১৯ জুন ২০২১, শনিবার ০২:২৪:৩১ এএম
সর্বশেষ:

০৭ মে ২০২১ ০৪:০২:৪১ পিএম শুক্রবার     Print this E-mail this

৭ই মে প্রাকৃতিক অক্সিজেন রক্ষা দিবসে “সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের গাছকাটা বন্ধের দাবি

ডেস্ক রিপোর্ট
বাংলার চোখ
 ৭ই মে প্রাকৃতিক অক্সিজেন রক্ষা দিবসে “সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের গাছকাটা বন্ধের দাবি

আজ শুক্রবার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে পরিবেশবাদী যুব সংগঠন গ্রীন ভয়েস এর উদ্যোগে “সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সবুজ ধ্বংস করে রেস্টুরেন্ট নির্মাণ বন্ধের দাবিতে" এক ছাত্র- যুব সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত সোহরাওয়ার্দী উদ্যান খাবারের দোকান করতে কেটে ফেলা হয়েছে প্রায় দেড় শতাধিক গাছ। আমরা সকলেই জানি, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান বাংলাদেশের জাতীয় ইতিহাসের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি অঙ্গ। এখানে ১৯৪৮ সনের মার্চ মাসে মোহাম্মদ আলী জিন্নাহর `উর্দুই হবে রাষ্ট্রভাষা`র ঘোষণাকে বাঙালী জাতি দৃঢ়কণ্ঠে প্রত্যাখান করার মাধ্যমে বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা করার সংগ্রামের আনুষ্ঠানিক সূচনা করে। এখানেই একাত্ত¦রের ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক জনসভায় দেশের স্বাধীনতার লক্ষ্যে সাত কোটি বাঙালীর মুক্তিযুদ্ধের প্রত্যয় ঘোষিত হয়েছে। নয় মাস রক্তঝরা সশস্র মুক্তিযুদ্ধের পর আবার এখানেই দখলদার পাকিস্তান সেনাবাহিনীর আত্মসমর্পণের মধ্যে দিয়ে আমার স্বাধীনতা লাভ করেছি। সারা দেশ থেকে অসংখ্য মানুষ সারা বছর ব্যাপি মুক্তিযুদ্ধের অবিস্মরণীয় স্থানটি নিজেরা দেখা ও ছেলে-মেয়েদের প্রদর্শনের জন্যে এখানে আসছেন এবং অনাদিকাল পর্যন্ত আসবেন। এটি হবে একটি দেশপ্রেমের জনারণ্য।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানকে গিলে খাওয়ার জন্যে ভূমিদস্যুরা একের পর এক নীল নকশা করেই যাচ্ছে। এই উদ্যানের একটি অংশ বেশ কিছু ছোট-বড় দখলদারের পদানতা হয়ে আছে। এক কোটির অধিক মানুষ অধ্যুষিত ঢাকা মহানগরীতে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান সকলের দম নেয়ার একটি বৃহৎ স্থান। ঢাকাবাসীর শ্বাস গ্রহণের ফুসফুস সম এই নান্দনিক স্থানটির ৩০ থেকে ৪০ বছর পুরনো গাছ গুলো কাটা হচ্ছে খাবারের দোকান বানানোর নামে খুড়া অজুহাতে। এই অসাধু কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত তাদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দিত হবে এবং আমাদের দাবি ইতিহাসের অবিচ্ছেদ্য স্থানটির বৃক্ষ নিধন করে নয় বরং বৃক্ষময় করে গড়ে তুলতে হবে।
 সমাবেশ থেকে দাবী জানিয়েছেন বক্তারা:
০১। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সবুজ ধ্বংস করে রেস্টুরেন্ট নির্মাণ বন্ধ করতে হবে এবং বৃক্ষ নিধনের সাথে সংশ্লিষ্টদের শাস্তি দিতে হবে।
০২। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানকে বৃক্ষময় করে গড়ে তুলতে হবে।
০৩। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে পরিবেশবান্ধব উন্নয়ন নিশ্চিত করতে হবে
০৪। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের জন্য একটি দক্ষ, আন্তরিক ও গণমূখী রক্ষনাবেক্ষন ও ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করতে হবে।
০৫। এ উদ্যানটি সর্ব সাধারণের জন্য সকল সময় উন্মুক্ত রাখতে হবে এবং মাঠটির অখ-তা, নিরাপত্তা, চেতনাগত গাম্বীর্য ও পবিত্রতা নিশ্চিত করতে হবে
গ্রীন ভয়েস এর প্রধান সমন্বয়ক আলমগীর কবির এর সভাপতিত্বে এবং গ্রীন ভয়েস এর কেন্দ্রীয় সহ -সমন্বয়ক হুমায়ুন কবির সুমন এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এবং বক্তব্য রাখেন গ্রীন ভয়েস এর উপদেষ্টা নগর পরিকল্পনাবিদ স্থপতি ইকবাল হাবিব, নাগরিক সংহতির সাধারণ সম্পাদক শরিফুজ্জামান শরীফ, গ্রীন সেভার্সের প্রতিষ্ঠাতা আহসান রনি, গ্রীন ভয়েস কেন্দ্রীয় নেতা লালন গবেষক সরদার হীরক রাজা, গ্রীন ভয়েস ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি নাসরিন জান্নাত, গ্রীন ভয়েস রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি ইশরাত জাহান, গ্রীন ভয়েস পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের সমন্বয়ক সাচিনু মারমা প্রমূখ।
সংহতি জানান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অর্থনীতি বিভাগের চেয়ারম্যান এম এম আকাশ ও সিপিবির কেন্দ্রীয় নেতা গ্রীন ভয়েস এর উপদেষ্টা রুহিন হোসেন প্রিন্স, এবং বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা`র) সাধারণ সম্পাদক শরিফ জামিল। ।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
আইটি উপদেষ্টা
সোহেল আসলাম
উপদেষ্টামন্ডলী
মোঃ ইমরান হোসেন চৌধুরী
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2021. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close