Banglar Chokh | বাংলার চোখ

নলডাঙ্গায় ড্রামে উদ্ধার হওয়া ব্যক্তির পরিচয় মিলেছে : আটক ১,স্ত্রী সন্তানরা পলাতক

নলডাঙ্গা (নাটোর) প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২১:৪৬, ৩০ নভেম্বর ২০২২

আপডেট: ২১:৫৩, ৩০ নভেম্বর ২০২২

নলডাঙ্গায় ড্রামে উদ্ধার হওয়া ব্যক্তির পরিচয় মিলেছে : আটক ১,স্ত্রী সন্তানরা পলাতক

নিজস্ব ছবি

নাটোরের নলডাঙ্গায় ড্রামে উদ্ধার হওয়া ব্যাক্তি মোজাহার কে পরিবারের স্বজনরা পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে বলে তার আত্মীয়রা অভিযোগ করেছে। মঙ্গলবার রাতে পুলিশ রাজশাহীর বাগমারার লকোপাড়া গ্রামের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে কাউকে পায়নি।এ ঘটনার পর স্ত্রী,দুই সন্তান ও এক মেয়ে বাড়িতে তালা দিয়ে পালিয়েছে।তবে পুলিশ নিশ্চিত হয়েছে নিজ বাড়িতে মোজাহার কে হত্যা করে বাড়িতে থাকা ড্রামে লাশ ভর্তি করে নলডাঙ্গা উপজেলার সেনভাগে সড়কের পাশে ফেলে গেছে।এ ঘটনার দিন রাতেই পুলিশ বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে।বুধবার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একজন কে আটক করেছে পুলিশ।বুধবার বিকালে লাশের ময়না তদন্ত করে আত্মীয়দের কাছে লাশ হস্তান্তর করেছে।
নলডাঙ্গা থানা পুলিশ ও নিহতের মামা আজিজ ও মামাতো ভাই মোতালেব নয়ন জানায়,নওয়াঁ জেলার আত্রাই থানার পরেশনগর দীঘিপাড়া গ্রামে মৃত মোসলেম আলীর ছেলে কৃষক মোজাহার আলী (৫৫) পারিবারিক কলহের স্ত্রীর সাথে বনিবনা না হওয়ায় ১০ বছর ধরে মায়ের সাথে আত্রাই থানার দীঘিপাড়া গ্রামে বসবাস করত।মোজাহারের মা দুই বছর আগে মারা গেলে স্ত্রী দুই ছেলে মেজবাহ,মেহিদী ও একমাত্র মেয়ে মৌসুমি দীঘিপাড়া বাড়ি থেকে বাবা মোজাহার কে বুঝিয়ে রাজশাহী জেলার বাগমারা উপজেলার নখোপাড়া নিজ বাড়িতে নিয়ে আসে।নিজ বাড়িতে এনে জমি লিখে নিতে শুরু হয় নির্যাতন।বাধ্য হয়ে মোজাহার তার নামে থাকা ২০ বিঘা জমির মধ্যে ৬ বিঘা জমি দুই ছেলের নামে লিখে দেয়।এর আগে বিদ্যুৎ শট দিয়ে হত্যা করার চেষ্টা করেছিল স্ত্রী।গত সোমবার বিকালে মোজাহারের বাড়িতে চিৎকার চেচামেচির হয়েছে বলে আশে পাশের লোকজন শুনেছে।পরিবারের আত্মীয়দের ধারনা করছে বাকি জমি লিখে না দেওয়ায় পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে বাড়িতে থাকা ড্রামে ভরে লাশ নলডাঙ্গা থানার সেনভাগে ফেলে গেছে।নলডাঙ্গা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কালাম বলেন,মোজাহারের পরিচয় নিশ্চিত হয়ে বাগমারার নখোপাড়া গ্রামের বাড়িতে গিয়ে স্ত্রী সন্তানদের কে পাওয়া যায়নি।বাড়িতে তালা লাগিয়ে সবাই পালিয়েছে।তবে কিছু আলামত পাওয়া গেছে।ঘটনার দিন রাতেই পুলিশ বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।ওই এলাকা থেকে একজন কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।কিভাবে হত্যা করা হয়েছে পরিবার না অন্য কেউ হত্যা করেছে তা বের করার চেষ্টা চলছে।নিশ্চিত না হয়ে কিছুই বলা যাবে না।
 

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়