banglarchokh Logo

অন্যায়ের প্রতিবাদ রুখতেই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন: আনু মুহাম্মদ

ডেস্ক রিপোর্ট
বাংলার চোখ
 অন্যায়ের প্রতিবাদ রুখতেই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন: আনু মুহাম্মদ

অন্যায়ের প্রতিবাদ রুখতেই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ।

রবিবার কারাগারে লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর প্রতিবাদে রাজধানীর শাহবাগে আয়োজিত এক বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এ মন্তব্য করেন।

বিক্ষোভ থেকে বুধবার প্রেস ক্লাবের সামনে নাগরিক সমাবেশের ডাক দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া দ্রুত সময়ের মধ্যে মুশতাকের মৃত্যু তদন্ত রিপোর্ট জনসম্মুখে প্রকাশের দাবি জানানো হয়।

অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেন, মুশতাককে জেলে আটকে রেখে হত্যা করা হয়েছে। এর দায় সরকারের, এই দায় প্রধানমন্ত্রীর। প্রতিনিয়ত পুলিশ ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের দ্বারা দেশের সাধারণ মানুষ নির্যাতিত হচ্ছে। মানুষ যাতে এই অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে না পারে সেই জন্যই এই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন করা হয়েছে। মানুষের মুখ বন্ধ করে রাখার চেষ্টা করা হচ্ছে এই আইন দ্বারা।

তিনি বলেন, সরকারের পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে তাদের লোক দিয়ে। তদন্ত করার আগেই সরকারের পক্ষ থেকে যেসব বক্তব্য দেওয়া হচ্ছে তাতে তদন্ত কমিটির নিরপেক্ষভাবে কাজ করতে পারবে না। প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যে বক্তব্য দিয়েছেন সেই ভিত্তিতে তদন্ত রিপোর্ট আসবে, নিরপেক্ষ রিপোর্ট কখনোই আসবে না।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশের শেয়ার বাজার কারা লুট করেছে আমরা তা জানি। যারা শেয়ার বাজার লুট করেছে তারাই বাংলাদেশের কর্তা। তাদের রক্ষা করার জন্য ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন করা হয়েছে।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের এই শিক্ষক বলেন, ছাত্ররা মুশতাক হত্যার প্রতিবাদ করেছে। তাদের সেই প্রতিবাদ মিছিলে বাধা দিয়েছে সরকার। শুধু বাধা দিয়ে খান্ত হয়নি সরকার। তাদের ওপর হামলা চালানো হয়েছে, রক্তাক্ত করা হয়েছে। আবার মিথ্যা মামলা দিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক এম এম আকাশ বলেন, মুশতাক আহমেদকে নাকি রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। এখন কোথায় রইল আপনার ভাবমূর্তি। ১৩ দেশের রাষ্ট্রদূত আপনাদের ভাবমূর্তি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। আপনাদের উচিত রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি রক্ষা করতে মুশতাক হত্যার সুষ্ঠু তদন্ত করে তা জনগণের সামনে প্রকাশ করা।

গণসংহিত আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জুনায়েদ সাকী বলেন, ছাত্ররা শান্তিপূর্ণভাবে মশাল মিছিল করছিল সেখানে হামলা চালানো হল। মুশতাককে ১০ মাস জেলে নির্যাতন করা হত্যা করা হলো। তাকে জামিন দেওয়া হয়নি, জামিন দেওয়া হয় মাফিয়াদের।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কপিরাইট © 2021 বাংলারচোখ.কম কর্তৃক সর্ব স্বত্ব ® সংরক্ষিত। Developed by eMythMakers.com