ায় ও ছেলের চাকুরীগত কারণে সিলেটে অবস্থান করলেও সপ্তম শ্রেণিতে পড়–য়া ছোট মেয়ে মাহিয়া খাতুন ঘটনাকালে একই শয়ন কক্ষে ছিল। 
মাহিয়া খাতুন বলে, শনিবার রাতে খাওয়া-দাওয়া শেষে বাবার সাথে আমি চৌকিতে ও মা মেঝেতে সপ বিছিয়ে শুইয়েছিল। রাত ১টার দিকে গোঙড়ানোর শব্দ শুনে ঘুম থেকে জেগে উঠে রক্তাক্ত অবস্থায় মা’কে দেখি এবং পাশে বাবা ধারালো হাসুয়া হাতে মা’য়ের পাশে দাঁড়িয়ে আছে। তখন আমি আতঙ্ক ও ভয়ে চিৎকার দিয়ে কান্নাকাটি শুরু করি। সে সময় বাবা ঘর থেকে বের হয়ে যায় এবং প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসে। 
নিহত বিউটির ননদ রুবিয়া বেগম বলেন, একই গ্রামের পিন্টুর সাথে পরকীয়া প্রেম ছিল বলে শুনেছি। সে মাঝে মাঝে বিরক্ত করতো ভাবীকে। এ নিয়ে ভাই-ভাবীর মধ্যে ঝগড়া বিবাদ হতো। বিউটির বোন লাভলী খাতুন জানান, পিন্টু মাঝে-মাঝে আমার বোনকে মোবাইলে কল দিয়ে বিরক্ত করায় বোনের সংসারে অশান্তি সৃষ্টি করে আসছিল। এলাকার সমাজসেবক আব্দুল আজিজ ব্যাপারী ও আব্দুর রাজ্জাক খান জানান, নিহত বিউটির সাথে পিন্টু নামের এক লোকের পরকীয়া প্রেম থাকায় তার স্বামী বারেক হাসুয়া দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে বলে শুনেছি। হত্যার পর থেকে বারেক পলাতক রয়েছে।
বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু মুসা জানান, শনিবার রাত ২টার দিকে ট্রিপল ৯৯৯ এ ফোনের মাধ্যমে সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে। সেখান থেকে তাদের শয়ন কক্ষে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলা কাটা অবস্থায় বিউটি বেগমকে পড়ে থাকতে দেখে। ওই সময় ঘাতক স্বামী আব্দুর বারেক ঘটনাস্থলে ছিল ন। পারিবারিক কোন্দলের জেরে এ ঘটনা ঘটতে পারে। এ ব্যাপারে থানায় মামলা হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য নাটোর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। আসামীকে গ্রেপতারের চেষ্টা চলছে। 
 

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়