Banglar Chokh | বাংলার চোখ

যশোর জেলা পরিষদ নির্বাচন

৫০ প্রার্থীর মাঝে প্রতীক বরাদ্দ

যশোর অফিস

প্রকাশিত: ০১:০৬, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

৫০ প্রার্থীর মাঝে প্রতীক বরাদ্দ

ছবি:সংগৃহীত

শুরু হয়েছে যশোর জেলা পরিষদের ভোট যুদ্ধ। গত সোমবার যশোর জেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোট দিতে না পারা দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ৫০ জনের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। চেয়ারম্যান দুইজন ব্যতীত প্রতীক প্রাপ্তদের মধ্যে সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নারী সদস্য পদে ১৪ ও সাধারণ ওয়ার্ডে ৩৪ জন প্রার্থী রয়েছেন।  
সোমবার সকালে যশোর কালেক্টরেট সভাকক্ষে এসব প্রার্থীর মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেন রিটার্নিং অফিসার জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান। এসময় সহকারী রিটার্নিং অফিসার আনিছুর রহমানসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এবারের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সাইফুজ্জামান পিকুল ঘোড়া ও বিকল্পধারার মারুফ হাসান কাজল আনারস প্রতীক পেয়েছেন। যদিও আনারস প্রতীক দাবি করেন এই দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর লোকজন। শেষ পর্যন্ত লটারি হয়। লটারিতে আনারস প্রতীক পান মারুফ হাসান কাজল। পরে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সাইফুজ্জামান পিকুলের পক্ষে ঘোড়া প্রতীক নেন আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান মুকুল। প্রতীক নিতে বিভিন্ন ওয়ার্ডের সদস্য প্রার্থীরা উপস্থিত হলেও আসেননি কোনো চেয়ারম্যান প্রার্থী। তাদের পক্ষে দুই আইনজীবী প্রতীক গ্রহণ করেন। প্রতীক বরাদ্দের একদিন আগে রোববার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন ৫ নম্বর ওয়ার্ডে এনায়েত হোসেন লিটন, ৬ নম্বর ওয়ার্ডে সুলতান মাহমুদ বিপুল এবং ৮ নম্বর ওয়ার্ডে আফছার উদ্দিন গাজী ও আলতাফ হোসেন বিশ্বাস। আগামী ১৭ অক্টোবর প্রথমবারের মতো যশোর জেলা পরিষদ নির্বাচনে ইভিএমে ভোট গ্রহণ করা হবে। এ দিন ১৩১৯ ভোটার ৫০ প্রার্থীর ভাগ্য নির্ধারণ করবেন।
নির্বাচনে সংরক্ষিত ১ নম্বর ওয়ার্ডে রেহেনা খাতুন লাটিম, হাজেরা পারভীন দোয়াত কলম, রাখী ব্যানার্জী টেবিল ঘড়ি, লায়লা খাতুন মাইক, নাছিমা সুলতানা হরিণ, সান-ই-শাকিলা আফরোজ ফুটবল, মরিয়ম বেগম বই ও বিলকিস সুলতানা সাথী টেলিফোন। সংরক্ষিত ২ নম্বর ওয়ার্ডে তাসরিন সুলতানা ফুটবল, রুকসান ইয়াসমীন পান্না দোয়াত কলম ও নাদিরা বেগম মাইক। সংরক্ষিত ৩ নম্বর ওয়ার্ডে সাহানা আক্তার ফুটবল, নাসিম আরা চৌধুরী দোয়াত কলম ও শ্যায়লা জেসমিন মাইক। সাধারণ ১ নম্বর ওয়ার্ডে সহিদুল আলম টিউবওয়েল ও সালেহ আহমেদ তালা, সাধারণ ২ নম্বর ওয়ার্ডে ইমামুল হাবিব তালা, মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম টিউবওয়েল, ইকবাল আহমেদ বৈদ্যুতিক পাখা ও সুরত আলী হাতি, সাধারণ ৩ নম্বর ওয়ার্ডে তৌহিদুর রহমান হাতি, কামরুজ্জামান টিউবওয়েল, আসাদুল ইসলাম বৈদ্যুতিক পাখা ও আহসান হাবীব তালা, সাধারণ ৪ নম্বর ওয়ার্ডে প্রদীপ দে টিউবওয়েল, আব্দুর রউফ মোল্লা হাতি, জিএম মনিরুজ্জামান বৈদ্যুতিক পাখা, শেখ মাহবুব উর রহমান ঘুড়ি, ফারাজী আশিকুল ইসলাম বাঁধন তালা ও এমএম আজিম উদ্দিন অটো রিকশা, সাধারণ ৫ নম্বর ওয়ার্ডে জয়নাল আবেদীন বৈদ্যুতিক পাখা, সাইফুজ্জামান চৌধুরী টিউবওয়েল, ইউনুছ আলী হাতি ও রাকিব হাসান তালা, সাধারণ ৬ নম্বর ওয়ার্ডে জবেদ আলী হাতি, শেখ ইমামুল কবির ঘুড়ি, সোহেল রানা টিউবওয়েল, রাকিবুল আলম রাকিব তালা ও শেখ আব্দুল মতলেব বৈদ্যুতিক পাখা, সাধারণ ৭ নম্বর ওয়ার্ডে গৌতম চক্রবর্তী হাতি ও শহীদুল ইসলাম টিউবওয়েল এবং সাধারণ ৮ নম্বর ওয়ার্ডে জাকির হোসেন বৈদ্যুতিক পাখা, সোহরাব হোসেন তালা, এসএম মহব্বত হোসেন অটো রিকশা, সাঈদুর রহমান টিউবওয়েল, মাসুদুজ্জামান উট পাখি, আজিজুল ইসলাম হাতি ও নজরুল ইসলাম খাঁন ঘুড়ি প্রতীক পেয়েছেন।
সাধারণ ১ নম্বর ওয়ার্ডে ২ জন, ২ নম্বর ওয়ার্ডে ৪ জন, ৩ নম্বর ওয়ার্ডে ৪ জন, ৪ নম্বর ওয়ার্ডে ৬ জন, ৫ নম্বর ওয়ার্ডে ৪ জন, ৬ নম্বর ওয়ার্ডে ৫ জন, ৭ নম্বর ওয়ার্ডে ২ জন ও ৮ নম্বর ওয়ার্ডে ৭ জন এবং সংরক্ষিত ১ নম্বর ওয়ার্ডে ৮ জন, ২ নম্বর ওয়ার্ডে ৩ জন ও ৩ নম্বর ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থীর মধ্যে নির্বাচনী যুদ্ধ হবে।
 

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়