২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, মঙ্গলবার ১১:৩৯:১৩ পিএম
সর্বশেষ:

৩১ জুলাই ২০২১ ১১:১২:১৯ পিএম শনিবার     Print this E-mail this

ভারিবর্ষণে মিরসরাইয়ের নিন্মাঞ্চল প্লাবিত:পানিবন্ধি ৫ শতাধিক পরিবার

মিরসরাই (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি
বাংলার চোখ
 ভারিবর্ষণে মিরসরাইয়ের নিন্মাঞ্চল প্লাবিত:পানিবন্ধি ৫ শতাধিক পরিবার

চারদিনের টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে মিরসরাইয়ের নিন্মাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। পানিবন্ধি হয়ে দূর্বিসহ জীবন কাটছে ৫ শতাধিক পরিবারের। মৎস্য প্রকল্প থেকে ভেসে গেছে লাখ লাখ টাকার মাছ। উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় পাকা-আধাপাকা গ্রামীণ সড়ক ভেঙ্গে গেছে।
জানা গেছে, উপজেলার করেরহাট, হিঙ্গুলী, জোরারগঞ্জ, কাটাছরা, দূর্গাপুর, মিঠানালা, মিরসরাই সদর, মিরসরাই পৌরসভা, বারইয়ারহাট পৌরসভা, খৈয়াছড়া, ওচমানপুর, সরকারতালুক, খিলমুরারী, ওয়াহেদপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। টানা বৃষ্টিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। পানি বন্ধি হয়ে আছে ফেনাপুনি, ওচমানপুরের মরগাং ও খিলমুরালী গ্রামের ৫শতাধিক পরিবার। চুলায় পানি উঠায় রান্না-বান্না বন্ধ রয়েছে এসব পরিবারে।
উপজেলার করেরহাট ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের ফরেস্ট অফিস থেকে একরাম সওদাগরের বাড়ি পর্যন্ত ওবায়দুল হক সড়কটি টানা বৃষ্টিতে ভেঙে ছড়ায় বিলীন হয়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা ব্যাহত হচ্ছে। গত দুইদিন আগে সড়কের কিছু অংশ ছত্তরুয়া ছড়ায় বিলীন হয়ে মানুষের চলাচলের এই সড়ক দিয়ে সকল প্রকার যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। ভারি বর্ষনে চরশরৎ এলাকার একটি নির্মিত সড়ক ভেঙ্গে গেছে। ভাঙ্গা সড়কটি পরিদর্শন করেছেন মিরসরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মিনহাজুর রহমান ও ইছাখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল মোস্তফা।
ওচমানপুর ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের (পশ্চিম মরগাং) বাসিন্দা আহসান উল্লাহ বলেন, গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিতে আমাদের গ্রামের শতাধিক পরিবার পানিবন্ধি হয়ে পড়েছে। দুইদিন চুলায় আগুন জ¦লছে না। অপরিকল্পিত ভাবে দিঘী খননের কারণে এই জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। এই দুর্ভোগ থেকে দ্রুত মুক্তি পেতে স্থানীয়রা সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কামনা করেছেন।
খিলমুরালী এলাকার বাসিন্দা মোহাম্মদ সুমন বলেন, বিএসআরএম বারমাসি একটি খাল ভরাট করে ফেলায় ও অপরিকল্পিতভাবে স্থাপনা নির্মাণ করায় এই এলাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। বিগত ৩-৪ বছর ধরে বর্ষা মৌসুমে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয় আমাদের।
বারইয়ারহাট পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা সাবউদ্দিন রাসেদ জানান, টানা বর্ষণে পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের পৌর ভবনের খুব নিকটে আংশিক ড্রেন পরিস্কার না থাকায় না জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে।
উপজেলার টেকের হাট এলাকার মৎস্য চাষী মোহাম্মদ হানিফ জানান, টানা বৃষ্টিতে ইছাখালী ও ওচমানপুর এলাকার অনেক মৎস্য প্রকল্পের মাছ পানিতে ভেসে গেছে। আমারও তিনটি প্রকল্প থেকে প্রায় ৪ লাখ টাকার মাছ ভেসে গেছে।
জানা গেছে, খাল পার্শ্ববর্তী হাট-বাজারগুলোকে ঘিরে গড়ে উঠেছে শতশত অবৈধ দোকানপাট ও স্থাপনা। এসব স্থাপনা ও দোকানপাটের কারণে বিভিন্ন খালে পানি প্রবাহে বিঘœ ঘটে। ফলে প্রত্যক বছর নিন্মাঞ্চল এলাকাগুলো পানির নিচে ডুবে যায়। এছাড়া অপরিকল্পিতভাবে পানি নিস্কাশনের পথ না রেখে বিভিন্ন শিল্প কারখানা গড়ে উঠার কারণে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়।
মিরসরাই উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রঘুনাথ নাহা বলেন, যে বৃষ্টি হয়েছে আশা করি ফসলের তেমন ক্ষতি হবে না। কারণ পানি নিচের দিকে নেমে যাবে। যদি বৃষ্টি কয়েকদিন অব্যাহত থাকে তাহলে রোপা আমনের ক্ষতি হওয়ার আশংকা রয়েছে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
সম্পাদক
শরীফ মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক
নাঈম পারভেজ অপু
আইটি উপদেষ্টা
সোহেল আসলাম
উপদেষ্টামন্ডলী
মোঃ ইমরান হোসেন চৌধুরী
কার্যালয়
১০৫, এয়ারপোর্ট রোড, আওলাদ হোসেন মার্কেট (৩য় তলা)
তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
ফোন ও ফ্যাক্স :+৮৮০-০২-৯১০২২০২
সেল : ০১৭১১২৬১৭৫৫, ০১৯১২০২৩৫৪৬
E-Mail: banglarchokh@yahoo.com, banglarchokh.photo1@gmail.com
© 2005-2021. All rights reserved by Banglar Chokh Media Limited
Developed by eMythMakers.com
Close