Banglar Chokh | বাংলার চোখ

সংবাদ সম্মেলনে বসার জায়গা পেলনা সাফজয়ী অধিনায়ক-কোচের!

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ০০:৫৭, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২

আপডেট: ০১:৩২, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২

সংবাদ সম্মেলনে বসার জায়গা পেলনা সাফজয়ী অধিনায়ক-কোচের!

ছবি:সংগৃহীত

যাদের পায়ের জাদুতে বাংলাদেশের শিরোপার আক্ষেপ ঘুচেছে, যাদের হাত ধরে উৎসবের উপলক্ষ্য পেয়েছে গোটা দেশ, তাদেরই ঠাঁই হলো না বাফুফের সংবাদ সম্মেলন কক্ষের বেঞ্চে। সাফজয়ী অধিনায়ক সাবিনা খাতুনকে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে হলো দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে। চ্যাম্পিয়নদের কোচ গোলাম রব্বানি ছোটন ছিলেন আরও পেছনে।

সংবাদ সম্মেলনে সবার মাঝে বসবেন প্রধান কোচ, পাশে অধিনায়ক। যেকোনো পেশাদার সংবাদ সম্মেলনে এমনটিই তো দেখা যায়। প্রিমিয়ার লিগ জয়ী পেপ গার্দিওলা এবং আফ্রিকার চ্যাম্পিয়ন আলিউ সিসেকেও ছাদখোলা বাস থেকে সংবাদ সম্মেলনের মাঝখানে দেখা গিয়েছিল। কিন্তু বাংলাদেশের ক্ষেত্রে যেন তা উল্টো। সংগঠনের সভাপতি কাজী সালাহউদ্দিনই এদিন যেন সবার প্রাণকেন্দ্রে ছিলেন। দীর্ঘক্ষণ বক্তৃতাও দিয়েছেন তিনি।

নেপাল থেকে ঢাকা আসার পর প্রায় ৫ ঘণ্টা দাঁড়িয়ে ছাদখোলা বাসে বাফুফে ভবনে আসা সাবিনাদের কোনো আসন ছিল না। এছাড়াও এমন উৎসবের দিনেও বাফুফের আয়োজনে ছিল কমতি। নিজেদের আঙিনায় বাড়তি কোনো আলোর ব্যবস্থা পর্যন্ত করা হয়নি। 

সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয় বাফুফের কনফারেন্স রুমে। সেটিও দেশের সব গণমাধ্যমের কর্মীদের জন্য ছিল অপ্রতুল। ছাদখোলা বাসের ব্যবস্থা করা হলেও অব্যবস্থাপনার চিত্র ফুটে উঠেছে নিদারুণভাবে। তবে বাফুফের সিনিয়র সহ-সভাপতি সালাম মুর্শেদী বলেছেন, এখন মেয়েদের বরণের সময়, পরবর্তীতে আরও বড় জায়গায় সংবাদ সম্মেলন করা হবে।  

এদিকে চেয়ারের মাঝখানে না হোক, পাশেও নেই! সাবিনা তো দূরের কথা, কোচকে রাখেনি সংশ্লিষ্টরা। ছোটন কথা বলবেন, মাইক্রোফোনটা তো টেবিলেই থাকার কথা। কিন্তু নিজেই যেখানে বসতে পারেননি, সেখানে মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়েই কথা বলতে হলো সাফজয়ী কোচকে।

সালাহউদ্দিন ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেলের বক্তৃতার পর সাংবাদিকরা যখন বাংলাদেশ নারী দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন ও দলের কোচ গোলাম রব্বানি ছোটনকে প্রশ্ন করে, তখন তারা সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়েই দেন। 

তবে সংবাদ সম্মেলনের শুরুতে অবশ্য বসার সুযোগ মিলেছিল সাবিনাদের। কিন্তু পরে উঠে যেতে হয়। আর এতে বেজায় খেপেছেন সমর্থকরা। ইতিমধ্যে বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ক্ষোভ প্রকাশ করেন অনেকে। 

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়