Banglar Chokh | বাংলার চোখ

যৌন নিপীড়ক বহিস্কৃত শিক্ষককেরপক্ষে সংঘবদ্ধ শিক্ষক চক্র:বামনার কলেজ সভাপতির অভিযোগ

বরগুনা প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ০০:৩০, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

যৌন নিপীড়ক বহিস্কৃত শিক্ষককেরপক্ষে সংঘবদ্ধ শিক্ষক চক্র:বামনার কলেজ সভাপতির অভিযোগ

নিজস্ব ছবি

বরগুনার বামনার বেগম ফায়জুন্নেসা মহিলা ডিগ্রী কলেজের গভনিং বডির সভাপতির অপসারন দাবীর  পরে রবিবার বিকেলে শিক্ষকরা যৌন নিপীড়ক  সাময়িক বরখাস্তকৃত শিক্ষকের পক্ষ অবলম্বন করছেন বলে অভিযোগ তুলেছেন গভনিং বডির সভাপতি সাবেক এমপি পূত্র সৈয়দ বজলুল গাফফার জায়গাম আহসান। বরগুনা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, গভনিং বডির সভার পূর্বের দিন রাত দশটায় আমি অফিস কক্ষে অবস্থানকালীন সময় উপাধ্যক্ষ মহসিন কবীর সহ এই সংঘবদ্ধ চক্রের চারজন আমার অফিস কক্ষে প্রবেশ করে আমাকে জানান যে, ২০১৮ সালের কলেজের ছাত্রী যৌন নিপীড়নকারী সাময়িক বরখাস্তকৃত শিক্ষক মো: আশরাফুল ইসলামকে কলেজে পুনবহাল , কলেজের কারনিক মো: সেলিম হোসেন এর কন্যাকে কলেজের ল্যাবে সহকারী পদে নিয়োগ প্রদান এবং বিগত অর্থ বছরের আয় ব্যায়ের হিসেব দেয়া সম্ভব নয় । এসব নিয়ে তারা আমার সাথে তর্কে জড়িয়ে পড়লে আমি তাদের বের করে দেই। 
সভাপতি জানান, আমার পিতা বরগুনা-২ আসনের সাবেক এমপি সৈয়দ ইত্তেজা হাসান তার ২০০৬ সালে তার ব্যক্তি মালিকানাধীন ২ একর জমিতে সম্পূর্ন নিজের টাকায় এই কলেজ প্রতিষ্ঠা করেন। প্রতিষ্ঠার পরে ১৬ বছর আমার বাবাকে একটি চক্র কলেজের সভাপতি হতে দেয়নি। আমি এই পদে থেকে শিক্ষকদের দূর্ণীতি অনিয়মের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ার কারনে শিক্ষরা সেই চক্রের সাথে মিলে আমাকে কলেজ থেকে সরিয়ে দেয়ার চক্রান্ত করছেন। 
তিনি আরও বলেন, শিক্ষকরা জাতির মেরুদন্ড কিন্তু এই কলেজের উপাধ্যাক্ষ ও কতিপয় শিক্ষকরা ক্লাস পরিচালনায় অনিয়ম অর্থিক অনিয়ম সহ শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে টাকা পয়সা স্বর্ন ধার নিয়ে আত্মসাৎ করা সহ নানাবিধ অনৈতিক কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়েছেন। ২০১৯ সালে আমি কলেজের সভাপতির দায়িত্ব নেয়ার সময় কলেজ তহবিলে মাত্র ৫ শত টাকা জমা পেয়েছি। সেখানে কলেজ তহবিল বৃদ্ধি করে আমি কলেজের নিজস্ব তহবিলের সাথে ৩ লক্ষ টাকা ব্যক্তিগত অনুদান দিয়ে মোট ১১ লক্ষ টাকার অনুদান ক্রয় করেছি। 
সাবেক এমপি পূত্র বলেন, গভনিং বডির সাথে শিক্ষকদের সমস্যা থাকলে তারা বসে সমঝোতা অথবা বিকল্প ব্যবস্থা করতে পরতো কিন্তু তারা শিক্ষার্থীদের জিম্মি করে তাদের পাঠদান বন্ধ রেখে অনৈতিক কাজ করছেন এটা তারা করতে পারেন না । 
 

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়