Banglar Chokh | বাংলার চোখ

সাফজয়ী আঁখি খাতুনের বাবাকে পুলিশের হুমকি

প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৯:৩৩, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২

সাফজয়ী আঁখি খাতুনের বাবাকে পুলিশের হুমকি

ছবি:সংগৃহীত

বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের রক্ষণভাগের খেলোয়াড় সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরের মেয়ে আঁখি খাতুন। সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ট্রফি নিয়ে তারা যখন রাজধানীর সড়কে ছাদখোলা বাসে হাজারো দর্শকের ভালোবাসায় সিক্ত, ঠিক তখন আঁখির গ্রামের বাড়িতে তার বাবার সঙ্গে পুলিশ অফিসারের অসৌজন্যমূলক আচরণে শঙ্কিত তার পুরো পরিবার।

আঁখির বাবা জানান, সরকার থেকে আঁখির জন্য বরাদ্দ করা জমির মালিকানা দাবি করে আদালতে মামলা করেছে একটি পক্ষ, আর সেই মামলার নোটিশে স্বাক্ষর করতে না বলায় ওই পুলিশ অফিসার তাকে গালমন্দ করেন এবং একপর্যায়ে থানায় তুলে নিয়ে যাওয়ার হুমকি দেন। আর পুলিশের অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানিয়েছেন ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা।

বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) বিকেলে সাফজয়ী বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের সবাই যখন রাজধানীতে ছাদখোলা বাসে লাখ লাখ দর্শকের ভালোবাসায় সিক্ত, তখন পাশের বাসায় ছোট একটি টিভির পর্দায় দলের রক্ষণভাগের খেলোয়াড় সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরের মেয়ে আঁখি খাতুনের পরিবার সরাসরি উপভোগ করছিল। মেয়ের প্রতি দেশবাসীর এমন ভালোবাসা দেখে আনন্দিত আঁখির মা-বাবাসহ গ্রামের সবাই।

কিন্তু আঁখির পরিবারের সেই আনন্দ হঠাৎ বিশাদে রূপ নেয়। বুধবার সন্ধ্যায় শাহজাদপুর থানার এএসআই মামুনুর  রশিদ আঁখি খাতুনের নামে মামলার একটি সমন নোটিশ নিয়ে আসেন তার বাবার কাছে।

আঁখির বাবা আক্তার হোসেন অভিযোগ করে বলেন, ‘ওই পুলিশ অফিসার নোটিশে স্বাক্ষর করতে বললে আমি নোটিশের বিষয়ে কিছু না বুঝতে পারায় স্বাক্ষর করতে অস্বীকার করি। তখন সেই পুলিশ অফিসার আমাকে নানাভাবে ধমক দেন। একপর্যায়ে আমাকে থানায় নিয়ে যেতে সঙ্গে থাকা কনস্টেবলকে আদেশ করেন। এ সময় নানাভাবে হুমকি-ধমকি দিয়ে চলে যান সেই পুলিশ অফিসার।’ 

এদিকে বাসায় এসে পুলিশ কর্মকর্তার এমন আচরণে শঙ্কিত এ ফুটবলারের পরিবার ও তার স্বজনরা। আঁখির মা নাছিমা খাতুন বলেন, ‘মেয়ের সাফল্য নিয়ে গতকাল (বুধবার) সন্ধ্যায় আমরা সবাই যখন আনন্দ করছিলাম, ঠিক তখনই ওই পুলিশ অফিসার এসে আমাদের সবার সামনেই খারাপ আচরণ করেন। এতে আমরা ভয় পেয়ে যাই। এ সময় বেশ কয়েকজন স্থানীয় পত্রিকার সাংবাদিকও উপস্থিত ছিলেন। তাদের সামনেই এ ঘটনা ঘটে।’

পুলিশের এমন আচরণে অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হাসিবুল ইসলাম। সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘যে পুলিশ অফিসারের বিরুদ্ধে অভিযোগ এসেছে, সেটা আমরা তদন্ত করে দেখছি। অভিযোগের প্রমাণ পেলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

জাতীয় নারী ফুটবল দলের খেলোয়াড় আঁখি খাতুনকে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর পৌরসভার দ্বাবারিয়া এলাকায় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত ৮ শতক জমি উপহার দেয়া হয়। কিন্তু সেই জমির মালিকানা দাবি করে আদালতে মামলা করেন মকরম প্রামাণিক নামের এক লোক।

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়