Banglar Chokh | বাংলার চোখ

 ইডেনে নেত্রীদের কর্মকাণ্ড নিয়ে মুখ খুললো জামায়াতের মহিলা বিভাগ 

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৩:২১, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

 ইডেনে নেত্রীদের কর্মকাণ্ড নিয়ে মুখ খুললো জামায়াতের মহিলা বিভাগ 

প্রতীকী ছবি

রাজধানীর ইডেন মহিলা কলেজে ছাত্রলীগ নেত্রীদের কর্মকাণ্ড নিয়ে দেশজুড়ে সমালোচনার ঝড় বইছে। এমনকি কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ থেকে ইডেন শাখা ছাত্রলীগের কমিটিকে স্থগিত ঘোষণার পাশাপাশি কয়েকজন নেত্রীকে বহিষ্কারও করেছে। এসব ঘটনায় নিন্দা জানাচ্ছে অনেক সংগঠনও। এবার ইডেন কলেজের ঘটনা নিয়ে বিবৃতি দিয়েছে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় মহিলা বিভাগ।

সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) রাতে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে দলটির সেক্রেটারি মুহতারামা নূরুন্নিসা সিদ্দীকা দেশের ঐতিহ্যবাহী নারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ইডেন মহিলা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে ভর্তি বাণিজ্য, অনৈতিক কর্মকাণ্ড ও সৃষ্ট সন্ত্রাসের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন এবং শিক্ষার সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ ফিরিয়ে আনার আহবান জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে নূরুন্নিসা সিদ্দীকা বলেন, “বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ ঐতিহ্যবাহী নারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ইডেন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ। এই প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা গ্রহণ করছে প্রায় ৩৫ হাজার ছাত্রী। এই প্রতিষ্ঠান থেকে পাশ করে দেশের বিভিন্ন সেক্টরে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে নিয়োজিত আছেন এ কলেজের হাজার হাজার প্রাক্তন ছাত্রী। বর্তমান সরকার প্রধান শেখ হাসিনাও এ কলেজেরই ছাত্রী ছিলেন। একের পর এক অনৈতিক ও বিতর্কিত ঘটনায় আজ এ প্রতিষ্ঠানের অতীতের সকল অর্জন ও সুনাম ক্ষুণ্ন হচ্ছে।

তিনি আরও জানান ২৪ সেপ্টেম্বর শনিবার রাত থেকে ক্ষমতাসীন দলের দুগ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হলে সাধারণ ছাত্রীসমাজ আতংকিত ও জিম্মী হয়ে পড়েছে। শিক্ষার সার্বিক পরিবেশ মারাত্মক হুমকির মুখে পড়েছে। ক্ষমতাসীন দলের দুগ্রুপের ছাত্রীরা মুখোমুখি অবস্থান নিলে শুরু হয় মারামারি। এহেন পরিস্থিতিকে কেন্দ্র করে সংবাদ মাধ্যমে বেরিয়ে আসে ক্ষমতাসীন দলের ছাত্রীদের অপরাধের সব ভয়ঙ্কর চিত্র!

বিবৃতিতে তিনি আরো বলেন, ঐতিহ্যবাহী এ প্রতিষ্ঠানে আজ শিক্ষার কোনো সুষ্ঠু পরিবেশ নেই। ক্ষমতাসীন ছাত্র সংগঠনের নেত্রীরা সাধারণ শিক্ষার্থীদের রুমে গিয়ে বেপরোয়া ক্ষমতা দেখানো, ভর্তি বাণিজ্য, সিট বাণিজ্য, ক্যান্টিনে চাঁদাবাজি, ছাত্রীদের জোরপূর্বক অনৈতিক কাজে নিয়োজিত করাসহ নানাবিধ অপকর্মের কারণে সাধারণ ছাত্রী ও অভিভাবক মহলসহ গোটা জাতি উদ্বিগ্ন ও শংকিত হয়ে পড়েছেন। আমরা এ সব অন্যায় ও গর্হিত কর্মকাণ্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

শীঘ্রই এ পরিস্থিতি উত্তরণে এবং ছাত্রীদের নিরাপদ ও শান্তিপূর্ণ শিক্ষার পরিবেশ নিশ্চিত করতে আমরা সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করছি। সেই সাথে কলেজ অধ্যক্ষসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কার্যকরী পদক্ষেপ আশা করছি ”

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়