Banglar Chokh | বাংলার চোখ

সাঁথিয়া ফকিরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এসএমসি’র কমিটি গঠনে অনিয়মের অভিযোগ  

মনসুর আলম খোকন,সাঁথিয়া (পাবনা)প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২৩:০৯, ২২ জুন ২০২২

সাঁথিয়া ফকিরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এসএমসি’র কমিটি গঠনে অনিয়মের অভিযোগ  

ফকিরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

সাঁথিয়া পৌরসভাধীন সাঁথিযা ফকিরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এসএমসি‘র কমিটি গঠনে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে।
 অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সাঁথিয়া ফকিরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এসএমসি কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে পরিপত্র যথাযথ অনুসরণ করা হয়নি। অভিবাবকদের অবহিত না করে অতি গোপনে, সুকৌসলে উক্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ছাত্রছাত্রী, অভিবাবক না হয়েও অভিবাবক সদস্য হয়েছেন। দাতা সদস্য নির্বাচনের ক্ষেত্রেও যথাযথ নিয়ম মানা হয়নি। এই নিয়মবহিভর্’ত কমিটি গঠনের ফলে এলাকাবাসীর মধ্যে চরম ক্ষেভের সৃষ্টি হয়েছে এবং শিক্ষার সুষ্ঠ পরিবেশ ব্যাহত হবার সম্ভাবনা রয়েছে। সুষ্ঠভাবে শিক্ষাকার্যক্রম পরিচালনার স্বার্থে  নিয়মবহিভ’ত এসএমসি‘র কমিটি বিলপ্ত ঘোষণা করে বিধি অনুযায়ী নতুন কমিটি গঠনেরও দাবি জানিয়েছেন তারা।

বিদ্যালয়ের সাবেক প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হাবিবুর রহমান জানান, কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে এলাকাবাসী এবং অভিবাবক কেহ জানে না। সাঁথিয়ার প্রাণকেন্দ্রে পৌরসভাধীন ৬ নং ওয়ার্ডের সরকারি এ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির অবকঠামোর খুব খারাপ অবস্থা। ডুয়া কাঁচা একটি টিনের ঘরে চলছে আড়াই শ’ ছেলে মেয়ের পাঠদান। অবকাঠামোর উন্নয়ন হওয়া দরকার।
ফকিরপাড়ার বাসিন্দা রুহুল আমিন মাষ্টার জানান, কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে অনিয়ম করা হয়েছে। অভিবাবক সদস্য হওয়ার যোগ্যতা নেই এমন মানুষকে অভিবাবক করা হয়েছে। এই ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সুকৌশলে প্রধান শিক্ষকের পদ দখল করে আছে। স্লিপ কমিটির টাকাসহ যে সকল আর্থিক সুযোগ সুবিধা এ প্রতিষ্ঠানে আসে তার যথাযথ কাজ করা হয় না। তার প্রমাণ স্কুলে গেলেই পাবেন আপনারা।একই এলাকার বাসিন্দা
আব্দুল আজিজ জানান, এই প্রতিষ্ঠানে আমি অঠারো শতাংশ জমি দিয়েছি কিন্তু দাতা সদস্য করা হলো আমি জানি না।
উপজেলা শিক্ষা অফিসার হেলাল উদ্দিন জানান,ফকিরপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এসএমসি‘র কমিটি শিক্ষা কমিটিতে পাশ হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। কোন অনিয়ম হলে তদন্তের মাধ্যমে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
সাঁথিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ দেলোয়ার জানান, কমিটি শিক্ষা কমিটিতে পাশ হয়েছে। কমিটির বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ আমি পেয়েছি। একই ব্যাক্তি একাধিক প্রতিষ্ঠানের সভাপতি এটা আমার জানা নেই।
 

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়