Banglar Chokh | বাংলার চোখ

নেত্রকোনায় পারিবারিক কলহের জেরে ছুরিকাঘাতে  নিহত ২, আহত ৬ 

প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২৩:৫৭, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

নেত্রকোনায় পারিবারিক কলহের জেরে ছুরিকাঘাতে  নিহত ২, আহত ৬ 

প্রতীকী ছবি

নেত্রকোনার মদনে পারিবারিক কলহের জেরে মেয়ের জামাইয়ের বাড়িতে শ্বশুরের ছুরিকাঘাতে দুজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও ৬ জন।

রবিবার উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের রুদ্রশ্রী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, বিভিন্ন সময় স্বামীস্ত্রীর মধ্যে কলহের জেরে মেয়ের পিতা ক্ষুব্ধ হয়ে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মেয়ের শ্বশুর বাড়িতে হামলায় চালায়। এ সময় বাধা দিতে গেলে ছুরির আঘাতে ঘটনাস্থলে নিহত হন প্রতিবেশী মাদ্রাসা শিক্ষক শফিকুল ইসলাম (৬০)। এ ঘটনায় আহত হন আরও ৭ জন। পরে আহতদের মধ্যে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার সন্ধ্যায় মেয়ের মা মিনারা আক্তার (৫০) মারা যান।

বর্তমানে আহত ইব্রাহীম (৮০), মোবারক হোসেন (২৫), মাসুম মিয়া (১২), অবস্থা আশঙ্কাজনক অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ ছাড়া জুনাঈদ (১৫), রিনা আক্তার (৩৮) ও কাদির মিয়া (১৩) মদন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রুদ্রশ্রী গ্রামের এলাল উদ্দীনের ছেলে মোবারকের সঙ্গে ফতেপুর মড়লপাড়া গ্রামের আব্দুল মান্নানের মেয়ে মুন্নি আক্তারের বিয়ে হয়। তাদের সংসারে রবিবার পারিবারিক কলহের সৃষ্টি হয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে মুন্নি আক্তার বাবার বাড়ি গিয়ে স্বামী ও শাশুড়ির বিরুদ্ধে নালিশ করে। এতে মুন্নির বাবা আব্দুল মান্নান ক্ষিপ্ত হয়ে লোকজন নিয়ে ধারালো অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে মেয়ের জামাইকে মারতে আসে। এ ঘটনা ঠেকাতে এসে প্রতিবেশী শফিকুল ইসলাম ছুরির আঘাতে আহত হন। পরে মদন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে তিনি মারা যান। মেয়ের শাশুড়ি মিনারা আক্তার ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান।

মদন থানার ওসি মোহাম্মদ ফেরদৌস আলম জানান, রুদ্রশ্রী ঘটনায় ঘটনাস্থলে একজন নিহত হয়। পরে ময়মনসিংহ মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার সন্ধ্যায় মিনারা আক্তার মারা যান।

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়